ঢাকা, বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৮ ফাল্গুন ১৪২৫

2019-02-20

, ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪০

২৬ দখলদারের কাছে জিম্মি ডিএনডি সেচ প্রকল্প এলাকা

প্রকাশিত: ০৯:৪২ , ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ১১:৩২ , ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ সদরের-ডিএনডি সেচ প্রকল্প এলাকায় ২৬ দখলদারদের হাতে জিম্মি প্রায় ২২ লাখ মানুষ। অবৈধ এসব স্থাপনার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাজে ব্যাঘাত ঘটার পাশাপাশি, বাধাগ্রস্থ হচ্ছে বিভিন্ন কল-কারখানার বর্জ্য নিষ্কাশন।

১৯৬২ সালে কৃষি জমিতে সেচ এবং উদ্ধৃত্ত পানি নিষ্কাশনের জন্য গড়ে তোলা হয় ডিএনডি প্রকল্প। আর ১৯৭১ সালে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ জেলার অংশ বিশেষ নিয়ে ডিএনডি সেচ প্রকল্প এলাকা অন্তর্ভুক্ত হয়। তবে, অপরিকল্পিতভাবে নবায়নের ফলে সেচ কার্যক্রম হ্রাস পেতে থাকে। দিন দিন সেচ এলাকায় গড়ে উঠে বাড়িঘর শিল্পকারখানা।

এদিকে, ডিএনডির বেশ কিছু অংশ দখল করে স্থাপনা গড়ে তুলেছে ২৬ দখলদাররা। ফলে দখলকারীদের হাতে জিম্মি প্রায় ২২ লাখ মানুষ।

এসব অবৈধ স্থাপনার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাজে ব্যঘাতের পাশাপাশি বাধাগ্রস্থ হচ্ছে বিভিন্ন কল কারখানার বর্জ্য নিষ্কাশন।

এদিকে, দখলদাররা তাদের স্থাপনাগুলো ভেঙে না ফেলার জন্য হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছে। আর এজন্য বিভিন্ন মেয়াদে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে হাইকোর্ট।  

জেলা প্রশাসক জানালেন প্রকল্পের আওতায় ৯৪ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য খালের মধ্যে ৫৪ কিলোমিটার এরইমধ্যে বুঝে নেয়া হয়েছে।

স্বাভাবিকভাবে কাজ এগিয়ে গেলে আগামী বছর জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত হয়ে ২০২০ সালে ডিএনডিবাসী আধুনিক নগরীতে বসবাস করতে পারবে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

গ্যাসের অভাবে রাজধানীতে দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : পূর্ব ঘোষণা ছাড়া সকাল থেকে হঠাৎ করেই গ্যাস নেই সাভার থেকে রাজধানীর আজিমপুর পর্যন্ত এলাকায়। এক নোটিশে তিতাস কর্তৃপক্ষ...

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল আংশিক সচল, অগ্নিকাণ্ড একটি সতর্ক সংকেত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : অগ্নিকান্ডের প্রেক্ষিতে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা সাময়িক বন্ধ থাকার পর আবারো চালু হয়েছে।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is