ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪, ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ  রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে সকল যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দাবি ওয়ান প্লানেট সম্মেলন শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী জলবায়ু খাতে ৭ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের পরিকল্পনা সরকারের সৌদি আরবে জিয়া পরিবারের বিপুল অর্থ, তদন্ত করবে দুদক পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দাবিতে সোচ্চার হোন থার্টিফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শিক্ষা অধিদপ্তর-বোর্ড ও বিজি প্রেস থেকে প্রশ্ন ফাঁস হয়: দুদক বিএনপি নির্বাচনে না আসলে গণতন্ত্র বাধাগ্রস্ত হবে না পল্লী বিদ্যুতে অতিরিক্ত ইলেকট্রিশিয়ান নিয়োগ দেওয়ায় মানববন্ধন রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা তুঙ্গে হাইকোর্টে লক্ষ্মীপুরের ইউএনওর ক্ষমা প্রার্থনা খাগড়াছড়িতে ৬ সশস্ত্র যুবক আটক চট্টগ্রামের সেবা সমূহ ডিজিটালাইজড হওয়ার তাগিদ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে সারা দেশে বিএনপির বিক্ষোভ আকায়েদের বিরুদ্ধে মার্কিন পুলিশের তিন অভিযোগ আশুগঞ্জে আমন চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু ভূমিমন্ত্রীর ছেলে তমালকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ গাইবান্ধায় যুবলীগ নেতার ও বরগুনায় জেলের মরদেহ উদ্ধার ঢামেক হাসপাতাল দিচ্ছে ডিজিটাল ডেথ সার্টিফিকেট

জেনে নিন কারা ডায়াবেটিসের ঝুঁকিতে

প্রকাশিত: ১২:২৮ , ১১ অক্টোবর ২০১৭ আপডেট: ১২:২৮ , ১১ অক্টোবর ২০১৭

ডেস্ক প্রতিবেদন: অতিরিক্ত ক্ষুধা বা তৃষ্ণা, ওজন কমা, দৃষ্টিশক্তি হ্রাস প্রভৃতি উপসর্গ সাধারণত ডায়াবেটিসের লক্ষণ। কিন্তু লক্ষণগুলো সবসময় না-ও থাকতে পারে। প্রতি দুজন ডায়াবেটিস রোগীর মধ্যে একজন জানেনই না, তিনি ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত। অনেক  ক্ষেত্রে চোখের জটিলতা, হৃদরোগ, স্ট্রোক, কিডনি জটিলতা, পায়ে পচন, প্রভৃতি জটিলতা নিয়ে ডায়াবেটিস শনাক্ত হয়। সঠিক সময়ে রোগনির্ণয় তাই ডায়াবেটিসের চিকিৎসা ও জটিলতা প্রতিরোধের অন্যতম পূর্বশর্ত। তাই ডায়াবেটিসের কোনো লক্ষণ না থাকলেও যাঁরা ঝুঁকিতে রয়েছেন তাঁদের নিয়মিত ডায়াবেটিস পরীক্ষা করানো উচিত।

যাঁরা ঝুঁকিতে রয়েছেন

১. বয়স ৪৫ বা তার বেশি

২. স্থূল ব্যক্তি

৩. শারীরিক পরিশ্রমের ঘাটতি

৪. রক্তসম্পর্কিত নিকটাত্মীয়ের ডায়াবেটিস থাকলে

৫. উচ্চরক্তচাপ, স্ট্রোক বা হৃদরোগ

৬. পলিসিস্টিক ওভারি সিনড্রোম

৭. গর্ভকালীন ডায়াবেটিস বা অধিক ওজনের সন্তান প্রসবের পূর্ব ইতিহাস

৮. রক্তে ট্রাইগি­সারাইডের মাত্রা বেশি এবং এইচডিএলের মাত্রা কম থাকলে

তা ছাড়া গর্ভবতী নারীদের সময়মতো ডায়াবেটিস নির্ণয় না হলে, বেশি ওজনের শিশু জন্মদান, অকাল গর্ভপাত, মৃত সন্তান প্রসব, প্রসব-পরবর্তী শিশুমৃত্যু, জন্মগত ত্রুটি বা প্রসব-পরবর্তী মা ও সন্তানের বিভিন্ন জটিলতাও দেখা দেয়।

শিশুদের সাধারণত টাইপ-১ ডায়াবেটিস বেশি দেখা যায়। তবে ১৮ বছরের নিচেও টাইপ-২ ডায়াবেটিস থাকার আশঙ্কা থাকে। তাই স্থূলকায় বাচ্চা এবং সেই সঙ্গে রক্তসম্পর্কীয় নিকটাত্মীয়ের ডায়াবেটিস বা মায়ের গর্ভকালীন ডায়াবেটিসের ইতিহাস থাকলে অথবা ইনসুলিন রেজিস্ট্যান্টের উপসর্গ, যেমন—  ঘাড়ের কালো দাগ, উচ্চরক্তচাপ, পলিসিস্টিক ওভারি সিনড্রোম প্রভৃতি থাকলে ১০ বছর বয়সের পর যেকোনো শিশুর ডায়াবেটিস পরীক্ষা করা উচিত।

 

এই বিভাগের আরো খবর

বায়ু দূষণে বছরে শ্বাসকষ্টে ভোগে ১ কোটি ৭০ লাখ শিশু: ইউনিসেফ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বায়ু দূষণের কারণে পৃথিবীতে ১ কোটি ৭০ লাখ শিশু শ্বাসকষ্টসহ মস্তিষ্কের নানা রোগে ভুগছে বলে জানিয়েছে ইউনিসেফ। বুধবার...

স্বাধীনতার ৪৬ বছর

স্বাস্থ্য সেবার মান নিয়ে আছে বঞ্চনার দীর্ঘশ্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিজয়ের ৪৬ বছরে স্বাস্থ্য খাতে অনেক কিছু জয় করেছে দেশ, শুধু পারেনি স্বাস্থ্য সেবার মান নিয়ে সাধারণ মানুষের মন জয় করতে।...

মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে অব্যবস্থাপনায় সুফল পাচ্ছেনা রোগীরা

মেহেরপুর প্রতিনিধি: অব্যবস্থাপনায় চলছে মেহেরপুরের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের কার্যক্রম। রোগীদের অভিযোগ অত্যাধুনিক...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is