ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪, ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
চির নিদ্রায় শায়িত চট্টল বীর মহিউদ্দিন চৌধুরী মহিউদ্দিন চৌধুরীর মৃত্যুতে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া মানুষের অন্তরে মহিউদ্দিন চৌধুরী জননেতা হিসেবেই বেঁচে থাকবেন স্বপ্নের ফেরিওয়ালা মহিউদ্দিন চৌধুরী মহান বিজয় দিবস উদযাপনে দেশজুড়ে নানা আয়োজন  সুশাসন প্রতিষ্ঠায় বারবার হোচট খেয়েছে বাংলাদেশ নাটোরে চালু হয়নি কৃষকদের ৫টি শস্য মার্কেট কুমিল্লায় বাস চাপায় নিহত দুই রংপুর সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শেষ মুহূর্তে জমজমাট রাজধানীর বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে দ্বিগুণ টি-টেন ক্রিকেট লিগে কেরেলা কিংসের জয় হাসপাতালে জনবল-শয্যার অভাবে চিকিৎসা বঞ্চিত ঝিনাদহের নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশুরা পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনের রাজধানী হিসেবে সৌদি বাদশাহর স্বীকৃতি নির্বাচনের আগে সংস্কারের জন্য ৩১ প্রস্তাবনা চূড়ান্ত  নেপালে নির্বাচনে বামপন্থী জোটের জয় চট্টগ্রামে রেডকিন সমাধিতে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর শ্রদ্ধা ত্রিদেশীয় ও বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের সময়সূচি ঘোষণা রংপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীকে সরিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে টাঙ্গাইলে ৩০ কিলোমিটার এলাকায় যানজট  থার্টিফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে কোনো অনুষ্ঠান নয়: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বাধীনতার ৪৬ বছর

বিতর্কের উর্ধ্বে উঠতে পারেনি শিক্ষার মান ও পদ্ধতি

প্রকাশিত: ১০:২০ , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০১:১৪ , ১০ ডিসেম্বর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক : স্বাধীন বাংলাদেশে শিক্ষা মৌলিক অধিকারের মর্যদা পায়। যদিও এ নিয়ে বঞ্চনার বাস্তবতা দীর্ঘ। শিক্ষা ক্ষেত্রে নিরক্ষরতা দূরীকরণে পরিসংখ্যানগত উন্নতি ৪৬ বছরে অনেক। তবে বিজয়ের ৪৬ বছরেও শিক্ষার মান ও পদ্ধতি বিতর্কের উর্ধ্বে উঠতে পারেনি। একমূখী শিক্ষার যে মৌলিক চিন্তা স্বাধীনতার পরই ছিল, তা বাস্তবায়ন হয়নি আজও বরং শিক্ষা ব্যবস্থা অনেকাংশে নিয়ন্ত্রণহীন ও রাজনৈতিক, ব্যবসায়িক স্বেচ্ছাচারিতা ও নোংরা চর্চার শিকার। সুশৃঙ্খল ও সুবিন্যস্ত শিক্ষা ব্যবস্থা ও পরিবেশ বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তীর আগে চান দেশের বরেণ্য শিক্ষা গবেষক ও চিন্তাবিদরা।

একাত্তরে বিজয়ের পর বাহাত্তরে প্রনীত সংবিধানে ৫টি মৌলিক অধিকারের মধ্যে শিক্ষাকে গণ্য করা হয়। পাকিস্তানী শাসকরা ভীত ছিল বাঙালী শিক্ষক-শিক্ষার্থী-বুদ্ধিজীবি সমাজকে নিয়ে। একাত্তরে পাকিস্তানী হানাদারদের সর্বপ্রথম লক্ষবস্তু হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে বধ্যভূমি। পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে শিক্ষক-বুদ্ধিজীবীদের। মেধাশূণ্যতার মুখেও স্বাধীনতার মাত্র আড়াই বছরে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে কুদরত-ই-খুদা কমিশন শিক্ষানীতি প্রনয়ণ করে। যা বড় অর্জন হলেও বাস্তবায়ন হয়নি ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর। সেই থেকে রাজনৈতিক স্বেচ্ছাচারিতার শিকার হয় শিক্ষা খাত, সরকার পাল্টালে পাল্টেছে শিক্ষানীতি।

নানা হোঁচট খেলেও শিক্ষার মূল লক্ষ্য অর্জনের পথেই দেশ আছে এবং সবার মাঝে শিক্ষার চাহিদা তৈরি হওয়া এবং মাধ্যমিক থেকে উচ্চশিক্ষায় নারী-পুরুষের সমান অংশগ্রহণসহ বেশ কিছু বড় অর্জন রয়েছে বলে মনে করেন গবেষকরা।

শিক্ষার চাহিদা বাড়লেও গুণগত মান অর্জনে আছে আক্ষেপের জায়গা। ছাত্র-শিক্ষক অনুপাত, পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে মূলধারার শিক্ষায় যুক্ত করা, প্রতিবন্ধিদের জন্য সমান সুযোগ ও যথার্থ পাঠ্যসূচি তৈরির দূর্বলতা শিক্ষায় পরিপূর্ন লক্ষ্য অর্জনের ক্ষেত্রে বড় প্রতিবন্ধকতা। আগামী ক’বছরে বর্তমান শিক্ষানীতির আলোকে পরিকল্পিত ও পরিমার্জিত শিক্ষা কর্মসূচি বাস্তবায়ন নিশ্চিত হলেই বিজয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী উৎসব মধুময় শিক্ষা খাতের জন্য।

সুশিক্ষার আলোয় সমাজকে আলোকিত করতে রাজনৈতিক সহনশীল পরিবেশ বিশেষ জরুরি, বলে জানালেন শিক্ষা গবেষকরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

স্বাধীনতার ৪৬ বছর

সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিতে সমন্বিত উদ্যোগ চান বিশ্লেষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : নাগরিকের নিরাপত্তা নিশ্চিতের ধারণাটি অনেক বিস্তৃত ও ব্যাপক, যেই খাত বিজয়ের ৪৬ বছরে অনেক সাফল্যের মাঝেও বড় ম্লান।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is