ঢাকা, রবিবার, ২১ জানুয়ারী ২০১৮, ৮ মাঘ ১৪২৪, ৪ জুমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
আখেরি মোনাজাতে শেষ হলো দ্বিতীয় পর্বের আয়োজন আইন সংশোধন করে পাহাড়িদের জমির মালিকানা বুঝিয়ে দেয়া হবে- প্রধানমন্ত্রী ন্যাম ভবনে এমপি লুৎফুল্লাহর ছেলের ঝুলন্ত লাশ বদলে যাচ্ছে পদ্মা পাড়ের আর্থসামাজিক চিত্র এ’বছর হজে যেতে পারবেন ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন সংগঠন অনুযায়ী জঙ্গিদের আলাদা সেলে রাখা হচ্ছে- কারা মহাপরিদর্শক ঢাবি’র রেজিস্টার্ড গ্রাজুয়েট নির্বাচনে গণতান্ত্রিক ঐক্য পরিষদের জয় আইভীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি জামিন পেলেন আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ ফাইনালে যেতে জিততেই হবে শ্রীলংকাকে ভৈরবে আমন ধানের বাম্পার ফলন দিল্লিতে বাজির গুদামে আগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৭ পোঁড়া বেগুনের অনেক গুণ সরকারি উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয়ের স্বচ্ছতা দেখবে দুদক উপকূলে কৃষি উন্নয়নে ব্লুগোল্ড প্রকল্প জাতিসংঘের দূতের রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন মাশরাফি শাইনপুকুরে, সাকিব মোহামেডানে, তামিম কলাবাগানে নড়াইলে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ১২ জন গুলিবিদ্ধ  ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণের এক বছর যশোরে গুলিবিদ্ধ চার মৃতদেহ উদ্ধার

একাত্তরের এ’দিন 

হানাদারমুক্ত হয় নেত্রকোণা, ফরিদপুর ও ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ০৯:২১ , ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০৯:২১ , ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭

ডেস্ক রিপোর্ট: নেত্রকোণা ও ফরিদপুর হানাদার মুক্ত দিবস আজ। এছাড়া ময়মনসিংহের ৪ উপজেলাও মুক্ত হয় একাত্তরের এ’দিন। মুক্তির আনন্দে বিজয় উল্লাসে মেতে ওঠে এসব এলাকার মুক্তিকামী মানুষ। স্বাধীনতার ৪৬ বছর পার হলেও কোন কোন স্থানে তৈরি হয়নি শহীদদের স্মরণে স্মৃতিস্তম্ভ, কোথাও নির্মিত হলেও নেই সংরক্ষণ। আর শাস্তির আওতার বাইরে থাকা মানবতাবিরোধী অপরাধীদের দ্রুত বিচারের দাবি জানান তারা। 

একাত্তরের ৮ ডিসেম্বর রাতে নেত্রকোণায় মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে বৈঠকে বসেন মিত্র বাহিনীর ক্যাপ্টেন চৌহান। পরিকল্পনা করেন ৯ ডিসেম্বর সকালে শহরের পাক সেনাদের ওপর হামলার চালানোর। পরিকল্পনা অনুযায়ী আক্রমণ করার পর টানা চার ঘণ্টা যুদ্ধ শেষে পিছু হটতে বাধ্য হয় পাক সেনারা। মুক্ত হয় নেত্রেকোণা। 

তবে স্বাধীনতার ৪৬ বছর পরেও আজও এ জেলার মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচার কার্যকর হয়নি। দ্রুত তাদের বিচারের আওতায় এনে শাস্তির দাবি মুক্তিকামী মানুষের। জানালেন, নেত্রকোণা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জেলা ইউনিট কমান্ডের সাবেক কমান্ডার নূরুল আমীন।

একাত্তরের এই দিনে ফরিদপুরের করিমপুরে পাক বাহিনীর সাথে দিনভর যুদ্ধ করে মুক্তিযোদ্ধারা। যুদ্ধ শেষে ১১ জন শহীদের বিনিময়ে ছিনিয়ে আনা হয় লাল সবুজের পতাকা। তবে, এখন পর্যন্ত শহীদদের স্মরণে এখানে নির্মিত হয়নি কোন স্মৃতিস্তম্ভ।  

এদিকে, ময়মনসিংহের ত্রিশাল, ফুলপুর, ঈশ্বরগঞ্জ ও গফরগাঁও মুক্ত হয় একাত্তরের এই দিনে। মুক্তিযোদ্ধাদের হামলায় টিকতে না পেরে পাক হায়নারা বাধ্য হয় এলাকা ছেড়ে পালাতে। ৯ ডিসেম্বর সকালে ময়মনসিংহবাসী ওড়ান স্বাধীন বাংলার পতাকা। 

ময়মনসিংহে মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হলেও সংরক্ষণে নেই কোন উদ্যোগ। 

আর যেসব মানবতাবিরোধী অপরাধীরা আজও শাস্তির আওতার বাইরে তাদের দ্রুত শাস্তির দাবি জানান এসব জেলার মুক্তিযোদ্ধাসহ সাধারণ মানুষ।


 

এই বিভাগের আরো খবর

একাত্তরের এ’দিন 

হানাদারমুক্ত হয় নেত্রকোণা, ফরিদপুর ও ময়মনসিংহ

ডেস্ক রিপোর্ট: নেত্রকোণা ও ফরিদপুর হানাদার মুক্ত দিবস আজ। এছাড়া ময়মনসিংহের ৪ উপজেলাও মুক্ত হয় একাত্তরের এ’দিন। মুক্তির আনন্দে বিজয়...

বর্ণাঢ্য ও অনন্য আনিসুল হক

নিজস্ব প্রতিবেদক : বর্ণাঢ্য কর্মজীবনের অধিকারী ছিলেন আনিসুল হক। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের এই মেয়র নেতৃত্ব দিয়েছেন উদ্যোক্তা ও...

সাগরে ভাসানো চিঠি ২৯ বছর পর ফেরত

ডেস্ক প্রতিবেদন: চিঠি লিখে বোতলে ভরে সমুদ্রে ফেলার ২৯ বছর পর তা ফেরত পেলেন এক তরুণী। ১৯৮৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর খেলার ছলে চিঠি লিখে সমুদ্রে...

লালন শাহ’র তিরোধান দিবস

কুষ্টিয়ার বাউল সম্রাটের আখড়ায় জড়ো হয়েছেন ভক্ত-অনুসারীরা

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ ! গানের মধ্য দিয়ে জাতভেদের বিরোধিতা আর অহিংসার বাণী ছড়িয়েছিলেন এই আধ্যাত্মিক বাউল। তাইতো...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is