ঢাকা, বুধবার, ১৬ জানুয়ারী ২০১৯, ৩ মাঘ ১৪২৫

2019-01-17

, ১০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

বিরল রোগে ভুগছে কিশোরী নাদিয়া

প্রকাশিত: ১০:০৬ , ২৭ মে ২০১৮ আপডেট: ০৯:৩৭ , ২৮ মে ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: রক্তক্ষরণজনিত বিরল রোগে সাত মাস ধরে ভুগছে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার কিশোরী নাদিয়া আক্তার। চোখ, কান, মুখ ও নাক দিয়ে হঠাৎ করেই রক্তক্ষরণ হচ্ছে তার। হারিয়ে ফেলছে জ্ঞান। গত সপ্তাহে নাদিয়াকে ভর্তি করা হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, রোগ নির্নয়ের চেষ্টা চলছে। প্রয়োজনে বিশেষায়িত সেবা দেয়া হবে নাদিয়াকে। এদিকে, নাদিয়ার দরিদ্র বাবা ও মা জানালেন, মেয়েকে সুস্থ করে তুলতে সামর্থ্যের সবটুকু দিয়েই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা।

নাদিয়া আক্তার। ১৬ বছরের এই কিশোরী ভুগছে রক্তক্ষরণজনিত বিরল এক রোগে। হঠাৎ করেই চোখ দিয়ে রক্ত ঝরতে শুরু করে নাদিয়ার। শুধু চোখই নয়, কখনো কান, কখনো নাক আবার কখনো বা মুখ দিয়ে ঝরে রক্ত। আশপাশের অন্য কিশোরীরা যখন ব্যস্ত পড়াশুনা আর ভবিষ্যতের নানা স্বপ্ন নিয়ে, নাদিয়া তখন সময় পার করে অনিশ্চয়তার ঘেরাটোপে।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের ইমাম উদ্দিনের তিন মেয়ের মধ্যে নাদিয়া বড়। গত ৭ মাস ধরে বিরল এই রোগে ভুগছে সে। স্কুলে যাওয়া এখন বন্ধ। চিকিৎসার পেছনে ছুটে বাবাও নিঃস্ব প্রায়। মেয়েকে সুস্থ করে তোলার আশায় দিন পাঁচেক আগে ভর্তি করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। তবে একা একা চিকিৎসার ভার আর বইতে পারছেন না দরিদ্র এই পিতা।

যদিও স্বজন ও প্রতিবেশীরা আশ্বাস দিলেন নাদিয়ার পাশে থাকার।

নাদিয়া কী রোগে আক্রান্ত, তা এখনও নিশ্চিত হতে পারেননি চিকিৎসকরা। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চক্ষু বিভাগের ডাক্তার মুক্তি রানী মিত্র’র তত্ত্বাবধানে চলছে পরীক্ষা-নিরীক্ষা। তত্ত্বাবধায়ক চিকিৎসক জানালেন, সব রিপোর্ট পাওয়ার পর নাদিয়ার রোগ নিয়ে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে বসে পর্যালোচনা করা হবে।

বিরল এই রোগ থেকে সুস্থ জীবনে ফিরে আসুক নাদিয়া, বেড়ে উঠুক স্বাভাবিক ছন্দে, এই প্রত্যাশা নিয়েই এখন দিন কাটছে নাদিয়ার পরিবারের।

 

এই বিভাগের আরো খবর

স্মৃতিশক্তি বাড়ায় নারকেলের পানি

ডেস্ক প্রতিবেদন: যারা হাইপারটেনশনে ভুগছেন তাদের দৈনন্দিন খাদ্যের তালিকায় নারকেলের পানি যোগ করা প্রয়োজন। নারকেলে পটাশিয়ামের মাত্রা বেশি...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is