ঢাকা, বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ১২ বৈশাখ ১৪২৫

2018-04-24

, ৮ শাবান ১৪৩৯

ক্ষোভ আর আতঙ্কে প্রবাসীরা

নিউইয়র্কে গ্রেফতার আকায়েদের স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়ি ঢাকায় আটক

প্রকাশিত: ০১:২৩ , ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০১:২৩ , ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭

ডেস্ক রিপোর্ট: যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাস টার্মিনালে বোমা হামলার ঘটনায় বাংলাদেশি যুবক আকায়েদ উল্লাকে আটকের পর তার জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা খতিয়ে দেখছে পুলিশ দেশটির পুলিশ। এদিকে, এ ঘটনার পর ঢাকার হাজারীবাগ থেকে আটক করা হয়েছে আকায়েদের স্ত্রী ও শ্বশুর- শ্বাশুরিকে। ম্যানহাটনে হামলাকারী সন্দেহে আকায়েদ উল্লাহ’র আটকের ঘটনায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। 

সোমবার নিউইয়র্কের প্রাণকেন্দ্র ম্যানহাটনের পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনাল এলাকায় বিস্ফোরণের পরপরই আহত অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে আকায়েদ উল্লাহ নামের বাংলাদেশি যুবককে আটক করে নিউইয়র্ক পুলিশ। যাকে এখন জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এরিমধ্যে ব্র“কলিনে তার আত্মীয়-স্বজনের বাসায়ও তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ।

সাত বছর আগে নিউইয়র্কে পাড়ি জমানো আকায়েদ ব্র“কলিনের একটি বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের দোকানে কাজ করতেন। হামলার সময় তার শরীরে বাঁধা পাইপবোমাটি বিদ্যুত সরঞ্জামের দোকানে বসেই তৈরি করা বলে ধারণা করা হচ্ছে। নিউইয়র্ক পুলিশ আকায়েদের সরাসরি জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা নিয়ে এখনো কোনো মন্তব্য করেনি। তবে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস’র সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা ছিলো কিনা তা খতিয়ে দেখছে। 

অভিযুক্ত যুবক আকায়েদ উল্লাহর গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের সন্দ্বীপে। তবে অনেকদিন ধরেই তার পরিবার ঢাকার বাসিন্দা। নিউইয়র্কে বোমা বিস্ফোরণের পর হাজারীবাগ থেকে আকায়েদের স্ত্রী ও শ্বশুর-শ্বাশুরিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেয়া হয়েছে বলে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট থকে জানা গেছে।

হামলাকারী সন্দেহে বাংলাদেশি যুবককে আটকের ঘটনায় উদ্বেগ উৎকন্ঠায় রয়েছে নিউইয়র্ক প্রবাসী বাংলাদেশীরা। 

এদিকে, এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাস। এতে সন্ত্রাস দমনে সরকারের জিরো টলারেন্সের নীতি পুনর্ব্যক্ত করে অপরাধীকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

১৪ সাংবাদিক পেলেন ব্র্যাকের অভিবাসন মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক: অভিবাসনবিষয়ক সংবাদ ও আলোকচিত্রের জন্য বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের অভিবাসন কর্মসূচির পক্ষ থেকে এ বছর ১৪ জন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is