ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭, ৬ কার্তিক ১৪২৪, ৩০ মহাররম ১৪৩৯
শিরোনামঃ
উন্নত বাংলাদেশ গড়তে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখুন: জয় বেড়িবাঁধ ভেঙে বিভিন্ন জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাহত ফেরি চলাচল টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা টানা বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন বন্দরের কার্যক্রমে স্থবিরতা ডি-এইট সম্মেলনে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পেয়েছে রোহিঙ্গা ইস্যু আওয়ামী লীগে জঙ্গি-সন্ত্রাসি ও চাঁদাবাজের ঠাঁই নেই: ওবায়দুল সু চি’র নীরবতায় রোহিঙ্গাদের ওপর সেনা নিপীড়ন চলছে: ইউনূস ভারী বর্ষণে কলাপাড়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙে ১১ গ্রাম প্লাবিত রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ: আমীর খসরু মালয়েশিয়ায় ৩৯ বাংলাদেশিসহ ১১৩ অভিবাসী আটক একটি গোষ্ঠী রোহিঙ্গাদের সন্ত্রাসী কাজে ব্যবহার করতে চায়: কামরুল প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আহ্বান ইনজুরির কারণে শেষ ওয়ানডেতেও খেলতে পারছেন না তামিম দিনাজপুর ও নেত্রকোনার চাষিরা দিশাহারা স্পেনের অংশ কাতালোনিয়া আছে, থাকবে: রাজা ষষ্ঠ ফিলিপ আলফাডাঙ্গায় মধুমতির ভাঙন এলাকায় ড্রেজিং প্রকল্প উদ্বোধন আফগানিস্তানে দু’টি মসজিদে আত্মঘাতী বোমা হামলা, নিহত ৭২ হাঁস পালন করে ঝিনাইদহের শতাধিক খামারির মুখে হাসি ড্রাগন চাষে লাভবান হচ্ছেন পটুয়াখালীর চাষিরা ভারী বর্ষণে কলাপাড়ায় বেড়িবাঁধ ভেঙে ১১ গ্রাম প্লাবিত

খেলারামের কোঠায় একদিন

প্রকাশিত: ০৮:০১ , ১০ অক্টোবর ২০১৭ আপডেট: ০৮:০১ , ১০ অক্টোবর ২০১৭

ডেস্ক প্রতিবেদন: ঢাকার কাছেই নবাবগঞ্জ প্রাচীন স্থাপত্যের নিদর্শনে সমৃদ্ধ। তার মধ্যে একটি স্থাপনা হচ্ছে খেলারামদার কোঠা। নবাবগঞ্জের বান্দুরার কলাকোপায় অবস্থিত খেলারামের এই কোঠাটি কালের সাক্ষী। প্রায় ২০০ বছরের পুরনো শৈল্পিক কারুকার্যে নির্মিত এ ভবনটি একনজর দেখার জন্য প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে যান অনেক দর্শনার্থী। এই কোঠাটি নিয়ে অনেক কাহিনী কথিত আছে।

প্রচলন আছে, ১৮০০ খ্রিস্টাব্দের মাঝামাঝি সময়ে বর্তমান ময়মনসিংহ জেলার তৎকালীন জমিদার খেলারাম তাঁর বংশীয় লোকজনের সাথে দেখা করতে নবাবগঞ্জের কলাকোপায় আসতেন। আসা-যাওয়ার মাঝে এ স্থানটি তাঁর পছন্দ হয়ে যায়। পরবর্তীকালে অস্থায়ীভাবে বসবাসের জন্য একটি দ্বিতল পাকা ভবন নির্মাণ করেন। পরবর্তীতে এটি খেলারামের কোঠা নামে পরিচিতি লাভ করে। তিনি এ অঞ্চলের মানুষকে অনেক সাহায্য-সহযোগিতা করতেন, যার জন্য তাঁর নামের সাথে দাতা শব্দটি যুক্ত হয়ে খেলারাম দাতা হিসেবে পরিচিতি পায়। বর্তমানে খেলারাম দাতার কোঠা বললে সবাই একনামে চেনে-জানে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা রাখা হয় খেলারামের কোঠাটি। তবে ভবনের ভেতরে প্রবেশের জন্য কোনো ফি ধার্য করা হয়নি।

যা দেখবেন

খেলারামের দোতল এ বাড়িটির দৈর্ঘ্য-প্রস্থ প্রায় সমান। ভবনের নিচতলায় ছোট-বড় মিলিয়ে ২০টির মতো সুরম্য কক্ষ রয়েছে। দোতলায় মোট ৯টি গম্বুজ রয়েছে। মাঝখানের গম্বুজটি আকারে অনেক বড়। প্রতিটি গম্বুজের ভেতরের অংশে চীনামাটির কারুকার্যে তৈরি করা হয়েছে বলে সহজেই সবার দৃষ্টি কাড়ে। ভবনটির মাটির নিচে একটি গোপন কক্ষ রয়েছে। কথিত রয়েছে গোপন কক্ষটিতে জমিদার খেলারাম ও তার ভক্তবৃন্দরা আরাম-আয়েশ ও আরাধনা করতেন।

কীভাবে যাবেন

ঢাকার গুলিস্তান ও নয়াবাজার থেকে যমুনা, শিশির ও নবাবগঞ্জ পরিবহনের বাস চলাচল করে এই রুটে। ভাড়া জনপ্রতি ৫০ টাকা। নবাগঞ্জ নেমে রিকশা নিয়ে যেতে পারবেন খেলারামের কোঠায়।

এই সম্পর্কিত আরো খবর

ঘুরে আসুন নুহাশ পল্লী

ঘুরে আসুন নুহাশ পল্লী ডেস্ক প্রতিবেদন: ঢাকার অদূরে গাজীপুরেই রয়েছে প্রাকৃতিক নৈসর্গ নুহাশ পল্লী। পারিবারিক বিনোদন কেন্দ্র ও শুটিংস্পট...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is