ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০ ফাল্গুন ১৪২৪

2018-02-21

, ৫ জমাদিউল সানি ১৪৩৯

চট্টগ্রাম ওয়াসায় দিনে অপচয় ৫০ লাখ টাকার পানি

প্রকাশিত: ১০:১৭ , ২২ জানুয়ারী ২০১৮ আপডেট: ০৪:২৩ , ২২ জানুয়ারী ২০১৮

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : চট্টগ্রাম ওয়াসার ত্র“টিপূর্ণ ও জরাজীর্ণ পাইপলাইনের কারণে প্রতিদিন অপচয় হচ্ছে প্রায় অর্ধ কোটি টাকার পানি। ক্ষতিগ্রস্ত পাইপলাইনে দূষিত ও নোংরা পানি ঢুকে পড়ায় বাড়ছে রোগ বালাইয়ের আশঙ্কাও। আর লাইনের ছিদ্র দিয়ে পানি বের হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রাস্তা। চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হয় নগরবাসীকে। তবে, ওয়াসা জানিয়েছে, ২০২০ সালের মধ্যে সব পুরনো লাইন বদলে ফেলার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম নগরীতে ওয়াসার পানি বিতরণের পাইপলাইন রয়েছে প্রায় ৬০০ কিলোমিটার। কিন্তু জরাজীর্ণ হয়ে পড়ায় লাইনে আয়রন জমে ও ফেটে গিয়ে প্রতিদিন অপচয় হচ্ছে প্রায় ৬ কোটি লিটার পানির। যার অর্থমূল্য প্রায় অর্ধকোটি টাকা। এর ফলে শুধু অপচয়ই নয়, বাড়ছে দূষণের ঝুঁকিও। সম্প্রতি ওয়াসার পক্ষ থেকে বন্দরনগরীর পানির পাইপলাইনে প্রায় ৭০০টি ত্র“টি চিহ্নিত করা হয়েছে।

এদিকে, পাইপলাইনের ছিদ্র দিয়ে পানি বের হওয়ায় বেহাল দশা বন্দরনগরীর রাস্তার। ক্ষতিগ্রস্ত এসব রাস্তায় চলাচল করতে গিয়ে নিত্য ভোগান্তি পোহাতে হয় নগরবাসীকে।

এই দুর্ভোগ কমবে না শিগগিরি। অপেক্ষা করতে হবে কয়েক বছর। চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কর্ণফুলী ওয়াটার সাপ্লাই দ্বিতীয় প্রকল্পের আওতায় ২০২০ সালের মধ্যে পুরো নগরীতে পানির নতুন বিতরণ লাইন স্থাপন করা হবে।

দুর্ভোগ লাঘবে যত দ্রুত সম্ভব পানির বিতরণ লাইনের ত্র“টি সারানোর পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা মেরামতের উদ্যোগ গ্রহণ করা হোক, এমনটাই দাবি বন্দরনগরীর বাসিন্দাদের।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কুড়িগ্রামের সোনাহাট বন্দরে চালু হয়নি ইমিগ্রেশন ব্যবস্থা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : কুড়িগ্রামের সোনাহাট স্থলবন্দর তিন বছর আগে চালু হলেও এখনো চালু হয়নি ইমিগ্রেশন ব্যবস্থা। ফলে বাংলাদেশ ও ভারতের...

ব্যক্তিস্বার্থে ব্যবহারের অভিযোগ

শেরপুরে কমিউনিটি ক্লিনিকের সোলার বিদ্যুৎ নিয়ে অনিয়ম

শেরপুর প্রতিনিধি: বিদ্যুৎবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য স্থাপন করা হলেও শেরপুরের নকলায় কমিউনিটি ক্লিনিকের সোলার প্যানেল ব্যবহার হচ্ছে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is