ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ৩ কার্তিক ১৪২৫

2018-10-18

, ৭ সফর ১৪৪০

বর্জ্য ও রাসায়নিকে বিষাক্ত হাজারীবাগের মাটি 

প্রকাশিত: ১২:১০ , ১০ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ০২:৩৫ , ১০ আগস্ট ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ট্যানারির বর্জ্য ও রাসায়নিক মিশে রাজধানীর হাজারীবাগের মাটি বিষাক্ত হয়ে পড়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের এক গবেষণায় উঠে আসে এমন তথ্য ।

সম্প্রতি হাজারীবাগের মাটি ও পানি নিয়ে গবেষণা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের তরুণ শিক্ষক রাব্বি হোসেন। এই গবেষণায় হাজারীবাগের মাটিতে বিষাক্ত ক্রোমিয়ামের পরিমাণ পাওয়া গেছে স্বাভাবিকের চেয়ে শত শতগুণ বেশি। যা পানিসহ বিভিন্ন উপাদানের সাথে মিশে মানুষের শরীরে প্রবেশ করছে।

এদিকে, ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও জীবিকা নির্বাহের তাগিদে ট্যানারিতে কাজ করেন সেখানকার শ্রমিকরা। ট্যানারির বর্জ্য ও রাসায়নিকের কারণে নানা রোগ বাসা বাঁধছে শ্রমিকদের শরীরেও। চর্মরোগসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শ্রমিকরা।

ঢাকার হাজারীবাগে ট্যানারি বা চামড়া শিল্পের যাত্রা শুরু হয় ১৯৫৪ সালে। ছয় দশকেরও বেশি সময় ধরে এখানে চামড়া প্রক্রিয়াজাত করা হয়েছে। ৩০ বছর ধরে ট্যানারিতে কাজ করেন বেলাল হোসেন নামের এক শ্রমিক। তিনি ভোগছেন নানা রোগে। তার মতো ট্যানারি শিল্পের অনেক শ্রমিকের শরীরেই বাসা বেঁধেছে নানান জটিল রোগ। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, শরীরে অতিমাত্রায় ক্রোমিয়াম প্রবেশ করলে চর্মরোগ, কিডনি রোগ, ক্যান্সার, নিউমোনিয়া, অ্যাজমা, আলসার, কাশিসহ নানা রোগের ঝুঁকি বাড়ে। শিশু স্বাস্থ্যের জন্য এই রাসায়ানিক পদার্থ আরও বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। 

বিষাক্ত এই পদার্থ যতই মাটির গভীরে যাবে স্বাস্থ্য ঝুঁকি ততই বাড়বে বলেও মনে করেন তিনি। 
পরিবেশের ওপরও এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে বলে জানান পরিবেশবিদরা।

এখানকার মাটিকে বিষমুক্ত করতে বিশেষ এক ধরনের গাছ লাগানোসহ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার পরামর্শ দেন পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা। 

এই বিভাগের আরো খবর

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

ডেস্ক প্রতিবেদন: কিংবদন্তি ব্যান্ড তারকা আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ...

২০ দলীয় জোট ভাঙ্গেনি- দাবি বিএনপির

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপি নেতৃত্বাধীন বিশ দলীয় জোটে ভাঙ্গেনি, জোট অটুট রয়েছে বলে দাবি করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is