ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ৫ পৌষ ১৪২৫

2018-12-19

, ১০ রবিউস সানি ১৪৪০

মানিকগঞ্জে পদ্মায় অসময়ের ভাঙ্গন

নদীগর্ভে বিলীন বসত বাড়ি-ফসলি জমি, দিশেহারা হাজারো মানুষ

প্রকাশিত: ০৯:০১ , ২২ নভেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০৯:০১ , ২২ নভেম্বর ২০১৭

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি : অসময়ে পদ্মার ভাঙ্গনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার কয়েক গ্রামের হাজারো মানুষ। ভয়াবহ ভাঙ্গনে বিলীন বসত বাড়ি ও ফসলি জমিসহ বহু স্থাপনা। ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করছেন, খোলা আকাশের নিচে তারা মানবেতর দিন কাটালেও, কেউ তাদের খোঁজ নিচ্ছে না।

চোখের সামনে, পদ্মায় হারিয়ে যাচ্ছে বসতভিটা। যার প্রতিটি মাটি কণার সাথে মিশে ছিলো, একটি পরিবারের সুখ-দু:খের নানা গল্প। তাইতো কোন সান্তনাতেই থামছে না ডালিমা বেগমের কান্না।

মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে পদ্মা এমন আগ্রাসী রুপ নিয়েছে গেলো কয়েকদিন ধরে। অসময়ের এই নদী ভাঙ্গনে উপজেলার রামকৃষ্ণপুর, গোপিনাথপুর ও কাঞ্চনপুর ইউনিয়নে ভিটে মাটি হারিয়েছে কয়েকশ’ পরিবার।

ক্ষতিগ্রস্ত অনেক পরিবার খোলা আকাশের নিচে মানবেতর দিন কাটাচ্ছে। স্থানীয় কোন জনপ্রতিনিধি কিংবা সরকার তাদের সহায়তায় এগিয়ে আসছে না বলে অভিযোগ করছেন ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা।  

তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলছেন, ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ও পুনর্বাসনের জন্য তালিকা তৈরি করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

পদ্মার ভাঙ্গন রোধে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার পাশপাশি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়াতে সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছে ভুক্তভোগী পরিবারগুলো।

 

এই বিভাগের আরো খবর

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের গাফিলতিতে যাত্রী ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক : বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের গাফিলতির কারণে ভোগান্তিতে ব্যাংককের ফিরতি ফ্লাইটের যাত্রীরা। রোববার ব্যাংকক থেকে ঢাকায়...

তাবলীগের দু’পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া; বিমানবন্দর সড়কে যানজট

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। টঙ্গীসহ এয়ারর্পোট এলাকা জুড়ে...

বি.বাড়িয়ায় মনগড়া বিদ্যুৎ বিলে ভোগান্তিতে গ্রাহকরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিদ্যুৎ বিভাগের মনগড়া বিলের কারণে ভোগান্তিতে পড়েছেন গ্রাহকরা। তারা বলছেন, মিটার রিডিং না করেই...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is