ঢাকা, বুধবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৮, ১২ বৈশাখ ১৪২৫

2018-04-24

, ৮ শাবান ১৪৩৯

বাচ্চাদের ডায়রিয়া হলে কী করবেন?

প্রকাশিত: ০৫:৫৮ , ১০ জানুয়ারী ২০১৮ আপডেট: ০৫:৫৮ , ১০ জানুয়ারী ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন:  বাচ্চাদের জন্য ডায়রিয়া একটি মারাত্মক রোগ। আর শীতকালে সহজেই এই রোগে আক্রান্ত হয় শিশুরা। ডায়রিয়ার সবচেয়ে বড় জটিলতা হচ্ছে পানিশূন্যতা। পানিশূন্যতা হলে শিশু দুর্বল হয়ে পড়ে। এমনকি এ রোগে আক্রান্ত হয়ে শিশু মারাও যেতে পারে।

লক্ষণ
ডায়রিয়ার কিছু বিপজ্জনক লক্ষণ আছে যা সবার জানা প্রয়োজন। এর কোনো একটা লক্ষণ দেখামাত্র চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। লক্ষণগুলো হচ্ছে-
১. শিশুর নিস্তেজ হয়ে পড়া,
২. চোখ বসে যাওয়া,
৩. বুকের দুধ টেনে খেতে না পারা,
৪. অন্য কোন তরল খাবার না খাওয়া বা খুব কম পরিমাণে খাওয়া,
৫. বারবার বমি করা।

করণীয়
১. ডায়রিয়া আক্রান্ত শিশুর শরীর থেকে পানি বের হয়ে যাওয়ায় পানিশূন্য হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। ফলে শিশুকে বারবার তরল খাবার যেমন: ডাবের পানি, চিড়ার পানি, ভাতের মাড়, টক দই ও লবণ-গুড়ের শরবত ইত্যাদি বেশি করে খেতে দিতে হবে।

২. তরল খাবারের পাশাপাশি খাওয়ার স্যালাইন দিতে হবে। শিশুর ওরস্যালাইনের পরিমাণ হচ্ছে, প্রতিবার পাতলা পায়খানার পর ২৪ মাসের কম বয়সী শিশুর জন্য ৫০-১০০ মিলি, ২-১০ বছর বয়সী শিশুর জন্য ১০০-২০০ মিলি এবং ১০ বছরের অধিক বয়সীদের জন্য চাহিদা অনুযায়ী।

৩. যেসব শিশু বুকের দুধ খায় তাদেরকে বারবার বুকের দুধ দিতে হবে।

৪. শিশু যদি বমি করে তাহলে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে আবার খাওয়াতে হবে।

৫. তাজা ফলের রস দিলে পটাশিয়ামের ঘাটতি পূরণ হবে।
৬. ডায়রিয়া ভাল হয়ে গেলেও পরবর্তী দুই সপ্তাহ শিশুকে এরকমভাবে বাড়তি খাবার প্রতিদিন দিতে হবে।

৭. চিকিৎসক এর পরামর্শ ব্যতীত কোন অ্যান্টিবায়োটিক বা অন্য কোন ওষুধ শিশুকে খাওয়ানো যাবে না (যেটা অনেক বাবা মা করে থাকেন)।

মনে রাখতে হবে, ডায়রিয়াজনিত পানিশূন্যতার কারণে পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুর মৃত্যুর হার এখনো অনেক বেশি। কিছু সামাজিক কুসংস্কারের কারণে আক্রান্ত শিশুকে সঠিক ভাবে পরিচর্যা করা হয় না বলেই আমাদের দেশের চিত্রটা এমন। কিন্তু সঠিক জ্ঞান থাকলে ঘরে থেকেই ডায়রিয়া জনিত পানিশূন্যতা প্রতিরোধ করা সম্ভব।

এই বিভাগের আরো খবর

রূপচর্চায় তরমুজের ব্যবহার 

ডেস্ক প্রতিবেদন: বৈশাখের কাঠফাটা রোদে বাইরে বেরোলে তৃষ্ণায় যেন প্রাণটা ওষ্ঠাগত হয়ে পড়ে। এই সময় প্রাণ জুড়াতে তরমুজের জুড়ি মেলা ভার। তবে...

বিশেষ খাবারে বুদ্ধি বাড়ে

ডেস্ক প্রতিবেদন: আপনি চাইলে হয়ে উঠতে পারেন বুদ্ধিমান। তার জন্য নিয়মিত বই পড়া, সমসাময়িক বিষয়ে খোঁজখবর রাখা এবং মেধা চর্চা দরকার। কিন্তু...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is