ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-12-11

, ২ রবিউস সানি ১৪৪০

মেঘনা-গোমতী সেতুকে ঘিরে যানজটের শঙ্কা

প্রকাশিত: ১০:৩১ , ১১ জুন ২০১৮ আপডেট: ১০:৩১ , ১১ জুন ২০১৮

কুমিল্লা প্রতিনিধি: ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ঈদযাত্রায় ভোগান্তির কারণ হয়ে উঠতে পারে মেঘনা-গোমতী সেতুকে ঘিরে যানজট। চারলেনের এই মহাসড়কে থাকা সেতুটির সংযোগ সড়ক দুইলেনের হওয়ায় মাঝেমধ্যেই অপেক্ষমান যানবাহনের দীর্ঘ সারি তৈরী হয়। ঈদের সময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানবাহন চলাচল দ্বিগুণ বেড়ে যাওয়ায় মেঘনা-গোমতী সেতুকে ঘিরে তাই যানজটের শঙ্কা থেকেই যায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে এরইমধ্যে সেখানে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার দাউদকান্দিতে মেঘনা-গোমতী সেতুর সংযোগ সড়ক যথেষ্ট প্রশস্ত না হওয়ায় যানজট তৈরী হয় মাঝেমধ্যেই। যা ঈদের সময়ও ভোগান্তির কারণ হয়ে উঠতে পারে। চারলেন ধরে ছুটে আসা যানবাহনকে এখানে এসে মূলত দুইটি লেনে সেতুতে উঠনামা করতে হয়। ফলে মহাসড়কে যানবাহনের বাড়তি চাপ পড়লে এখানে সৃষ্টি হয় যানজটের। দীর্ঘ হতে থাকে পেছনে থাকা গাড়ির সারি।

এ অবস্থায় ঈদে বাড়ি ফেরায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ভোগান্তির শঙ্কায় রয়েছেন যাত্রী ও চালকরা। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছেন তারা।

তবে মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজার কর্মকর্তা শিকদার মোহাম্মদ ইউনুছ আলী বলছেন, দ্বিতীয় মেঘনা-গোমতী সেতু চালু না হওয়া পর্যন্ত যানজটের এই শঙ্কা রয়েই যায়।

যদিও ঈদের সময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের এই অংশ যানজটমুক্ত রাখতে এরই মধ্যে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ। সেতুর উভয় পাশে দুটি পাবলিক রেকারও প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জানালেন, দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ।

তবে ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নির্বিঘ্ন করতে চালক ও যাত্রীদের সহযোগিতাও জরুরী বলে জানিয়েছে প্রশাসন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

তাবলীগের দু’পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া; বিমানবন্দর সড়কে যানজট

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ঢাকার বিমানবন্দর সড়কে তাবলীগ জামাতের দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। টঙ্গীসহ এয়ারর্পোট এলাকা জুড়ে...

বি.বাড়িয়ায় মনগড়া বিদ্যুৎ বিলে ভোগান্তিতে গ্রাহকরা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিদ্যুৎ বিভাগের মনগড়া বিলের কারণে ভোগান্তিতে পড়েছেন গ্রাহকরা। তারা বলছেন, মিটার রিডিং না করেই...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is