ঢাকা, শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১ ফাল্গুন ১৪২৫

2019-02-23

, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪০

দশম সংসদে কোরাম সংকটে অপচয় ১২৫ কোটি টাকা

প্রকাশিত: ০৭:১৩ , ১৭ মে ২০১৮ আপডেট: ০৭:১৩ , ১৭ মে ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও দুর্নীতি প্রতিরোধে সংসদের কার্যকরী ভূমিকার ঘাটতি রয়েছে, দুর্নীতি বিরোধী সংস্খা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের গবেষণা প্রতিবেদনে এমনই তথ্য উঠে এসেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে দশম জাতীয় সংসদের ১৪ থেকে ১৮তম অধিবেশনে কোরাম ঘাটতির জন্য অপচয় হয়েছে প্রায় ৩৮ কোটি টাকা। আর সব অধিবেশন মিলিয়ে অপচয় ১২৫ কোটি টাকা। রাজধানীর মাইডাস সেন্টারে টিআইবি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব জানানো হয়।

সংসদীয় গণতন্ত্র চর্চায় জাতীয় সংসদ ও সংসদ সদস্যদের ভূমিকা পর্যালোচনা এবং কার্যকারিতা বাড়াতে অষ্টম জাতীয় সংসদ থেকে ধারাবাহিক পর্যবেক্ষণ করে আসছে টিআইবি। বৃহস্পতিবার সংস্থাটির পক্ষ থেকে দশম সংসদের চর্তুদশ থেকে অষ্টাদশ এই পাঁচ অধিবেশনের তথ্য-উপাত্তসহ প্রতিবেদন তুলে ধরা হয়। এতে বলা হয়েছে, ২০১৭ সালে ঐ পাঁচ অধিবেশনে ৭৬ কার্যদিবসে সময় ব্যয় হয়েছে ২৬০ ঘন্টা। সেসময় সংসদ সদস্যদের উপস্থিতি তুলনামূলকভাবে বাড়লেও মন্ত্রীদের উপস্থিতি হ্রাস পেয়েছিলো। ঐ পাঁচ  অধিবেশনের প্রতিটি কার্যদিবসেই কোরাম সংকটের প্রবণতা ছিলো উলে­খ করে এর ফলে প্রায় ৩৮কোটি টাকা অপচয় হয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয় সংসদের অধিবেশনে আইন প্রণয়নের চাইতে প্রতিপক্ষের সমালোচনায় সময় ব্যয় হয়েছে বেশী। টিআইবি’র ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এডভোকেট সুলতানা কামাল বলেন, সংসদীয় গণতন্ত্রের সুফল এখনো পুরোপুরি পাওয়া যায়নি।

তবে, পাঁচটি অধিবেশনের কোনোটিতেই বিরোধী দল বা সদস্যদের ওয়াক আউট কিংবা সংসদ বর্জন করতে দেখা যায়নি বলে প্রতিবেদনে উলে­খ করা হয়।

 

 

 

 

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

নির্বাচনে খুনী ও দুর্নীতিবাজদের প্রত্যাখান করেছে জনগণ : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কিছু মানুষ নিজেদের ক্ষমতার লোভে সাধারণ মানুষের ভাগ্য নিয়ে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is