ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪, ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
চির নিদ্রায় শায়িত চট্টল বীর মহিউদ্দিন চৌধুরী মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া মানুষের অন্তরে মহিউদ্দিন চৌধুরী জননেতা হিসেবেই বেঁচে থাকবেন স্বপ্নের ফেরিওয়ালা মহিউদ্দিন চৌধুরী মহান বিজয় দিবস উদযাপনে দেশজুড়ে নানা আয়োজন  সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বারবার হোচট খেয়েছে বাংলাদেশ নাটোরে চালু হয়নি কৃষকদের ৫টি শস্য মার্কেট কুমিল্লায় বাস চাপায় নিহত দুই রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শেষ মুহূর্তে জমজমাট রাজধানীর বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ টি-টেন ক্রিকেট লিগে কেরেলা কিংসের জয় হাসপাতালে জনবল-শয্যার অভাবে চিকিৎসা বঞ্চিত ঝিনাদহের নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশুরা পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে সৌদি বাদশাহর স্বীকৃতি নির্বাচনের আগে সংস্কারের জন্য ৩১ প্রস্তাবনা চূড়ান্ত  নেপালে নির্বাচনে বামপন্থী জোটের জয় চট্টগ্রামে রেডকিন সমাধিতে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর শ্রদ্ধা ত্রিদেশীয় ও বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের সময়সূচি ঘোষণা রংপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীকে সরিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে টাঙ্গাইলে ৩০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট  থার্টিফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সানি-নাসরিনের নতুন করে সংসার শুরু

প্রকাশিত: ০৮:৫৯ , ০১ ডিসেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০৮:৫৯ , ০১ ডিসেম্বর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: সব ভুলের অবসান ঘটিয়ে এবার সংসার করছেন ক্রিকেটার আরাফাত সানি ও নাসরিন সুলতানা। সানির বিরুদ্ধে দায়ের করা তিনটি মামলার মধ্যে সচল রয়েছে একটি । বাকি দুই মামলার মধ্যে একটি প্রত্যাহার করেছেন নাসরিন এবং অন্য আরেক মামলা থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন সানি ও তার মা নার্গিস আক্তার। সচল মামলাটিও পরবর্তী ধার্য তারিখে নিষ্পত্তি হবে বলে আশা করছেন নাসরিনের আইনজীবী।

ভালোবেসে বিয়ে করেন আরাফাত সানি ও নাসরিন সুলতানা। বিয়ের পর তাদের সংসার চলছিল ভালই। কিন্তু চলতি বছরের শুরুতে দুই জনের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি হয়। নাসরিন তার স্বামী সানির বিরুদ্ধে পরপর তিনটি মামলা করেন। মামলার পর সানিকে জেল খাটতেও হয় ৫৩ দিন।

নাসরিনের আইনজীবী দেলোয়ার জাহান রুমি বলেন, “ক্রিকেটার সানি ও নাসরিন সুলতানার মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির অবসান হওয়ায় তারা সংসার করবেন বলে সমঝোতায় পৌঁছেছেন।”

তিনি আরও বলেন, “চলতি বছরের শুরুতে নাসরিন সুলতানা ক্রিকেটার সানির বিরুদ্ধে তিনটি মামলা করেন। এর মধ্যে যৌতুকের মামলাটি নাসরিন প্রত্যাহার করেছেন। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলা থেকে সানি ও তার মাকে অব্যাহতি দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলাটি সাক্ষ্যগ্রহণের পর্যায়ে রয়েছে। পরবর্তী তারিখে এই মামলাটিও নিষ্পত্তি হবে- আশা করছি।”

নাসরিন জানায়, “সানি ও আমার মধ্যে যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল তার অবসান হয়েছে। আমরা এখন সংসার করছি। আমাদের মধ্যে আর কোনো সমস্যা নেই।” তাদের সংসার করার কথা আরাফাত সানির মা নার্গিস আক্তারও বলেছেন, ‘সানি তার বউ নাসরিনকে নিয়ে সংসার করছে।’

