ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৭, ৯ কার্তিক ১৪২৪, ৩ সফর ১৪৩৯

বিশ্ব পানি দিবস আজ

প্রকাশিত: ০৮:৫৫ , ২৮ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ০৮:৫৫ , ২৮ মার্চ ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিশ্বজুড়ে বিশুদ্ধ পানির জন্য সংকটের বাস্তবতাকে সঙ্গী করেই পালিত হচ্ছে বিশ্ব পানি দিবস। সারাবিশ্বে ৬০ কোটিরও বেশী এবং বাংলাদেশে প্রায় দুই কোটি মানুষ সুপেয় পানির সংকটে ভুগছেন। 

ইউনিসেফের তথ্য অনুযায়ী সুপেয় পানির সুযোগবঞ্চিত জনসংখ্যার দিক দিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বে সপ্তম। ঢাকায় পানির চাহিদা পূরণ করতে গিয়ে রাজধানীবাসীর অনেককেই নিয়মিত পান করতে হচ্ছে দূষিত পানি।

 বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সুয়ারেজ সিস্টেম শোধন এবং রাজধানীর নালা-খাল উদ্ধার ও তা বর্জ্যমুক্ত করা না গেলে ঝুঁকিমুক্ত পানি নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। 

বিশ্বে দিনদিন বিশুদ্ধ পানির অভাব প্রকট রূপ নিচ্ছে। জাতিসংঘের দু’টি সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ি বিশ্বের প্রায় ৬৬ কোটিরও বেশি মানুষ সুপেয় পানির সংকটে ভুগছেন। আর বাংলাদেশে এই সংখ্যা দুই কোটিরও বেশি।

বিশুদ্ধ পানির জন্য এদেশে সবচেয়ে বেশী ঝুঁকিতে রয়েছে রাজধানী ঢাকা। প্রতিদিন ঢাকা শহরে পানির চাহিদা ২২০ থেকে ২৩০ কোটি লিটার। যার প্রায় পুরোটাই সরবরাহ করছে ওয়াসা। কিন্তু সেই পানির মান ও বিশুদ্ধতা নিয়ে রয়েছে নানা প্রশ্ন।
 কোথাও কোথাও ফুটিয়েও খাওয়ার উপযোগী হচ্ছে না ওয়াসার পানি। বছরের পর বছর এমন দুষিত পানি দিয়েই চাহিদা পূরণ করছেন রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার মানুষ।

পানির চাহিদা মেটাতে গিয়ে ভূগর্ভস্থ উৎস ছাড়া নদীর উপরও নির্ভর করতে হচ্ছে ওয়াসাকে। রাজধানীর আশপাশের নদী থেকে পানি সংগ্রহ করে শোধন করার পর পৌঁছে দেয়া হয় নগরবাসীর কাছে। কিন্তু এসব নদীর পানি এতোটাই দূষিত যে শোধন করেও বিশুদ্ধ করা যাচ্ছে না।

ওয়াটার ট্রিটমেন্ট করার পরও ঝুঁকিমুক্ত নয় এসব পানি। তাই মূল সুয়ারেজ সিস্টেম শোধন করা না গেলে ঝুঁকিমুক্ত কিংবা বিশুদ্ধ পানি পাওয়া সম্ভব নয় বলে মনে করছেন তারা। 
বিশুদ্ধ পানির সংকট মোকাবেলায় শহরের নালা-খাল উদ্ধার ও তা বর্জ্যমুক্ত রাখা জরুরী বলেই জানালেন বিশেষজ্ঞরা। তাগিদ দিলেন নগরবাসীর সচেতনতা ও সরকারের সদিচ্ছার। 

এই সম্পর্কিত আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is