ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৮ কার্তিক ১৪২৪, ২ সফর ১৪৩৯
শিরোনামঃ
রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধান চায় বাংলাদেশ ও ভারত কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের তাগিদ বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া ১৪ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা শিশু অপুষ্টিতে মারা যেতে পারে নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি হোয়াইট ওয়াশ হলো বাংলাদেশ গত কদিনে বাংলাদেশে ঢুকেছে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা ১১ সাক্ষীকে জেরার জন্য খালেদার আবেদন হাই কোর্টে নিষ্পত্তি নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি নিরাপদ সড়ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে সবাই আইন মেনে চলুন আবহাওয়ার উন্নতি: দেশের বিভিন্ন রুটে নৌ চলাচল স্বাভাবিক নির্বাচন নিয়ে সরকার নীল নকশা করছে: রিজভী স্পেনের কেন্দ্রীয় শাসন না মানার ঘোষণা কাতালান প্রেসিডেন্টের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখুন: জয় ইপিএল-এ জয় পেয়েছে চেলসি ও ম্যানসিটি বেড়িবাঁধ ভেঙে বিভিন্ন জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাহত ফেরি চলাচল টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা টানা বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন বন্দরের কার্যক্রমে স্থবিরতা মালয়েশিয়ায় ভূমিধসে তিন বাংলাদেশীসহ ৪ শ্রমিকের মৃত্যু কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে দিলো স্পেন

গোলাপ গ্রামে স্বাগতম

প্রকাশিত: ১১:৫৪ , ১২ অক্টোবর ২০১৭ আপডেট: ১১:৫৪ , ১২ অক্টোবর ২০১৭

ডেস্ক প্রতিবেদন: শহরের যান্ত্রিকতা আর কর্মব্যস্ততায় একেবারেই হাঁপিয়ে গিয়েছে জীবন। প্রয়োজন একটু শান্তিতে নিঃশ্বাস নেয়ার। প্রয়োজন গ্রামের বাতাসের, ফুলের সৌরভের। কিন্তু এতো ব্যস্ততার মাঝে দূরে কোথাও যাওয়ার সময় হয়ে উঠছে না। তাদের জন্য ঢাকার খুব কাছেই রয়েছে সাদুল্লাহপুরের গোলাপ গ্রাম।

গ্রামের বুক চিরে চলে গেছে আঁকাবাঁকা সরু পথ। দুপাশে বিস্তীর্ণ গোলাপের বাগান। যতদূর চোখ যায়, শুধু সারি সারি লাল গোলাপ। ফুটে থাকা গোলাপের সুগন্ধ আর চোখ জুড়ানো দৃশ্য নিয়ে সেজে আছে পুরো গ্রাম। লাল টকটকে গোলাপ মাথা নাড়িয়ে দর্শনার্থীদের স্বাগত জানায় এ গ্রামে।

তুরাগ নদীর তীরে সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নে এই গোলাপ গ্রাম সাদুল্লাহপুরের অবস্থান।  গ্রামের প্রায় ৮০ ভাগ লোকের পেশা গোলাপ চাষ। সারা বছর ফুলের চাষ হয় এখানে। লাল গোলাপের পাশাপাশি সাদা গোলাপ, জারবেরা ও গ্ল্যাডিওলাস ফুলেরও চাষ হয় এখানে।

কীভাবে যাবেন?

 ট্রলারে করে সাদুল্লাহপুর যেতে চাইলে গাবতলী মাজার রোড কিংবা মিরপুর-১ নম্বর গোলচত্বর থেকে রিকশায় দিয়াবাড়ি বটতলা ঘাট যেতে হবে। ঘাট থেকে ৩০ মিনিট পরপর সাদুল্লাহপুরের উদ্দেশে ট্রলার ছাড়ে। জনপ্রতি ভাড়া ৩০ টাকা।  ট্রলার থেকে নেমে ৫০ গজ সামনে গেলে পাবেন বাজার। এ বাজার পার হলেই রাস্তার দুই পাশে সারি সারি গোলাপ বাগান। হেঁটে অথবা রিকশাযোগে গোলাপ গ্রাম ঘুরে দেখতে পারেন। গ্রুপ বেঁধে গেলে ট্রলার চুক্তি করেও নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে ৮০০-১০০০ টাকা পড়বে। ৩৫ জন একসঙ্গে ওঠা যায় ট্রলারে। মোটরসাইকেল অথবা প্রাইভেট কার নিয়ে যেতে চাইলে মিরপুর বেড়িবাঁধ ধরে বিরুলিয়া সেতু হয়ে সোজা গেলে আকরান বাজার। এ বাজার থেকে একটু সামনে এগুলেই দেখা পাবেন গোলাপ গ্রামের।

কী খাবেন এবং কোথায়

দুপুরের খাবার সঙ্গে নিয়ে যেতে পারেন। তবে এখানে হোটেলেও খাওয়ার সুব্যবস্থা আছে। সাদুল্লাহপুর ঘাটের বটতলার হাটে মিরচিনি, মুরালি, দই-মিষ্টি এবং আরো অনেক খাবার পাবেন। আছে অতুলনীয় গরুর দুধের চা ও দুধমালাই।

এই সম্পর্কিত আরো খবর

ঘুরে আসুন নুহাশ পল্লী

ডেস্ক প্রতিবেদন: ঢাকার অদূরে গাজীপুরেই রয়েছে প্রাকৃতিক নৈসর্গ নুহাশ পল্লী। পারিবারিক বিনোদন কেন্দ্র ও শুটিংস্পট হিসেবে এটি বেশ পরিচিত।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is