ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই ২০১৮, ৪ শ্রাবণ ১৪২৫

2018-07-18

, ৫ জিলকদ্দ ১৪৩৯

অধ্যাপক মুস্তাফা নূরউল ইসলামের প্রতি আগামীকাল সর্বস্তরের শ্রদ্ধা

প্রকাশিত: ০২:২৮ , ১০ মে ২০১৮ আপডেট: ০৯:৪৯ , ১০ মে ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদন : চলে গেলেন ভাষা সংগ্রামী, খ্যাতিমান সাহিত্যিক ও জাতীয় অধ্যাপক মুস্তফা নূর উল ইসলাম। গতরাতে নিজবাসভবনে তাঁর মৃত্যু হয় হয়। এখন মরদেহ রাখা হয়েছে অ্যাপোলো হাসপাতালের হিমঘরে। শুক্রবার বেলা ১১টায় সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য এই গুণীর মরদেহ রাখা হবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। তাঁর তিন সন্তান দেশে ফিরলে দাফনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। খ্যাতিমান এই সাহিত্যিকের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মুস্তাফা নূরউল ইসলাম ১৯২৭ সালে বগুড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। পাঁচ বছর বয়সে কলকাতায় কবি কাজী নজরুল ইসলামের হাতে লেখাপড়ায় হাতেখড়ি। কলকাতার সুরেন্দ্রনাথ কলেজে গ্র্যাজুয়েশনের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাস করেন। পরে লন্ডন ইউনিভার্সিটির প্রাচ্যভাষা ও সংস্কৃতি কেন্দ্র সোয়াস থেকে পিএইচডি ডিগ্রি নেন তিনি।

মুস্তাফা নূরউল ইসলামের কর্মজীবনের শুরু দৈনিক আজাদ পত্রিকায় প্রতিবেদক হিসেবে। সহকারী সম্পাদক হিসেবে ২ বছর দৈনিক সংবাদে কাজ করেছেন। করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের যাত্রা শুরু হয়েছিল তার হাতে। স্বাধীনতার আগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা, ১৯৭২ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

বাহান্নর ভাষা আন্দোলন থেকে ৭১’ এর মুক্তিযুদ্ধ- বাঙালির প্রায় প্রতিটি আন্দোলনে তিনি সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। ৩০টির বেশি প্রবন্ধ সংকলন ও গবেষণা গ্রন্থ রয়েছে মুস্তাফা নূরউল ইসলামের। বিটিভিতে ‘মুক্তধারা’ অনুষ্ঠানটি একাধারে ১৫ বছর উপস্থাপনা করেন তিনি। সাহিত্যে অবদান রাখায় ২০১০ সালে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হন তিনি। একুশে পদক বাংলা একাডেমী সাহিত্য পুরস্কারসহ বহু পুরস্কার রয়েছে তাঁর ঝুলিতে।  

শুক্রবার বেলা ১১টায় সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তাঁর মরদেহ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাখা হবে। বাদ যোহর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে নামাজের যানাজা। পরিবারের সদস্যরা দেশের বাইরে থেকে এলে তার দাফনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে।  মৃত্যুকালে তিনি দুই ছেলে ও দুই মেয়ে রেখে গেছেন। মেয়ে আতিয়া ইয়াসমিন ও নন্দিতা ইয়াসমিন এবং ছোট ছেলে রাজন বিদেশে আছেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

মুক্তিযুদ্ধের গৌরবগাঁথা তুলে ধরে বিশ্বমানের চলচ্চিত্র নির্মাণের আহবান প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক : চলচ্চিত্রে মুক্তিযুদ্ধের গৌরবগাঁথা তুলে ধরা ও বিশ্বমানের চলচ্চিত্র নির্মাণের আহবান জানালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ...

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষাসৈনিক হালিমা খাতুনের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভাষাসৈনিক ও সাহিত্যিক হালিমা খাতুনের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানালো সর্বস্তরের মানুষ। সকালে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে তার...

কলকাতায় দুই বাংলার শিশুদের আঁকা ছবি নিয়ে চিত্র প্রদর্শনী

ডেস্ক প্রতিবেদন: হাতে মোবাইল ফোন, টেলিভিশনে দিন-রাত চোখ- অনেকেই আবার ফেসবুকে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছে। আর যারা একটু পড়াশোনায় বেশি মনযোগী তারা...

নজরুল শুধু জাতীয় কবি নন, জাগরণের-সাম্যের কবি: রাষ্ট্রপতি

ন্যাশনাল ডেক্স: রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন নজরুল শুধু বাংলার জাতীয় কবি নন, তিনি জাগরণের কবি, সাম্যের কবি। তার লেখনী যুগ যুগ ধরে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is