ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-12-14

, ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

রমজানে সেহরিতেও হোটেল-রেঁস্তোরায় ভীড়

প্রকাশিত: ১০:২৮ , ১৩ জুন ২০১৮ আপডেট: ১১:৪৩ , ১৩ জুন ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : একদিকে ইফতার বাণিজ্য বড় হয়েছে, অন্যদিকে নতুন যোগ হয়েছে সেহরি বাণিজ্য। গত কয়েক বছর সেহরি পার্টি নামে দলবেধে মজা করে ভোররাতে খাবার এক সংস্কৃতি গড়ে উঠছে রোজার মাসে।  ফলে ভোর রাত পর্যন্ত হোটেল ও রেস্তোরায় ভীড় থাকছে। অনেকে পরিবার নিয়ে, অনেকে বন্ধ- বান্ধব মিলে উৎসবের আমেজে সেহরি খাচ্ছেন ঘরের বাইরে।

ইফতারের পর নগরীর খাবারের দোকানগুলোতে বাণিজ্য আর তেমন জমতো না এই ক’বছর আগেও। সেই বাস্তবতা পাল্টে যাচ্ছে। ভোর রাত অব্দি ভীড় থাকে ভোক্তাদের। মধ্যরাত থেকে খানিকটা অলস আড্ডায় ও মেতে ওঠেন অনেকে, সেহরি খেয়ে বাসায় ফেরেন ভোরে।

পুরান ঢাকার হোটেল আল রাজ্জাকে সেহরি খেতে আসা মানুষের এমন ভীড় জমে মধ্যরাত থেকে। নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে নানা বয়সী মানুষ আসে এখানে।

নগরীর একঘেয়েমী জীবন থেকে খানিকটা পরিত্রান পেতে স্বপরিবারে সবান্ধব সেহরি খেতে আসেন অনেকে। আবার অনেকে পরিবারের সাথে ইফতার করার সুযোগ না পাওয়ায়  সেহরিকেই বেছে নেন সুযোগ হিসেবে।

রাজধানীর প্রায় সাড়ে তিন হাজার হোটেল ও রেস্তোরায় হয় এই সেহির আয়োজন। বিলাসবহুল হোটেল, রেস্তোরা, ক্লাবগুলোও এই বাণিজ্যে ব্যস্ত সময় কাটায় সারারাত ধরে।  

সারা রাত খোলা থাকা কিছু খাবারের দোকানে সেহরি খাওয়ার দৃশ্য পুরোনে। কিন্তু ঘটা করে, উৎসবের আবহে সেহরীর এমন আয়োজন নতুন চর্চা, শুরু মাত্র বিগত বছর পাঁচেক ধরে।

অনেকে বিভিন্ন রেঁস্তোরা ভাড়া করে নিজেদের পছন্দমত খাবার দিয়ে এসব সেহরি পার্টির আয়োজন করছেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। মহান মুক্তিযুদ্ধের একেবারে শেষভাগে এসে যখন বিজয়ের সূর্য্য উঁকি দিচ্ছিলো তখনই একাত্তরের এই...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is