ঢাকা, রবিবার, ২১ জানুয়ারী ২০১৮, ৮ মাঘ ১৪২৪, ৪ জুমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
আখেরি মোনাজাতে শেষ হলো দ্বিতীয় পর্বের আয়োজন আইন সংশোধন করে পাহাড়িদের জমির মালিকানা বুঝিয়ে দেয়া হবে- প্রধানমন্ত্রী ন্যাম ভবনে এমপি লুৎফুল্লাহর ছেলের ঝুলন্ত লাশ বদলে যাচ্ছে পদ্মা পাড়ের আর্থসামাজিক চিত্র এ’বছর হজে যেতে পারবেন ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন সংগঠন অনুযায়ী জঙ্গিদের আলাদা সেলে রাখা হচ্ছে- কারা মহাপরিদর্শক ঢাবি’র রেজিস্টার্ড গ্রাজুয়েট নির্বাচনে গণতান্ত্রিক ঐক্য পরিষদের জয় আইভীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি জামিন পেলেন আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ ফাইনালে যেতে জিততেই হবে শ্রীলংকাকে ভৈরবে আমন ধানের বাম্পার ফলন দিল্লিতে বাজির গুদামে আগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৭ পোঁড়া বেগুনের অনেক গুণ সরকারি উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয়ের স্বচ্ছতা দেখবে দুদক উপকূলে কৃষি উন্নয়নে ব্লুগোল্ড প্রকল্প জাতিসংঘের দূতের রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন মাশরাফি শাইনপুকুরে, সাকিব মোহামেডানে, তামিম কলাবাগানে নড়াইলে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ১২ জন গুলিবিদ্ধ  ট্রাম্পের ক্ষমতা গ্রহণের এক বছর যশোরে গুলিবিদ্ধ চার মৃতদেহ উদ্ধার

ভারতে পাওয়া গেল মাংসাশী সরীসৃপ ‘ফিশ লিজার্ড’

প্রকাশিত: ০৯:৩২ , ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭ আপডেট: ০৯:৩২ , ২৬ ডিসেম্বর ২০১৭

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: সম্প্রতি ভারতের মাটিতেই আবিষ্কৃত হয় এক অদ্ভুত দর্শন মাছের। বিজ্ঞানীদের মতে, এটি জুরাসিক যুগের সামুদ্রিক প্রাণী, নাম ‘ফিশ লিজার্ড’। হাজার হাজার বছর আগের কথা। তখন এই পৃথিবীতে মনুষ্যবসতি ছিল না। তখন জলে-স্থলে ঘুরে বেড়াত অদ্ভুত সব প্রাণীরা। কিন্তু, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কালের গর্ভে চলে গেছে তারা। বিজ্ঞানীরা কিন্তু ক্রমাগত খুঁজে চলেছেন পৃথিবীর এই সব প্রাণীকুল সম্পর্কে নানা তথ্য। বিশ্বের নানা প্রান্তে, কখনও জলে, কখনও বা স্থলে, তাদের জীবাশ্ম থেকে জানা যায় পৃথিবী সম্পর্কে নানা অজানা তথ্য।

এদিকে এমনই এক জলজ প্রাণীর জীবাশ্ম পাওয়া গেছে আন্টার্কটিকায়। বৃহদাকার এক সামুদ্রিক সরীসৃপ। বিজ্ঞানীদের মতে, এই প্রাণীর অস্তিত্ব ছিল প্রায় ১৫০ মিলিয়ন  বছর আগে। তাঁরা আরও জানান, আন্টার্কটিকার প্রাচীনতম প্রাণী সম্ভবত এটিই।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ‘টেকটাইমস’-এর একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, আন্টার্কটিকায় এই জীবাশ্ম আবিষ্কারের মূলে রয়েছেন এক দল আর্জেন্টিনীয় গবেষক। তাঁদের মতে, জুরাসিক যুগের শেষের দিকে, এক ধরনের মাংসাশী সরীসৃপ ছিল যার চারটি পাখনা থাকত। প্রায় ১২ মিটার দৈর্ঘ্যের এই মাংসাশী প্রজাতির বৈজ্ঞানিক নাম ‘প্লেসিওয়র’।

আন্টার্কটিকার যে জায়গায় ওই জীবাশ্ম পাওয়া গিয়েছে, তাতে বেশ বিস্মিত গবেষকরা। কারণ, ওই জায়গায় যে ধরনের পাথর রয়েছে তা জীবাশ্ম সংরক্ষণের জন্য একেবারেই অনুকূল নয়। এখনও পর্যন্ত আর কোনও তথ্য জানা যায়নি সদ্য আবিষ্কৃত এই মাংসাশী সরীসৃপ সম্পর্কে। প্রসঙ্গত, প্লেসিওয়র ঘরানার প্রাচীনতম জীবাশ্ম আবিষ্কৃত হয়েছিল জার্মানিতে, ২০১৩ সালে।

মার্কিন মুলুকের লক নেস হ্রদের মূল খ্যাতি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের কারণে ঠিক নয়। তাতে বাসরত এক রহস্যময় প্রাণীকে ঘিরে। যাকে, এ বছর নয় বার দেখা গিয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। মনে করা হচ্ছে, এই প্রাণীটিও ‘প্লেসিওয়র’ প্রজাতির। ফলে, এমনটা মনে করার কোনও কারণ নেই যে মাংসাশী সরীসৃপ একেবারে অবলুপ্ত হয়ে গিয়েছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

৩ হাজার শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ 

ঢাকা আঞ্চলিক গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ গণিত অলিম্পিয়াড কমিটির আয়োজনে ষোড়শবারের মতো অনুষ্ঠিত হয়েছে ঢাকা আঞ্চলিক গণিত উৎসব। সকালে, রাজধানীর...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is