ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ জুলাই ২০১৮, ২ শ্রাবণ ১৪২৫

2018-07-16

, ৩ জিলকদ্দ ১৪৩৯

না ফেরার দেশে অভিনেত্রী রানী সরকার

প্রকাশিত: ০১:৪৬ , ০৭ জুলাই ২০১৮ আপডেট: ১২:১৬ , ০৮ জুলাই ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাতীয় পুরস্কার বিজয়ী ষাট ও সত্তর দশকের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রানী সরকার আর নেই। শনিবার ভোর ৪টার দিকে রাজধানীর বেসরকারি একটি হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বার্ধক্যজনিত কারণে তিনি মারা গেছেন বলে জানা গেছে। এছাড়াও পিত্তথলির পাথর, বাতজ্বর, জটিল কোলেলিথিয়েসিস রোগসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন এই অভিনেত্রী।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান খবরটি নিশ্চিত করে বললেন, ‘তাকে হারানোটা আমাদের বিশাল ক্ষতি। গুণী এ অভিনেত্রীর ইচ্ছে ছিল, বিএফডিসিতে যেন তাকে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়। আমরা তাকে সেভাবেই শ্র্রদ্ধা জানাবো।’ তিনি জানান, আজ দুপুরে বিএফডিসিতে জানাজার আয়োজন করা হচ্ছে। বাদ আসর আজিমপুর কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।

রানী সরকারের আসল নাম মোসাম্মৎ আমিরুন নেসা খানম। জন্ম সাতক্ষীরা জেলার কালীগঞ্জ থানার সোনাতলা গ্রামে। ১৯৫৮ সালে রানী সরকারের চলচ্চিত্রে অভিষেক হয়। প্রথম ছবি হলো এ জে কারদার পরিচালিত ‘দূর হ্যায় সুখ কা গাঁও’। ১৯৬২ সালে বিখ্যাত চলচ্চিত্রকার এহতেশামুর রহমান পরিচালিত উর্দু চলচ্চিত্র ‘চান্দা’তে অভিনয় করেন।
‘দূর হ্যায় সুখ কা গাঁও’, ‘চান্দা’, ‘তালাশ’র মতো জনপ্রিয় উর্দু সিনেমায় কাজ করার পাশাপাশি রানী সরকার সমৃদ্ধ করেছেন বাংলা সিনেমাকে। ‘কাচের দেয়াল’, ‘বেহুলা’, ‘আনোয়ারা’, ‘চোখের জল’, ‘নাচের পুতুল’ তার অভিনীত জনপ্রিয় বাংলা সিনেমা। মোহাম্মাদপুরের শেখেরটেক এলাকায় তার ভাইয়ের বউ ও ভাইয়ের দুই মেয়েসহ দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছিলেন তিনি।
২০১৬ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হন তিনি। একই বছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে ২০ লাখ টাকা অর্থ সহায়তা দেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়া কিশোরদের নিয়ে সিনেমা হবে হলিউডে

বিনোদন ডেস্ক: থাইল্যান্ডের উত্তরাঞ্চলের জলমগ্ন গুহায় স্থানীয় ফুটবল দল ‘ওয়াইল্ড বোয়া’র দীর্ঘ আটকাবস্থা ও উদ্ধার অভিযান আলোচিত হয়েছে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is