ঢাকা, বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

দেশীয় ইলেকট্রনিক্স পণ্য উৎপাদনকারীদের লক্ষ্য ইউরোপ ও আমেরিকার বাজারে প্রবেশ করা

প্রকাশিত: ১১:৪৬ , ১৫ নভেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০১:১৪ , ১৫ নভেম্বর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক : এশিয়া, আফ্রিকার পর ইউরোপ ও আমেরিকার বাজারে প্রবেশ করা, দেশীয় ইলেকট্রনিক্স পণ্য উৎপাদনকারীদের লক্ষ্য। সেটা পারলে, ২০২১ সালের মধ্যে ৬০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয়ের রূপকল্প বাস্তবায়নে ইলেকট্রনিক্স পণ্য উৎপাদন খাত উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদ এই খাত পর্যবেক্ষকদের।

স্থানীয় বাজারে ফ্রিজ, এল.ই.ডি টেলিভিশন ও এয়ার কন্ডিশনার বিক্রিতে বাজার নেতার ভূকিকায় এখন দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলো। ঘরের প্রয়োজনীয় সকল পণ্য ক্রেতাদের দ্বারপ্রান্তে— পৌঁছে দিতে শহর থেকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে নিজস্ব শো-রুম প্রতিষ্ঠাসহ নিয়োগ দেয়া হয়েছে কয়েক হাজার ডিলার। এতে সারা দেশে বিস্তৃত নেটওয়ার্ক, ক্রেতার ঘরের কাছে বিক্রয়োত্তর সেবারও নিশ্চয়তা দিতে পারছে। ফলে কর্মসংস্থানের পাশাপাশি ক্রেতা-বিক্রেতার আস্থার জায়গা তৈরিতে পুরো আয়োজন সহায়ক হচ্ছে, যা আমদানিকৃত পণ্যের ক্ষেত্রে ঘটছে না।

ইলেকট্রনিক্স পণ্যের মান নিশ্চিতে কোন কোন উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান অর্জন করেছেন ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন অব স্টান্ডার্ডাইজেশন বা আই.এস.ও সনদ। ফলে কারখানাতে স্থাপিত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে উৎপাদিত পণ্যের মান নিশ্চিত করে সনদ প্রদান করে বাংলাদেশ এ্যাক্রেডিটেশন বোর্ড -বি.এ.বি।  

সংশ্লিষ্টদের মতে, এখন আর মধ্যস্বত্বের বাণিজ্য নয়, উৎপাদনে ব্যাপকভাবে এগিয়ে যাওয়ার সময় এসেছে বাংলাদেশের সামনে। এতে দেশের হাইটেক শিল্প বিশ্ব দরবারে আরো এগিয়ে যাবে বলে তারা মনে করছেন।

দেশীয় বাজার পুরোপুরি দখলের পাশাপাশি ইউরোপ, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া ও শ্রীলংকার বাজারকে লক্ষ্য করে নতুন পণ্য তৈরি করা হচ্ছে বলে জানান কর্মকর্তারা।

বিনিয়োগের দীর্ঘমেয়াদী সুরক্ষা দিতে সরকারের সহযোগীতা অব্যাহত রাখার দাবি জানান দেশীয় পণ্যের উদ্যোক্তারা।  

 

এই সম্পর্কিত আরো খবর

নানা প্রতিবন্ধকতায় সব ইপিজেড কাঙ্খিত ভূমিকা রাখতে পারছে না

নিজস্ব প্রতিবেদক : পরিসংখ্যান ইপিজেডের সাফল্যের গল্প বললেও এ ধরনের সব অঞ্চল সেই কৃতিত্ব অর্জন করতে পারেনি। ৮টি ইপিজেডের মধ্যে শিল্পের...

শ্রমিক অসন্তোষ মুক্ত ইপিজেড, শিল্প বিকাশে সম্ভাবনাময় এলাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: শ্রমিক অসন্তোষ দেশের শিল্প বিকাশের ক্ষেত্রে বড় চ্যলেঞ্জ। তবে ইপিজেডগুলো এই সংকট থেকে মুক্ত বললেই চলে। দিন দিন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is