ঢাকা, বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ১২ বৈশাখ ১৪২৫

2018-04-24

, ৮ শাবান ১৪৩৯

শীতে সর্দি-কাশি দূর করে শরীর চাঙা রাখার উপায়

প্রকাশিত: ০২:১৭ , ০৯ জানুয়ারী ২০১৮ আপডেট: ০২:১৮ , ০৯ জানুয়ারী ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: শীতকাল মানেই সর্দি-কাশি। তবে সর্দি-কাশি দূর করে আপনার শরীরকে চাঙা রাখতে পারে কিছু খাবার।

তিলপাট্টি

তিল এবং গুড় দিয়ে বানানো মচমচে মিষ্টি জাতীয় এই খাবারটি শীতকালে শরীরকে চাঙা রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। আসলে এক্ষেত্রে গুড় একদিকে যেমন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে তোলে, তেমনি অন্যদিকে তিল দেহে তাপমাত্রা যাতে না কমে, সেদিকে খেয়াল রাখে।

লাড্ডু

গাছের রস, ময়দা, চিনি, ঘি, বাদাম এবং এলাচ দিয়ে বানানো লাডডু যদি সারা শীতকাল জুড়ে খেতে পারেন, তাহলে রোগ ভোগের আশঙ্কা একেবারে কমে যায়। কারণ গাছ থেকে সংগ্রহ করা রস শরীরের তাপমাত্রা হঠাৎ করে বাড়িয়ে দেয়। আর বাকি উপাদানগুলি শরীরকে রোগমুক্ত রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

কমলা লেবু
ভিটামিন সি এবং এ রয়েছে এমন ধরনের ফল শীতকালে বেশি মাত্রায় খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়ে থাকে। আর কমলা লেবুতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন সি।

গাজর

শীতকালে সর্দি-কাশির সংক্রমণের খপ্পর থেকে বাঁচতে চান? তাহলে নিয়মিত গাজর খেতেই হবে। কারণ কমলা লেবুর মতো এই সবজিটিও ভিটামিন সি-এ ঠাসা।

তিসির বীজ

পরিমাণ মতো তিসির বীজ নিয়ে হালকা ভেজে নিন। তারপর তাতে অল্প করে গুড়, বাদাম এবং পেঁপের বীজ দিয়ে এক সঙ্গে মিশিয়ে নিন। এই পদটি সারা শীতকাল জুড়ে যদি খেতে পারেন, তাহলে শরীর নিয়ে আর কোনও চিন্তাই থাকবে না। শুধু তাই নয়, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিডের ঘাটতি মেটাতেও তিসির বীজ দিয়ে বানানো এই পদটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

সবজির সঙ্গে ডিম

প্রতিদিন একটা করে ডিমের অমলেট পছন্দের যে কোনো সবজির সঙ্গে খেতে হবে। তাহলেই একদিকে যেমন প্রোটিনের ঘাটতি মিটিয়ে শরীরে শক্তি বাড়াবে, তেমনি অন্যদিকে পেট ভরে সবজি খাওয়ার কারণে শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের মাত্রা বৃদ্ধি পাবে। ফলে রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা এতটা শক্তিশালী হয়ে উঠবে যে শরীরকে নিয়ে আর কোনো চিন্তাই থাকবে না।

এই বিভাগের আরো খবর

রূপচর্চায় তরমুজের ব্যবহার 

ডেস্ক প্রতিবেদন: বৈশাখের কাঠফাটা রোদে বাইরে বেরোলে তৃষ্ণায় যেন প্রাণটা ওষ্ঠাগত হয়ে পড়ে। এই সময় প্রাণ জুড়াতে তরমুজের জুড়ি মেলা ভার। তবে...

বিশেষ খাবারে বুদ্ধি বাড়ে

ডেস্ক প্রতিবেদন: আপনি চাইলে হয়ে উঠতে পারেন বুদ্ধিমান। তার জন্য নিয়মিত বই পড়া, সমসাময়িক বিষয়ে খোঁজখবর রাখা এবং মেধা চর্চা দরকার। কিন্তু...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is