ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৮ কার্তিক ১৪২৪, ২ সফর ১৪৩৯
শিরোনামঃ
রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধান চায় বাংলাদেশ ও ভারত কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের তাগিদ বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া ১৪ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা শিশু অপুষ্টিতে মারা যেতে পারে নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি হোয়াইট ওয়াশ হলো বাংলাদেশ গত কদিনে বাংলাদেশে ঢুকেছে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা ১১ সাক্ষীকে জেরার জন্য খালেদার আবেদন হাই কোর্টে নিষ্পত্তি নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি নিরাপদ সড়ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে সবাই আইন মেনে চলুন আবহাওয়ার উন্নতি: দেশের বিভিন্ন রুটে নৌ চলাচল স্বাভাবিক নির্বাচন নিয়ে সরকার নীল নকশা করছে: রিজভী স্পেনের কেন্দ্রীয় শাসন না মানার ঘোষণা কাতালান প্রেসিডেন্টের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখুন: জয় ইপিএল-এ জয় পেয়েছে চেলসি ও ম্যানসিটি বেড়িবাঁধ ভেঙে বিভিন্ন জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাহত ফেরি চলাচল টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা টানা বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন বন্দরের কার্যক্রমে স্থবিরতা মালয়েশিয়ায় ভূমিধসে তিন বাংলাদেশীসহ ৪ শ্রমিকের মৃত্যু কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে দিলো স্পেন

জলাবদ্ধতা নিরসনে বাঁধ-সড়ক নির্মাণ

ঠিকাদার নিয়োগ নিয়ে সিডিএর দরপত্রে অস্বচ্ছতার অভিযোগ

প্রকাশিত: ১২:২৯ , ১২ অক্টোবর ২০১৭ আপডেট: ০৫:১৭ , ১২ অক্টোবর ২০১৭

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা সমস্যা সমাধানে উদ্যোগ নিয়েছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। এর অংশ হিসেবে কালুরঘাট থেকে শাহ আমানত সেতু পর্যন্ত সাড়ে ৮ কিলোমিটার বাঁধ ও চার লেনের সড়ক নির্মাণের দরপত্র আহবান করেছে সিডিএ। তবে শুরুতেই প্রকল্পের ঠিকাদার নিয়োগ প্রক্রিয়া নিয়ে অস্বচ্ছতার অভিযোগ উঠেছে।
চট্টগ্রাম মহানগরীর দুঃখ জলাবদ্ধতা নিরসনে শুরু হয়েছে মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ। প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে কালুরঘাট থেকে শাহ আমানত সেতু পর্যন্ত কর্ণফুলী নদীর তীর বরাবর ৮ দশমিক পাঁচ ছয় কিলোমিটার বাঁধ কাম চার লেনের সড়ক নির্মাণ করবে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।এরসাথে থাকবে ১২টি খালের মুখে বিশেষ স্লুইস গেইট এবং পাম্প হাউজ। এ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ২৭৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন জোয়ার ও অতি বৃষ্টিতে নগরীর বিভিন্ন এলাকা জলাবদ্ধ হয়ে পড়ার মূল কারণ কর্ণফুলীর তীরের প্রায় সাড়ে ৮ কিলোমিটারএলাকায় বাঁধ ও স্লুইস গেইট না থাকা।
কিন্তু অভিযোগ উঠেছে- প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন হলেও দরপত্রে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে সড়ক নির্মাণে। বাঁধ প্রকল্পের ধরণ অনুযায়ী দরপত্র আহবান না করে সীমিত প্রতিষ্ঠানকে সুযোগ করে দেয়া হয়েছে। ফলে বাঁধ নির্মাণে অভিজ্ঞরা দরপত্রে অংশগ্রহণ থেকে বঞ্চিত হতে পারে। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রকল্পের পরিচালক প্রকৌশলী রাজিব দাশ জানান, ঠিকাদার নিয়োগের প্রাথমিক প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।
ঠিকাদার নির্বাচন প্রক্রিয়ায় কোন অস্বচ্ছতা নেই বলে দাবি করেন সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম। নিয়ম মেনেই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি।
গুরুত্বপূর্ণ এই প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রতিযোগিতার ভিত্তিতে দক্ষ ও অভিজ্ঞ ঠিকাদার নিয়োগ হওয়া উচিত বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

 

এই সম্পর্কিত আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is