ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৮, ১৪ বৈশাখ ১৪২৫

2018-04-26

, ১০ শাবান ১৪৩৯

দিনাজপুর ট্রাজেডি আজ

মাইন বিস্ফোরণে ঝরে যায় পাঁচ শতাধিক বীর মুক্তিযোদ্ধার প্রাণ 

প্রকাশিত: ০৯:২১ , ০৬ জানুয়ারী ২০১৮ আপডেট: ১০:০৩ , ০৬ জানুয়ারী ২০১৮

দিনাজপুর প্রতিনিধি: স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ সংশ্লিষ্ট সবচেয়ে বড় বেদনাদায়ক ঘটনা দিনাজপুর ট্রাজেডি। ১৯৭২ সালের ৬ জানুয়ারি জেলার মহারাজা গিরিজানাথ হাইস্কুলে মুক্তিযোদ্ধাদের ট্রানজিট ক্যাম্পে মাইন বিস্ফোরণে একসাথে ঝরে যায় পাঁচ শতাধিক বীর মুক্তিযোদ্ধার প্রাণ। আহত হন অনেকে। তবে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানো এসব শহীদদের স্মরণে আজো নির্মাণ হয়নি কোন স্মৃতিসৌধ। 

স্বাধীনতার পর দিনাজপুরের বালুবাড়ীর মহারাজা গিরিজানাথ হাইস্কুলে স্থাপন করা হয় মুক্তিযোদ্ধা ট্রানজিট ক্যাম্প। মুক্তিযোদ্ধাদের দায়িত্ব ছিল জেলার বিভিন্ন স্থানে পুঁতে রাখা বা ফেলে রাখা মাইন ও গোলাবারুদ উদ্ধার করে ওই ক্যাম্পে নিয়ে আসা। বাহাত্তরের ৬ জানুয়ারি ক্যাম্পটিতে ঘটে মর্মান্তিক এক দুর্ঘটনা। উদ্ধারকৃত মাইন ও গোলাবারুদ বাংকারে রাখার সময় হাত থেকে পড়ে একটি মাইন বিস্ফোরিত হয়। এতে বিস্ফোরণ ঘটে পুরো অস্ত্রভান্ডারে।

বিস্ফোরণের পর হতাহতদের উদ্ধারে অংশ নেয়া মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল হক ছুটু  ও মোস্তাকিম আলী বলেন, ওই ঘটনায় নিহতের সঠিক সংখ্যা জানা না গেলেও তা পাঁচ শতাধিক হবে।

১৯৯৮ সালে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিনাজপুরের গিরিজানাথ হাইস্কুলে প্রাঙ্গনে শহীদদের স্মরণে স্মৃতিসৌধ নির্মাণের প্রতিশ্র“তি দেন। তবে আজও তা বাস্তবায়ন না হওয়ায়, ক্ষোভ প্রকাশ করেছে দিনাজপুরবাসী। জানালেন, লেখক ও সাহিত্যিক আজহারুল আজাদ জুয়েল।

এদিকে, প্রতি বছরের মতো এবারো বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে ৬ জানুয়ারির ট্রাজেডির শহীদদের স্বরণ করছে শহীদ স্মৃতি পরিষদ। 


 

এই বিভাগের আরো খবর

গ্যাস বেলুনে হিলিয়ামের পরিবর্তে ব্যবহার হচ্ছে হাইড্রোজেন গ্যাস

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিপজ্জনক ও বিস্ফোরক হাইড্রোজেন গ্যাস দিয়ে বেলুন ফুলিয়ে উড়ানো হচ্ছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে। নানা উৎসবে শিশুদের হাতে হাতে...

তিনমাসের মধ্যেই কাজ শুরু

ঢাকার নদী-খাল দূষণমুক্ত ও নাব্যতা বৃদ্ধির উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: এবার ঢাকার আশপাশের নদী ও খাল দূষণমুক্ত ও নাব্যতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এজন্য প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার একটি...

পরিবেশ বান্ধব করার তাগিদ

কাগজ শিল্পে আসছে নতুন নতুন প্রকল্প 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিক্রির পরিমাণ হিসেবে দেশে প্রতিদিনের কাগজের বাজার প্রায় চার হাজার মেট্রিক টনের। টাকার অংকে যার পরিমাণ প্রায় আটাশ কোটি...

প্রতিবছরই বাড়ছে রপ্তানির পরিমাণ

কাগজ রপ্তানি তিন হাজার কোটি টাকার 

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারি চারটি কাগজ কারখানার তিনটি বন্ধ, মাত্র একটি সচল। তবে বেসরকারি খাতে নব্বইটির বেশি কাগজ কারখানা উৎপাদনে রয়েছে।...

প্রায় দশ লাখ মানুষ জড়িত

সরকারি খাতে কাগজ শিল্পের দুর্দশা

নিজস্ব প্রতিবেদক: কাগজের উদ্ভাবন মানব সভ্যতা বিকাশের পথে একটি মাইলফলক ঘটনা। দু’শ খ্রিস্টাব্দেরও আগে এই আবিস্কারের কৃতিত্ব চীনের।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is