২০১৪ সালের ৪ ডিসেম্বর আরাফাত সানির সঙ্গে নাসরিন সুলতানার বিয়ে হয়। গত বছরের ১২ জুন আরাফাত সানি দুজনের কিছু ব্যক্তিগত ছবি এবং ওই তরুণীর কিছু আপত্তিকর ছবি ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জারে পাঠান। ছবি পাঠিয়ে আরাফাত সানি ওই তরুণীকে হুমকি দেন। ২৫ নভেম্বর ওই তরুণীকে ফের আপত্তিকর ছবি পাঠিয়ে হুমকি দেন আরাফাত সানি।

এ ঘটনায় ওই তরুণী বাদী হয়ে চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা করেন। এরপর ৬ এপ্রিল মহানগর হাকিম এস এম মাসুদ জামানের আদালতে সানিকে আসামি করে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ ইয়াহিয়া।

১২ আগস্ট বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক সাইফুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। ২১ নভেম্বর প্রথম সাক্ষ্যগ্রহণের দিন নাসরিন তার স্বামী সানির পক্ষে সাক্ষী দেন। আগামী ৬ ফেব্র“য়ারি মামলাটির পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে।

২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করার অভিযোগে চলতি বছরের ২৩ জানুয়ারি ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে আরাফাত সানির বিরুদ্ধে দ্বিতীয় মামলা করেন নাসরিন সুলতানা। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ৫ এপ্রিলের মধ্যে সানিকে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দেন। তাদের মধ্যে সমঝোতা হয়েছে বলে মামলাটি নাসরিন সুলতানা প্রত্যাহার করেন।

২০১৪ সালের ১২ ডিসেম্বরে ক্রিকেটার আরাফাত সানির সঙ্গে পাঁচ লাখ এক টাকা দেনমোহরে নাসরিন সুলতানার বিয়ে হয়। বিয়ের ছয় মাস পর ক্রিকেটার আরাফাত সানি নাসরিনের কাছে ২০ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেন। যৌতুকের টাকার জন্য সানি তার স্ত্রীকে মারধর করেন এবং গালিগালাজ করে ভাড়া বাসায় রেখে যান।

গত ১ ফেব্র“য়ারি ২০ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য মারধরের এমন অভিযোগে আরাফাত সানি ও তার মায়ের বিরুদ্ধে ঢাকার ৪ নং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে তৃতীয় মামলাটি করেন নাসরিন। এরপর আদালত মামলাটি মোহাম্মদপুর থানাকে এজাহার হিসেবে গণ্য করার নির্দেশ দেন। ৮ ফেব্র“য়ারি আরাফাত সানি ও তার মা নার্গিস আক্তারের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাটি এজাহার হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে মোহাম্মদপুর থানা।

১৭ আগস্ট সানি ও তার মায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের অব্যাহতির আবেদন করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক মো. ইয়াহিয়া। ৩০ নভেম্বর ঢাকার ৪ নং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের বিচারক তাবাসুম ইসলাম ক্রিকেটার সানি ও তার মাকে অব্যাহতি দিয়েছেন।

এই বিভাগের আরো খবর

বিরসার প্রেমে মগ্ন নুসরাত?

বিনোদন ডেস্ক: টালিউডের সুন্দরী নায়িকা প্রেম করছেন? এখনই নিশ্চিত করে ‘হ্যাঁ’ বলা না গেলেও বসন্তের প্রাক্কালে নুসরাতের টুইটারে যে...

মীনাকুমারীর বায়োপিকে সানি লিওন

বিনোদন ডেস্ক: মীনাকুমারীর জীবনীর ওপর ভিত্তি করে নির্মিত হবে চলচ্চিত্র। বলিউডের জীবনীভিত্তিক চলচ্চিত্র বা বায়োপিকের সারিতে নতুন নাম...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is