ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে বিশ্ব বাজারেও যাচ্ছে দেশীয় ইলেকট্রনিক্স পণ্য

প্রকাশিত: ১১:২০ , ১৫ নভেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০১:১৩ , ১৫ নভেম্বর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্থানীয় বাজারের চাহিদা মিটিয়ে আন্তর্জাতিক বাজারেও যাচ্ছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশ’ লেখা দেশীয় বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স পণ্য। উচ্চ গুণগতমানের পণ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক বাজারের ক্রেতাদের আস্থা অর্জন করছে বলে জানান উদ্যোক্তারা। এতে দেশের জন্য নতুন  রপ্তানি খাত তৈরির সম্ভাবনা জাগছে। যা ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের আমদানি কমাবে, সাশ্রয় করবে দেশীয় মুদ্রা। আবার অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ করবে দেশের অর্থনীতিকে, এমনটাই মনে করেন এ খাত সংশ্লিষ্টরা।

বিশ্বব্যাপী তথ্য প্রযুক্তির বিকাশের যুগে বাণিজ্যের সিংহভাগ বাজার দখল করে নিয়েছে প্রযুক্তি নির্ভল পণ্য। এক্ষেত্রে এক সময়ের পুরোপুরি আমদানি নির্ভর দেশীয় বাজার এখন অনেকটাই পাল্টে গেছে দেশীয় পণ্যের উৎপাদনে।

ইলেকট্রনিক্স পণ্যের বাজার ঘুরে দেখা যায় টেলিভিশন, মাইক্রো ওভেন, ফ্রিজ, টর্চলাইট, ফ্যানসহ নানা দেশীয় পণ্যে সয়লাব বাজার। ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকায় ক্রেতাদের উৎসাহও অনেক।

দেশীয় পণ্যের মধ্যে প্রতিদিন ঘরের নানা প্রয়োজন মেটানোর সামর্থ খুঁজবার পাশাপাশি যন্ত্রের রূপ-সৌন্দর্যও গুরুত্বের সঙ্গে খোঁজে ক্রেতারা। দেশীয় পণ্যের বাহারি রং ও ডিজাইন তাই আকর্ষন করছে ক্রেতাদের। এছাড়া বিক্রয় পরবর্তী নানা সেবা, স্থায়িত্ব ও বিদ্যুৎ  সাশ্রয়ের সুবিধা থাকার কারনে নিম্ন ও সীমিত আয়ের মানুষের পাশাপাশি স্বচ্ছল শ্রেনীর  ক্রেতারাও ব্যবহার করছেন এসব পণ্য।

দেশের পর এখন বিদেশি বাজারের দোকানে বাংলাদেশের ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য। এশিয়া, আফ্রিকা ও মধ্য প্রাচ্যের ২২টি দেশে রপ্তানি হচ্ছে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ লেখা ওয়ালটনের ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল বিভিন্ন পণ্য।

রপ্তানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্য মতে, ২০১২-১৩ অর্থবছরে এ ধরনের পণ্য রপ্তানি হয় প্রায়  ৫’শ কোটি টাকার। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে যা বেড়ে দাঁড়ায় প্রায় ৬ শ' কোটি টাকায়। সস্তা শ্রম মূল্য ও গুনগতমান নিশ্চিতের কারণে ২০১৫ সালের তুলনায় ২০১৬ সালে ৯১.৯৫ শতাংশ বেশি পণ্য রপ্তানি সম্ভব হয়েছে বলে জানানো হয়। তাই দেশীয় শিল্পের সুরক্ষায় আমদানিকে নিরুৎসাহিত করে রপ্তানি বাড়ানোর তাগিদ দেন অর্থনীতিবিদরা।

 

এই সম্পর্কিত আরো খবর

নানা প্রতিবন্ধকতায় সব ইপিজেড কাঙ্খিত ভূমিকা রাখতে পারছে না

নিজস্ব প্রতিবেদক : পরিসংখ্যান ইপিজেডের সাফল্যের গল্প বললেও এ ধরনের সব অঞ্চল সেই কৃতিত্ব অর্জন করতে পারেনি। ৮টি ইপিজেডের মধ্যে শিল্পের...

শ্রমিক অসন্তোষ মুক্ত ইপিজেড, শিল্প বিকাশে সম্ভাবনাময় এলাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: শ্রমিক অসন্তোষ দেশের শিল্প বিকাশের ক্ষেত্রে বড় চ্যলেঞ্জ। তবে ইপিজেডগুলো এই সংকট থেকে মুক্ত বললেই চলে। দিন দিন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is