ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৮, ৬ মাঘ ১৪২৪, ২ জুমাদিউল আউয়াল ১৪৩৯
শিরোনামঃ
ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব, জুমার নামাজে লাখো মুসল্লি ৭৫ উর্ধ্ব প্রবীণ কারাবন্দিদের মুক্ত করার উদ্যোগ সংস্কার হয়নি চট্টগ্রাম মহানগরীর ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক সরকারের কারণেই ডিএনসিসি নির্বাচন ভণ্ডুল: বিএনপি এক জঙ্গি চট্টগ্রামের নাফিস তরুণদের অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহ্বান স্পিকারের ফরিদপুরে কাভার্ডভ্যানের সাথে সংঘর্ষে মোটরসাইকেলের দু’আরোহী নিহত  ‘ফ্রিডারিকে’ তাণ্ডবে বিপর্যস্ত উত্তর ইউরোপ রংপুরে দগ্ধ আরো দু’জনের মৃত্যু  অস্থির সবজির বাজার, ঝাঁঝ কমেছে পেঁয়াজের স্প্যানিশ কোপা ডেল’রে ফুটবলে রিয়াল মাদ্রিদের জয়  খালেদা মামলার কার্যক্রম ব্যাহত করেছেন: হাছান মাহমুদ শ্রীলংকাকে রেকর্ড ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ ঢাকা আঞ্চলিক গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত উখিয়া ক্যাম্পে বন্য হাতির আক্রমণে রোহিঙ্গার মৃত্যু মজুরি বোর্ড গঠনকে ইতিবাচক দেখছেন পোশাক শ্রমিকরা টঙ্গীতে জোড়া খুনের ঘটনায় ৫ জন গ্রেফতার ডিসেম্বরের মধ্যে পদ্মা সেতু নির্মাণের চেষ্টা চলছে অসুস্থ আইভী ল্যাব এইডে ভর্তি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হলেন ১৫৫ জন

কুড়িগ্রামে ঘরে ঘরে মাদক

প্রকাশিত: ০১:৫২ , ০৯ জানুয়ারী ২০১৮ আপডেট: ০৫:৪৯ , ০৯ জানুয়ারী ২০১৮

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: সীমান্তবর্তী জেলা কুড়িগ্রামে হাত বাড়ালেই মিলছে মরণঘাতী মাদক। জেলার অনেক পরিবারই জড়িয়ে পড়েছে এ মাদক ব্যবসায়। ঘরের চাল, ধানের গোলা কিংবা বিছানার নিচ- যে কোনো জায়গায় মিলছে ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ বিভিন্ন নেশাজাতীয় দ্রব্য। স্থানীয়দের অভিযোগ, নিয়মিত অভিযানে মাদক ব্যবসায়ীরা গ্রেপ্তার হলেও কোনো না কোনো ভাবে ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে। এদিকে, জেলা পুলিশ সুপার বললেন, শুধু আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর তৎপরতায় মাদকের এই বিশাল সিন্ডিকেট ভাঙা সম্ভব নয়, এজন্য প্রয়োজন সাধারণ মানুষের সচেতনতা।

সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় কুড়িগ্রামের সকল উপজেলায় সহজেই মিলছে নানা ধরনের মাদক। জেলার অনেক মানুষই জড়িয়ে পড়েছে মাদক ব্যবসায়। সম্প্রতি রৌমারী উপজেলার একটি গ্রামে অভিযানের পর পুলিশ জানায়, এখানকার প্রায় ৮০ শতাংশ পরিবারই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। ঘরের চাল, ধানের গোলা কিংবা বিছানার নিচ- যেকোনো জায়গায় মিলছে ফেনসিডিল, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য।

শুধু রৌমারী নয়, এমন অবস্থা কুড়িগ্রামের নয় উপজেলার প্রায় সর্বত্র। পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত আসামিদের আটক করা হচ্ছে। তবে কোনো না কোনো ভাবে ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে তারা।

পুলিশের পাশাপাশি সীমান্তরক্ষী বাহিনী তৎপর হলে মাদকের অভিশাপ থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া সম্ভব বলে মনে করছে এলাকাবাসী।

এদিকে, গত দু’মাসে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ২৩৫ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার  করেছে পুলিশ। মামলা দায়ের হয়েছে ২৪৯টি। তবে মাদক নির্মূলে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের সচেতনতা বাড়ানো প্রয়োজন বলে জানালেন পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম ।  

সম্মিলিত প্রচেষ্টা না নিলে কুড়িগ্রামকে মাদকের অভিশাপ থেকে রক্ষা করা সম্ভব নয় বলেই মনে করেন প্রশাসন ও স্থানীয় নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা।

এই বিভাগের আরো খবর

ফরিদপুরে কাভার্ডভ্যানের সাথে সংঘর্ষে মোটরসাইকেলের দু’আরোহী নিহত 

ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরে কাভার্ড ভ্যানের সাথে সংঘর্ষে মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছে। গত রাতে, ফরিদপুর-খুলনা মহাসড়কের করিমপুর...

নারায়ণগঞ্জের সংঘর্ষের ঘটনায় অস্ত্রধারীদের ধরার চেষ্টা চলছে- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : নারায়ণগঞ্জের সংঘর্ষের সময় যারা অস্ত্র প্রদর্শন করেছে, আইন নিজের হাতে তুলে নিয়েছে, তাদের কোন ছাড় দেয়া হবে না বলে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is