ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ আগস্ট ২০১৮, ৬ ভাদ্র ১৪২৫

2018-08-20

, ৮ জিলহজ্জ ১৪৩৯

অপরাজিত লিগ চ্যাম্পিয়ন হতে পারলো না বার্সেলোনা

প্রকাশিত: ০২:৩১ , ১৪ মে ২০১৮ আপডেট: ০২:৩১ , ১৪ মে ২০১৮

ক্রীড়া প্রতিনিধি : স্প্যানিশ ফুটবল লিগে পয়েন্ট টেবিলের ১৬ নম্বর দল লেভান্তের কাছে হেরেছে বার্সেলোনা। ভ্যালেন্সিয়া স্টেডিয়ামে বোয়েটিংয়ের দুর্দান্ত হ্যাটট্রিকে কাতালানদের বিপক্ষে ৫-৪ গোলের জয় পায় লেভান্তে। কুতিনহোর হ্যাটট্রিকও হার থেকে বাঁচাতে পারেনি বার্সাকে। এর ফলে লিগে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়া থেকে বঞ্চিত হলো স্প্যানিশ জায়ান্টরা।

বার্সার সাথে প্রথম জয় ১৯৬৪ সালে। দ্বিতীয় জয়ের জন্য লেভান্তেকে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৫৪ বছর। গেলো বছর গুলোতে মেসি-সুয়ারেজদের দলের বিপক্ষে কোন রকমের প্রতিরোধ গড়তে পারেনি স্প্যানিশ লিগের নিচের সারির এই দলটি। দ্য ভ্যালেন্সিয়া স্টেডিয়ামে বসে থাকা প্রায় ২৩ হাজার ফুটবল ভক্তরাও হয়তো মাঠে প্রবেশ করার সময় বুঝতে পারেনি ইতিহাস করবে লেবান্তে। বার্সাকে হারাবে ৫-৪ গোলের ব্যবধানে।

রাতে শুরুটা করেছিলো বোয়াটিং। ৯ ও ৩০ মিনিটে বার্সার জালে বল জড়িয়ে আনন্দে ভাসিয়েছিলো দলকে।

৩৮ মিনিটে কাতালানদের ম্যাচে ফেরান কুতিনহো। বার্সেলোনার প্রথমার্ধ শেষ হয় ২-১ গোলে পিছিয়ে থেকেই।

দ্বিতীয়ার্ধে আরো দুর্বার লেভান্তে। ৪৬ মিনিটে এনিচের স্কোরে ৩-১ গোলের লিড দলটির। ৪৯ মিনিটে নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেন বোয়াটিং। ৫৬ মিনিটে  বার্সার জালে আবারো বল জড়ায় এনিচ। মেসি বিহিন বার্সা পিছিয়ে পরে ৫-১ গোলে।  

৫৯ মিনিটে নিজের জাত চেনান কুতিনহো। ব্যবধান কমে বার্সার। ৬৪ মিনিটে আবারো ব্যবধান কমিয়ে হ্যাটট্রিক করেন কুতিনহো।

৭১ মিনিটে স্পট কিক থেকে লুইস সুয়ারেজের স্কোরে কিছুটা স্বস্তি পেয়েছিলো বার্সা সমর্থকরা। ম্যাচ না হারলেও ড্র হবে বিশ্বাস ছিলো সমর্থকদের।

ম্যাচের শেষ দশ মিনিট দুই দলের খেলোয়াড়দের অ্যাটাক পাল্টা অ্যাটকে উত্তেজনা বাড়ে বহু গুণ। শেষ পর্যন্ত জালের মুখ দেখেনি বল। তাতেই আর ব্যাবধান বাড়তে পারেনি এনিচ, বোয়াটিংরা। সমতায় ফিরতে ব্যর্থ হয় কুতনহো, সুয়ারেজরা। ফলাফল স্প্যানিশ লিগে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়া হলো না বার্সেলোনার।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কাতারকে হারিয়ে এশিয়ান গেমস ফুটবলের শেষ ষোলতে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক: ২০২২ সালের বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতার। র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে ঢের এগিয়ে। যেখানে কাতার ৯৮তম স্থানে, সেখানে বাংলাদেশ...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is