ঢাকা, সোমবার, ২০ মে ২০১৯, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

2019-05-19

, ১৪ রমজান ১৪৪০

বর্ষণ ও উজানের ঢলে তলিয়ে গেল কাঁচা ও আধাপাকা ধান

প্রকাশিত: ০৬:৪৫ , ০৭ এপ্রিল ২০১৭ আপডেট: ০৬:৪৫ , ০৭ এপ্রিল ২০১৭

ডেস্ক রিপোর্ট: টানা বর্ষণ ও উজানের ঢলে ভৈরব, কিশোরগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জের কয়েক হাজার হেক্টর জমির আধাপাকা ধান তলিয়ে গেছে। এভাবে বৃষ্টি ও ঢল অব্যাহত থাকলে ধান ছাড়াও অন্য ফসলেরও ক্ষতির আংশকায় উদ্বিগ্ন কৃষকরা। তাই শীঘ্রই ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা তৈরী করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছে এসব এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা।

গত কয়েক দিনের অস্বাভাবিক বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত হয়েছে হবিগঞ্জের নিন্মাঞ্চল। আজমিরীগঞ্জ, বানিয়াচং, লাখাই, নবীগঞ্জ ও সদর উপজেলার নিুাঞ্চলের প্রায় সাড়ে ১৩ হাজার হেক্টর জমি পানিতে তলিয়ে গেছে।

অসময়ের এই ঢলে ক্ষতির পরিমাণ ৮০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। আর নিচু এলাকার আধাপাকা ধান কেটে নেয়ার পরামর্শ দিচ্ছে হবিগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণের উপ-পরিচালক ফজলুর রহমান।

এদিকে, মৌলভীবাজারের হাকালুকি, কাউয়াদিঘি, হাইল হাওর এলাকায় বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে ৫৫ হাজার হেক্টর জমির ধান। একমাত্র ফসল হারিয়ে দিশেহারা এলাকরে কৃষকরা। 

অপরদিকে সুনামগঞ্জের সীমান্তের ওপাড় থেকে বিশাল জলরাশির পাহাড়ি ঢল নেমে আসায় সুরমা, কুশিয়ারা, কালনী, বৌলাই, কংস রক্তি ও যাদুকাটা নদীসহ ছোট-বড় ২৫ টি হাওরের পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। ফলে চলতি ৯৮ হাজার হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে। এতে জেলার ১ লাখ ২০ হাজার কৃষক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন।

এছাড়া কিশোরগঞ্জের হাওর উপজেলা ইটনা, মিঠামইন, অষ্টগ্রাম, নিকলীর ৩০ হাজার হেক্টর জমির বোরো ধান এবং ভৈরবের ৪টি ইউনিয়নের কয়েকশ হেক্টর জমির ধান পানিতে তলিয়ে গেছে।

এসব ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের তালিকা তৈরী করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানিয়েছে এসব এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা।

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is