ঢাকা, রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮, ১০ আষাঢ় ১৪২৫

2018-06-22

, ৮ শাউয়াল ১৪৩৯

জাপানে আঠারোয় বিয়ে, তবে ‘বিশের আগে সন্তান নয়’

প্রকাশিত: ০১:৪৩ , ১৪ জুন ২০১৮ আপডেট: ০১:৪৩ , ১৪ জুন ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জাপানে নতুন আইনে ১৮ বছর বয়সী নাগরিকরা প্রাপ্তবয়স্কের স্বীকৃতি পেলেও বিশের আগে কোনো নারী সন্তান নিতে পারবেন না। নতুন এই আইন কার্যকর হবে ২০২২ সালে।

এরআগে ২০ বছর বয়সী নাগরিকদের প্রাপ্তবয়স্কের স্বীকৃতি ছিল।

নতুন আইনে বলা হয়েছে, ১৮ বছর বয়সে প্রাপ্তবয়স্ক হলেও ২০ বছর হওয়ার আগে সন্তান ধারণ করতে পারবেন না কোন নারী।  দেশটির আইনে ১৮৭৬ সালের পরে এই প্রথম সাবালক হওয়ার বয়স পরিবর্তন করা হলো।  

নতুন আইনে জাপানের নাগরিকরা বাবা-মায়ের অনুমতি ছাড়াই এখন বিয়ে করতে পারবেন। বিদ্যমান আইনে জাপানে ১৮ বছরের তরুণী এবং ১৬ বছরের কিশোরী শুধু তাঁদের মা-বাবার অনুমতিতেই বিয়ে করতে পারেন। অন্যথায় তাঁদের ২০ বছর বয়স পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।  

কিন্তু সংশোধিত আইনে বিয়ের বয়স বাড়িয়ে ১৮ বছর করা হয়েছে এবং এ বয়সে তাঁরা বাবা-মায়ের অনুমতি ছাড়া বিয়ে করতে পারবেন। 

নতুন আইনে তাঁরা বাবা-মায়ের হস্তক্ষেপ ছাড়াই ক্রেডিট কার্ডে ঋণ নিতে পারবেন এবং তাঁরা যদি চান তাহলে ১০ বছর মেয়াদে পাসপোর্টও করে নিতে পারবেন। বর্তমানে বাবা-মায়ের অনুমতিক্রমে এই মেয়াদ পাঁচ বছরের। 

এদিকে, জাপানে যারা লিঙ্গ পরিচয়ে ভুগছে, ১৮ বছর বয়সের মধ্যেই তাঁরা কোন লিঙ্গের অন্তর্ভুক্ত হতে চায়, সেটি আইনানুগভাবে নির্ধারণ করতে হবে।
১৮ বছরের প্রাপ্তবয়স্ক হওয়া সত্ত্বেও এই বয়সে কোনো জাপানি অ্যালকোহল, ধূমপান, জুয়া এবং সন্তানধারণ করতে পারবেন না। সন্তান নেওয়ার জন্য তাঁদের ২০ বছর বয়স পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। কিন্তু নতুন এই আইনের সমালোচনা করেছে অনেক সামাজিক সংগঠন।
 

এই বিভাগের আরো খবর

ঘরে তৈরি করুন “চিজ কেক” 

ডেস্ক প্রতিবেদন: চিজ কেক এখন অনেকেরই পছন্দের খাবার। এই খাবারটি সকলের পছন্দ হওয়ার মত। চিজ কেক দুই ধরনের হতে পারে। বেকড চিজ কেক এবং চিলড চিজ...

সেমাই দিয়ে শুরু হোক ঈদের সকাল

ডেস্ক প্রতিবেদন: ঈদ মানেই আনন্দ। ঈদ মানেই হাসি-খুশি। মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব হচ্ছে ঈদ। পবিত্র রমজান মাসের  তিরিশ দিন রোজা শেষে ঈদের...

পাকা চুল কালো করার ঘরোয়া উপায়

অনলাইন ডেস্ক: চুল পাকার বয়স এখনও হয়নি, তবুও চুলে হালকা পাক ধরেছে? তা হলে উপায়? এখন তো নানা ধরনের হেয়ার কালার পাওয়া যায়। প্রয়োজনে ব্যবহার করতেই...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is