ঢাকা, রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২৯ সফর ১৪৩৯
শিরোনামঃ
ইতিহাস মুছে ফেলা যায় না, বিশ্ব স্বীকৃতিই তার প্রমাণ : প্রধানমন্ত্রী প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা শুরু, অংশ নিচ্ছে ৩১ লাখ শিক্ষার্থী সাভার-আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলে গ্যাস সংকট, উৎপাদন ব্যাহত মাগুরায় শিশুদের মধ্যে ঠাণ্ডাজনিত রোগের প্রকোপ রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করবেন ইইউসহ তিন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় বাংলাদেশ ও চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে কক্সবাজারে মার্কিন প্রতিনিধিদল রোহিঙ্গা শিশুদের ১৭ হাজার মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে  গাইবান্ধায় কচুর চাষে স্বাবলম্বী দুই হাজার কৃষক বান্দরবানের সড়কগুলো চলাচলের অনুপযোগি মাগুরায় শিশুদের মধ্যে ঠাণ্ডাজনিত রোগের প্রকোপ  সহায়ক সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিতে হবে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সবাইকে যোগ দেয়ার আহ্বান পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া রুটে ফেরি চলাচলে বিঘ্ন, যাত্রীদের দুর্ভোগ রোহিঙ্গা: জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে প্রস্তাব পাস  লক্ষ্মীপুরে ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু, চিকিৎসকসহ আটক ৪  চুয়াডাঙ্গায় মুক্তিযোদ্ধা মনোয়ার হত্যা মামলায় ২জনের ফাঁসি কার্যকর রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের তাগিদ বিভিন্ন দেশের খ্যাতনামা লেখকদের নীতিমালা চূড়ান্ত হচ্ছে আগামী মাসেই প্রশাসনের সরাসরি হস্তক্ষেপের তাগিদ বাজার বিশ্লেষকদের

দ্রুত ফাস্ট ফুড ব্যবসার বিস্তার ঘটেছে দেশে

প্রকাশিত: ০৯:২৬ , ১৯ অক্টোবর ২০১৭ আপডেট: ০৩:২৪ , ১৯ অক্টোবর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: একসময় দেশের মানুষের ধারণার মধ্যেই ছিল না এমন অন্তত চারটি ব্যবসা বিগত তিন দশকে শুরু হয়ে চোখের পলকে বিশাল রূপ নিয়েছে। এখন হাজার হাজার কোটি টাকার নিয়মিত বাণিজ্যের খাত এগুলো। যা শুধু ব্যবসা-বাণিজ্যের উদ্যোক্তাদের কাছে জনপ্রিয় নয়, এর ভোক্তা বা ব্যবহারকারীদের কাছেও গুরুত্বপূর্ণ ও জনপ্রিয়। এর একটি ফাস্ট ফুড। পশ্চিমা সংস্কৃতির এই খাবারের বাজার শুধু দেশে বি¯তৃতই হয়নি, ঘরে ঘরে ফাস্ট ফুড তৈরির সংস্কৃতি গড়ে উঠেছে।

আশির দশকে একটু একটু করে যাত্রা শুরুর গল্প ছড়াতে থাকে ফাস্ট ফুডের। হতে থাকে জনপ্রিয়। প্রথমে দেশীয় নামে, তার পর বিদেশ চেন শপের নামেও গড়ে ওঠে ফাস্ট ফুডের দোকান।  গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে কেএফসি, পিজা হাটের মত ব্র্যান্ডও আসে দেশে। ফাস্ট ফুড এখন শহর গুলোর অলিতে গলিতে, এমনকি ছড়াচ্ছে গ্রামীণ জনপদেও।

শিশু-কিশোরদের থেকে শুরু করে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পড়–য়া শিক্ষার্থীদের ফাস্ট ফুডে আগ্রহ বেশি - এমন ধারণা পাল্টে গেছে। এখন বরং ফাস্ট ফুডে কার আগ্রহ নেই তা খোঁজে পাওয়া কঠিন। মুরগি, গরু আর সবজি দিয়ে বানানো বাহারি নামের রকমারি ফাস্ট ফুডে ঠাসা বাজার।

ফাস্ট ফুড ব্যবসার উদ্যোক্তাদের বেশির ভাগ তরুণ প্রজন্মের। এখাতের কর্মীরাও তরুণ, কাজ করে ছাত্র-ছাত্রীরাও। স্থানীয় প্রশাসন থেকে লাইসেন্স নিতে হয় ফাস্ট ফুডের দোকান করতে হলে। দেশে কত দোকান মোট তার হিসেব নেই। আছে সুবিধা-অসুবিধার নানা জায়গা। নিরাপদ খাদ্য অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ এক্ষেত্রে দুর্বল।

সবসময় দোকানে গিয়ে খাওয়ার ধকল এড়াতে বাসায় ফাস্ট ফুড তৈরির এক সংস্কৃতি যুক্ত হয়েছ্ েবাসায় সহজে তৈরির জন্য বাজারে সহজে প্রস্তুতকৃত কাচামালের বাণিজ্যও জনপ্রিয় হয়েছে।  

অতি দ্রুত বিস্তার ঘটা ফাস্ট ফুড ব্যবসায় নীতিমালা প্রণয়ন ও মনিটরিং জোরদারের তাগিদ রয়েছে। যা হলে মান নিয়ন্ত্রণসহ নানা ইতিবাচক উন্নয়ন ঘটবে বলে সংশ্লিষ্টদের ধারণা।

এই সম্পর্কিত আরো খবর

নানা প্রতিবন্ধকতায় সব ইপিজেড কাঙ্খিত ভূমিকা রাখতে পারছে না

নিজস্ব প্রতিবেদক : পরিসংখ্যান ইপিজেডের সাফল্যের গল্প বললেও এ ধরনের সব অঞ্চল সেই কৃতিত্ব অর্জন করতে পারেনি। ৮টি ইপিজেডের মধ্যে শিল্পের...

শ্রমিক অসন্তোষ মুক্ত ইপিজেড, শিল্প বিকাশে সম্ভাবনাময় এলাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: শ্রমিক অসন্তোষ দেশের শিল্প বিকাশের ক্ষেত্রে বড় চ্যলেঞ্জ। তবে ইপিজেডগুলো এই সংকট থেকে মুক্ত বললেই চলে। দিন দিন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is