ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪, ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
চির নিদ্রায় শায়িত চট্টল বীর মহিউদ্দিন চৌধুরী মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া মানুষের অন্তরে মহিউদ্দিন চৌধুরী জননেতা হিসেবেই বেঁচে থাকবেন স্বপ্নের ফেরিওয়ালা মহিউদ্দিন চৌধুরী মহান বিজয় দিবস উদযাপনে দেশজুড়ে নানা আয়োজন  সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বারবার হোচট খেয়েছে বাংলাদেশ নাটোরে চালু হয়নি কৃষকদের ৫টি শস্য মার্কেট কুমিল্লায় বাস চাপায় নিহত দুই রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শেষ মুহূর্তে জমজমাট রাজধানীর বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ টি-টেন ক্রিকেট লিগে কেরেলা কিংসের জয় হাসপাতালে জনবল-শয্যার অভাবে চিকিৎসা বঞ্চিত ঝিনাদহের নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশুরা পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে সৌদি বাদশাহর স্বীকৃতি নির্বাচনের আগে সংস্কারের জন্য ৩১ প্রস্তাবনা চূড়ান্ত  নেপালে নির্বাচনে বামপন্থী জোটের জয় চট্টগ্রামে রেডকিন সমাধিতে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর শ্রদ্ধা ত্রিদেশীয় ও বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের সময়সূচি ঘোষণা রংপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীকে সরিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে টাঙ্গাইলে ৩০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট  থার্টিফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিদেশি বণিকদের আনা বিস্কুট এখন দেশের অন্যতম ক্ষুদ্রশিল্প

প্রকাশিত: ১০:০৬ , ১২ নভেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০৩:০৪ , ১২ নভেম্বর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিস্কুট নামের খাদ্য পণ্যটির মধ্যে যেন যাদু আছে। একজন অবুঝ শিশু হয়তো চিৎকার করে কাঁদছে, কোন ভাবেই শান্ত করা যাচ্ছেনা তাকে; হয়তো দেখা যাবে একটি বিস্কুট সামনে ধরতেই তা দেখে বা হাতে নিয়ে শান্ত হয়ে গেল।

একসময় এই অঞ্চলে শুকনো খাবারের মধ্যে চিড়া-মুড়ি-গুড়ের কদর ও ব্যবহার চির ব্যাপক। সেই যায়গাটা যেন দখর করে নেয় বিস্কুট। মধ্যযুগে রোমানদের ধারণা থেকে আদি বিস্কুটের আবির্ভাব। ১৯ শতকে শিল্প বিপ্লবের মাধ্যমে আধুনিক বিস্কুটের ধারণা আসে, বিবর্তন ঘটতে থাকে এর মান ও রুপে।

বহুশত বছর আগে বাণিজ্যের জন্য ভারত উপমহাদেশে আসার সময় দীর্ঘ সমুদ্রযাত্রার সহজ খাবার হিসেবে পর্তুগীজরা বিস্কুট নিয়ে আসতো। সেই থেকে এই অঞ্চলে বিস্কুটের সাথে পরিচয় ঘটে, এখানে তৈরি করা শেখে। তখন চিনির প্রচলন কম থাকায় গুড়ের বিস্কুট তৈরী হতো।

ব্যক্তিগত ভাবে বাড়িঘরে হাতে বিস্কুট তৈরির ধারবাহিকতায় একসময় ব্যবসার দারণা থেকে ছোট ছোট বেকারী তৈরি হতে শুরু করে। প্রথমদিকে বেকারির বিস্কুট বিক্রি হতো ফেরি করে। মূলত ১৯৩০ সালের পর দোকানে বিস্কুট বিক্রির প্রচলন শুরু হয়। পরবর্তীতে আধুনিকায়ন ঘটে, যান্ত্রিক প্রযুক্তি যুক্ত হয় বিস্কুট তৈরির প্রক্্িরয়ায়। পরিবর্তন ঘটে বিস্কুট তৈরির বিভিন্ন অনুষঙ্গেরও।

অতিথি আপ্যায়ন থেকে শুরু করে যে কোন দুর্যোগে মানুষকে দ্রুত সহজ খাদ্য সাহায্যের তালিকায় অগ্রাধিকার পায় বিস্কুট। ব্যবহারের ব্যাপকতা এর চাহিদা কেবলই বাড়িয়েছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

দেশে বিস্কুটের বাজার পাঁচ হাজার কোটি টাকার, বাড়ছে ১৫ শতাংশ হারে

নিজস্ব প্রতিবেদক: পাঁচ বা দশ পয়সা দিলেই ছোট ছোট গোটা পাঁচেক গোল বিস্কুট মিলতো দেশে মাত্র তিন দশক আগেও। রাস্তার ধারে চায়ের ছোট দোকানেও ২...

দেশে বর্তমানে প্রায় ৫ লাখ টন বিস্কুট উৎপাদন হচ্ছে, আগ্রহী হচ্ছেন উদ্যোক্তারা

নিজস্ব প্রতিবেদক: খাদ্যাভ্যাস ও রুচির পরিবর্তন ও চাহিদা বৃদ্ধি গত এক-দেড় দশকে দেশে বিস্কুট ও বেকারি পণ্যের উৎপাদন শুধু বাড়ায়নি বৈচিত্রও...

বিদেশি বণিকদের আনা বিস্কুট এখন দেশের অন্যতম ক্ষুদ্রশিল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিস্কুট নামের খাদ্য পণ্যটির মধ্যে যেন যাদু আছে। একজন অবুঝ শিশু হয়তো চিৎকার করে কাঁদছে, কোন ভাবেই শান্ত করা যাচ্ছেনা তাকে;...

আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার

ক্যান্ডি ও চকলেট তৈরি করছে দেশে আটটি বড় কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশের চকলেট শিল্পে মূলত ক্যান্ডি ও লজেন্স বেশি তৈরি হয়। চিনি, গ্লুকোজ ও গুড়া দুধ দিয়ে সেগুলো প্রস্তুত করা হয়। চকলেট তৈরি...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is