ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ৮ কার্তিক ১৪২৪, ২ সফর ১৪৩৯
শিরোনামঃ
রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধান চায় বাংলাদেশ ও ভারত কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের তাগিদ বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া ১৪ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা শিশু অপুষ্টিতে মারা যেতে পারে নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি হোয়াইট ওয়াশ হলো বাংলাদেশ গত কদিনে বাংলাদেশে ঢুকেছে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা ১১ সাক্ষীকে জেরার জন্য খালেদার আবেদন হাই কোর্টে নিষ্পত্তি নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের কাজে নিরপেক্ষতা থাকতে হবে: সিইসি নিরাপদ সড়ক গড়ে তোলার লক্ষ্যে সবাই আইন মেনে চলুন আবহাওয়ার উন্নতি: দেশের বিভিন্ন রুটে নৌ চলাচল স্বাভাবিক নির্বাচন নিয়ে সরকার নীল নকশা করছে: রিজভী স্পেনের কেন্দ্রীয় শাসন না মানার ঘোষণা কাতালান প্রেসিডেন্টের উন্নত বাংলাদেশ গড়তে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় রাখুন: জয় ইপিএল-এ জয় পেয়েছে চেলসি ও ম্যানসিটি বেড়িবাঁধ ভেঙে বিভিন্ন জেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ব্যাহত ফেরি চলাচল টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা টানা বৃষ্টিতে দেশের বিভিন্ন বন্দরের কার্যক্রমে স্থবিরতা মালয়েশিয়ায় ভূমিধসে তিন বাংলাদেশীসহ ৪ শ্রমিকের মৃত্যু কাতালোনিয়ার স্বায়ত্তশাসন বাতিল করে দিলো স্পেন

কোচিং সেন্টার ও গাইড বই নিষিদ্ধ আইনের বাস্তবায়ন নেই

প্রকাশিত: ১০:৫৯ , ১৩ অক্টোবর ২০১৭ আপডেট: ১১:৫৭ , ১৩ অক্টোবর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য কোচিং সেন্টার আইন করে নিষিদ্ধ করা আছে কয়েক-দশক ধরে। কিন্তু এই আইনের কোন বাস্তবায়ন নেই। নির্বিঘ্নে যার যেমন ইচ্ছা পরিচালনা করছে  কোচিং সেন্টার এবং প্রকাশ করছে গাইড বই।

এমন সারি সারি সাইনবোর্ড, বিজ্ঞাপন রাজধানীর প্রায় সর্বত্রই খুঁজলে পাওয়া যায়, যেখানে প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের কোচিং দেয়া হয়। অথচ প্রাথমিক ও নিু মাধ্যমিক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের কোচিং আইনত নিষিদ্ধ। এসব কোচিং সেন্টারে ক্যামেরা ঢুকতে চাইলে অনুমতি মেলে না, উদ্যোক্তাদের কেউ কথাও বলতে চান না। শুধু বাইরের এই ছবিগুলো বলে দেয়, এমন অবৈধ ব্যবসা বিনা বাধায় যুগের পর যুগ চলছে।

একই দুর্দশার চিত্র গাইড বইয়ের ক্ষেত্রেও। প্রথম থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য যে কোন ধরনের গাইড বইয়ের ছাপা, প্রকাশনা, বাজারজাতকরণ, বিক্রি এমনকি প্রদর্শন পর্যন্ত আইন করে নিষেধ করা আছে। কিন্তু রাজধানীর বহু পাঠ্যবইয়ের দোকানে অবাধেই বিক্রি হচ্ছে এ ধরনের গাইড বই দশকের পর দশক ধরে।

অবৈধ বাণিজ্যিক কোচিংয়ের বাইরে স্কুলগুলোতে শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য যে কোচিং হয় সেখানে কোনো কোনো স্কুলে অভিভাবকদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জবরদস্তিমূলক আচরণেরও অভিযোগ পাওয়া যায়, যা প্রচলিত বিধান বহির্ভূত বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

স্কুলের শিক্ষকদের কেউ কেউ অস্বীকার করলেও বিক্রেতা এবং ছাত্র-ছাত্রীদের কেউ কেউ তাদের পর্যবেক্ষণ থেকে জানালেন, অনেক শিক্ষকও এ ধরনের গাইড বইয়ের আশ্রয় নেন।

শিক্ষাখাত সংশ্লিষ্ট সরকারি বেসরকারি নানা পর্যায়ে কথা বলে যে ধারণা পাওয়া যায় তা হলো প্রাথমিক ও নিম্ন মাধ্যমিক স্তরের এ ধরনের গাইড বই ও কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ করার কোনো উদ্যোগ যেমন নেই, তেমনি এটি একটি অসম্ভব কাজের পর্যায়ে চলে গেছে।

এই সম্পর্কিত আরো খবর

ইন্টারনেট এখন বিলাস সামগ্রী নয় অতি প্রয়োজনীয় সেবাখাত

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগের তিন ব্যবসার সবগুলোর চাইতেই ইন্টারনেট সংযোগ অতি দ্রুত বেড়ে ওঠা নবীনতম বাণিজ্য। শুধু ঘরে ঘরে বা অফিস, আদালত, ব্যবসা...

ঘরে ঘরে বিস্তৃত ক্যাবল ব্যবসা আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কবলে

নিজস্ব প্রতিবেদক: ফাস্ট ফুড ও ঝুটের চাইতে তুলানামূলক ভাবে নবীন ক্যাবল টিভি নেটওয়ার্কের ব্যবসা। কিন্তু ধনী-দরিদ্র, শহর-গ্রাম নির্বিশেষে এই...

জিম্মি রাজনৈতিক ও স্থানীয় পেশিশক্তির কাছে ঝুট বাণিজ্য

নিজস্ব প্রতিবেদক: এমন আরেকটি জমজমাট ব্যবসা- ঝুট। যা থেকে তৈরি হচ্ছে তুলা, সুতা এমনকি জামা কাপড়ও। কাঁচামাল হিসেবে ভারত, চীন ও ভিয়েতনামেও...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is