ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ৮ কার্তিক ১৪২৫

2018-10-23

, ১২ সফর ১৪৪০

বিশ্বের সবচেয়ে ছোট কম্পিউটার চালের চেয়েও ছোট

প্রকাশিত: ১০:১৭ , ২০ জুলাই ২০১৮ আপডেট: ১০:১৭ , ২০ জুলাই ২০১৮

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষদ্র কম্পিউটার তৈরি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা। ‘মিশিগান মাইক্রো মোট’ নামের এ ডিভাইসটির আকার মাত্র দশমিক তিন মিলিমিটার (০.৩ )। যা একটি চালের দানার চেয়েও অনেক ছোট। এটি ক্যানসার পর্যবেক্ষণ ও চিকিৎসায় নতুন সম্ভাবনার পথ খুলে দেবে বলে মনে করছেন গবেষকেরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এই প্রকল্পটির অন্যতম প্রধান গবেষক প্রফেসর ডেভিড ব্রাউ বলেন, ‘আমরা ১০ গুণ ক্ষুদ্রাকৃতির ডিভাইস তৈরি করেছি, এটি যেকোনো ক্ষুদ্র স্থানে স্থাপনে করা যাবে।’  ব্রাউ আরও জানান, ‘আমরা মূলত নতুন উপায়ে সার্কিট ডিজাইন উদ্ভাবন করেছি, যা সমান কম শক্তিতে চলবে কিন্তু সহনীয় ক্ষমতা বেশি হবে।’

২০১৫ সালে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষুদ্রাকৃতির কম্পিউটার বানিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়ে মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। এ বছরের মার্চে সেই রেকর্ড ভেঙে দেয় আইবিএম। এবার তার চেয়েও ক্ষুদ্রাকৃতির ডিভাইস তৈরি হওয়া মানে নতুন উপায়ের চেষ্টা বিজ্ঞানীদের চলছেই।

ব্লাউ বলেন, একে কম্পিউটার বলা যাবে কি না তা আমরা নিশ্চিত নই। এটি মতামতের ওপর নির্ভর করে। কম্পিউটার হতে গেলে যে ফাংশন থাকার কথা, তা আছে কি না, সে বিষয়টি মতামতসাপেক্ষ। র‍্যাম ও ফটোভল্টাইকসসহ এ কম্পিউটিং ডিভাইসে প্রসেসর, তারহীন ট্রান্সমিটার ও রিসিভার রয়েছে। যেহেতু এতে প্রচলিত রেডিও অ্যানটেনা নেই এটি দৃশ্যমান আলোর সাহায্যে তথ্য আদান-প্রদান করে। একটি বেজ স্টেশন শক্তি ও প্রোগ্রামের জন্য আলো সরবরাহ করে এবং তথ্য গ্রহণ করে।

সবচেয়ে ক্ষুদ্র কম্পিউটার তৈরির এই সফলতা বিশ্বব্যাপী গবেষকদের জন্য অনেকগুলো ক্ষেত্রে উন্নত গবেষণার দরজা খুলে দিতে পারে। মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যমতে, ক্ষুদ্র ডিভাইসটিকে মানুষের চোখের অভ্যন্তরে প্রেসার-সেন্সিং কাজে, ক্যানসার গবেষণা, বায়োকেমিক্যাল প্রক্রিয়া পর্যবেক্ষণসহ নানা ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে।
সূত্র : সিনেট

এই বিভাগের আরো খবর

আসুসের নতুন ল্যাপটপ বাজারে

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: দেশের বাজারে ভিভোবুক এস ৫৩০ নামে নতুন ল্যাপটপ আনল তাইওয়ানের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আসুস। এস সিরিজের এই ল্যাপটপে...

সৌরজগৎ ছাড়িয়ে যাচ্ছে ভয়েজার-২

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: ১৯৭৭ থেকে ২০১৮ সাল, ৪১ বছর ধরে কাজ করে এবার সৌরজগৎ ছেড়ে ইন্টারস্টেলার স্পেসে ঢুকতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is