ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

2018-05-24

, ৯ রমজান ১৪৩৯

সীমান্তে অনুমোদনহীন টাওয়ার

গ্রামীণফোনকে ২ কোটি ৬৯ লাখ টাকা জরিমানা

প্রকাশিত: ১২:২০ , ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ আপডেট: ১২:২০ , ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: গ্রামীণফোনকে গুনতে হবে ২ কোটি ৬৯ লাখ টাকা জরিমানা। দেশের সীমান্ত এলাকায় অনুমতি ছাড়া ১৭টি টাওয়ার তৈরি ও তা ব্যবহারের কারণে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এ জরিমানা আরোপ করে।

গত ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত বিটিআরসির কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বিটিআরসি জানায়, ২০১৪ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে সীমান্ত এলাকায় এসব টাওয়ার তৈরি করে গ্রামীণফোন। এগুলো স্থাপনের কোনো অনুমোদন বিটিআরসির কাছ থেকে নেয়নি অপারেটর কোম্পানীটি। অনুমোদন ছাড়া এসব টাওয়ার ব্যবহার করে গ্রামীণফোন যে অর্থ আয় করেছে, সেটির গড় পরিমাণ ধরে জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার অর্থ পরিশোধে বিটিআরসি গ্রামীণফোনকে এক মাস সময় দেবে বলে জানা গেছে।

এর আগেএকই অভিযোগে বাংলালিংককে গত বছরের আগস্টে ১৭ কোটি টাকা জরিমানা করেছিল বিটিআরসি। নিয়ন্ত্রক সংস্থাটির অনুমোদন ছাড়া বাংলালিংক ২০১৪ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত দেশের সীমান্ত এলাকায় ১০৯টি টাওয়ার তৈরি করেছিল।

বিটিআরসি থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ১৯৯৮ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে সীমান্ত এলাকায় অনুমতি না নিয়ে মোট ৩৬৭টি বিটিএস (বেস ট্রানসিভার স্টেশন) তৈরি করে গ্রামীণফোন। এর মধ্যে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ৩৫০টি বিটিএস তৈরি করা হয়। এসব টাওয়ারের জন্য গ্রামীণফোনকে জরিমানা গুনতে হয়নি। কারণ, তখন এ-সংক্রান্ত পরিষ্কার বিধিবিধান ছিল না।

একটি মোবাইল ফোন অপারেটরকে সীমান্ত এলাকায় বিটিএস তৈরি করতে হলে বিটিআরসি ছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও নিরাপত্তা সংস্থার ছাড়পত্র নিতে হয়। কিন্তু বিটিআরসির অনুসন্ধানে দেখা যায়, যে ঠিকানা দিয়ে গ্রামীণফোন এসব বিটিএস তৈরি করেছে তার মধ্যে ৪০টির ঠিকানা পরে পরিবর্তন করা হয়েছে। কিন্তু ঠিকানা পরিবর্তন করার বিষয়টি পরবর্তী সময় আর বিটিআরসিকে জানানো হয়নি।

বিটিআরসির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেন, সীমান্ত এলাকায় টাওয়ার থেকে অপারেটরদের আয় তুলনামূলকভাবে বেশি হয়। কিন্তু নিরাপত্তাজনিত কারণে এসব এলাকায় টাওয়ার তৈরির বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর। অনুমোদন ছাড়া তাই এসব এলাকায় টাওয়ার তৈরি করা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। এ বিষয়ে গ্রামীণফোনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে প্রতিষ্ঠানটির জনসংযোগ বিভাগ জানায়, জরিমানার বিষয়ে কোনো চিঠি আনুষ্ঠানিকভাবে বিটিআরসি থেকে এখনো আসেনি। তাই এখনই এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা সম্ভব নয়।

এই বিভাগের আরো খবর

২৩ মে'র মধ্যে নির্দিষ্ট কক্ষপথে পৌঁছাবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মহাকাশে উৎক্ষেপণ করা বাংলাদেশের প্রথম বাণিজ্যিক স্যাটেলাই বঙ্গবন্ধু-১ আগামী ২২ অথবা ২৩ তারিখের মধ্যে মহাকাশের...

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের আওতায় থাকবে মুম্বাই থেকে তাজিকিস্তান

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভারতের মুম্বাই থেকে ইন্দোনেশিয়া হয়ে তাজিকিস্তান পর্যন্ত বি¯তৃত থাকবে বঙ্গবন্ধু-ওয়ান স্যাটেলাইটের সেবা। নির্মাণকারী...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is