ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৮, ৩ মাঘ ১৪২৪, ২৮ রবিউস সানি ১৪৩৯
শিরোনামঃ
৩০ দফা ফিজিক্যাল অ্যারেঞ্জমেন্টে একমত হয়েছে বাংলাদেশ -মিয়ানমার চট্টগ্রামে প্রণব মুখার্জি বাল্যবিয়ে আজও দেশের বড় সামাজিক সমস্যা বিএনপির মনোনয়ন পেলেন তাবিথ আউয়াল শাহজালালে যাত্রীর অন্তর্বাস থেকে ৪৩টি স্বর্ণের বার আটক শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু বিগ বস ১১’ জয়ী শিল্পা শিন্ডে জাতীয় সংসদ ভবনের নকশা নিয়ে আজো চলছে গবেষণা আলিয়া-রণবীরকে দেখা যাবে জোয়ারের ছবিতে নিরাপত্তার জন্য সংসদ ভবন পরিদর্শনের সুযোগ কম সাধারণ মানুষের ৫ দিনের সফরে ঢাকায় প্রণব মুখার্জী, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত আজ বাংলাদেশ-মিয়ানমার জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক শুরু ৪ ঘন্টা বন্ধ থাকার পর শাহজালাল বিমানবন্দরে বিমান উড্ডয়ন-অবতরণ শুরু প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের

জঙ্গিদের অর্থের উৎস বন্ধ হয়নি

প্রকাশিত: ১১:৫৭ , ১৯ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ১১:৫৭ , ১৯ মার্চ ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক
শক্তি সঞ্চয়ের জন্য খানিকটা নিশ্চুপ থেকে আবারো সক্রিয় জঙ্গিরা। নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলছেন, আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর ধারাবাহিক অভিযানের কারণে পিছু হটার সাময়িক কৌশল নেয় জঙ্গিরা। জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর তৎপরতা শেষ হয়ে গেছে, এমনটি ভাবা ভুল। কেননা, তাদের অর্থের উৎস ও বিস্ফোরক তৈরীর যোগান বন্ধ হয়নি। তাই যে কোনো সময় সংগঠিত আত্মঘাতি হামলার আশঙ্কাও উড়িয়ে দিতে পারছেন না নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা।

নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা বলেন, ঢাকায় প্রস্তাবিত র‌্যাব হেডকোয়ার্টারের সামনে আত্মঘাতি বোমা হামলাসহ দেশজুড়ে সাম্প্রতিক জঙ্গি তৎপরতা বড় ধরনের নাশকতা হতে পারে এমনটাই ইঙ্গিত বহন করছে। তারা বলেন, ঢাকার আশকোনা ও খিলগাঁওয়ের পাশাপাশি কুমিল্লা, সীতাকুন্ড ও মিরসরাইয়ে হামলা ও আস্তানা খুঁজে পাওয়ার ঘটনাগুলো প্রমাণ করে, ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে জঙ্গিরা।
আত্মঘাতী হামলার টার্গেট হিসেবে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের বেঁছে নেয়াকে কৌশলগত আক্রমণ হিসেবে  দেখছেন জঙ্গি কর্মকান্ডের বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, মূলত বাহিনীর মনোবল ভেঙ্গে দিতেই এই আক্রমন।

অবশ্য এর আগেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে  জঙ্গিরা। সোলাকিয়ার ঈদ জামাতে পুলিশের ওপর গুলিবর্ষণ এবং আশুলিয়া ও  আমিনবাজারে বছর দুয়েক আগে হামলা চালায় তারা। নিরাপত্তা বিশ্লেষকদের কেউ কেউ মনে করেন, ধারাবাহিক অভিযানে জঙ্গিরা নির্মূল হয়ে গেছে, এমনটা ভাবা ঠিক নয়। বরং তারা এখন আগের তুলনায় অনেক বেশি কৌশলী।

তারা বলছেন, জঙ্গিদের কেউ কেউ হয়তো স্থানীয়ভাবে সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করে থাকতে পারে। একারণেই সম্ভবত আইএস বিচ্ছিন্ন এসব হামলার দায় স্বীকার করে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, জঙ্গিরা তাদের এলাকাও বদল করছে। আগে তাদের কর্মকান্ড উত্তরবঙ্গ কেন্দ্রীক হলেও এখন তারা দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ -পূর্ব এলাকাকে নিরাপদ হিসেবে বেঁছে নিয়ে শক্তি সঞ্চয়ের চেষ্টা করছে।

এই বিভাগের আরো খবর

একাত্তরের এ’দিন 

হানাদারমুক্ত হয় নেত্রকোণা, ফরিদপুর ও ময়মনসিংহ

ডেস্ক রিপোর্ট: নেত্রকোণা ও ফরিদপুর হানাদার মুক্ত দিবস আজ। এছাড়া ময়মনসিংহের ৪ উপজেলাও মুক্ত হয় একাত্তরের এ’দিন। মুক্তির আনন্দে বিজয়...

বর্ণাঢ্য ও অনন্য আনিসুল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক : বর্ণাঢ্য কর্মজীবনের অধিকারী ছিলেন আনিসুল হক। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের এই মেয়র নেতৃত্ব দিয়েছেন উদ্যোক্তা ও...

সাগরে ভাসানো চিঠি ২৯ বছর পর ফেরত

ডেস্ক প্রতিবেদন: চিঠি লিখে বোতলে ভরে সমুদ্রে ফেলার ২৯ বছর পর তা ফেরত পেলেন এক তরুণী। ১৯৮৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর খেলার ছলে চিঠি লিখে সমুদ্রে...

লালন শাহ’র তিরোধান দিবস

কুষ্টিয়ার বাউল সম্রাটের আখড়ায় জড়ো হয়েছেন ভক্ত-অনুসারীরা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ ! গানের মধ্য দিয়ে জাতভেদের বিরোধিতা আর অহিংসার বাণী ছড়িয়েছিলেন এই আধ্যাত্মিক বাউল। তাইতো...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is