ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ৫ পৌষ ১৪২৫

2018-12-19

, ১০ রবিউস সানি ১৪৪০

নেকড়ে কুকুরের দেহাবশেষ ধারণা দেবে বরফ যুগের 

প্রকাশিত: ১০:২০ , ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ১০:২২ , ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: কানাডার উত্তরাঞ্চলে পাওয়া নেকড়ে কুকুর ও কারিবুর দেহাবশেষ থেকে ৫০ হাজার বছর আগের বরফ যুগের ধারণা পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা। সেসময়ে এলাকার পরিবেশ, জীবনযাত্রা সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যেতে পারে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালে ইউকন এলাকার ডসন শহরের কাছে খনি শ্রমিকরা এ নেকড়ে কুকুর ও কারিবুর  দেহাবশেষের সন্ধান পান। উদ্ধারের সময়ও মমিতে পরিণত হওয়া প্রাণী দুটোর চুল, চামড়া ও  পেশির টিস্যু অক্ষত ছিল। গবেষণা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য পরে এগুলো জীবাশ্মবিদদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বিশ্বের বিভিন্ন এলাকায় সন্ধান পাওয়া স্তন্যপায়ী প্রাণীর কোমল টিস্যুর মধ্যে মমিতে পরিণত হওয়া এ দুটো প্রাণীর দেহাবশেষই সবচেয়ে পুরনো, ধারণা জীবাশ্মবিদ গ্রান্ট জাজুলার। মমিতে পরিণত হওয়া  নেকড়ে কুকুরটি মৃত্যুর সময় আট সপ্তাহ বয়সী ছিল বলেও অনুমান করছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার সংকাদ সংস্থা কানাডিয়ান প্রেসকে জাজুলার বলেন, “এটা চমৎকার, এর পশম,  ছোট সুন্দর থাবা ও  লেজ, বাঁকানো উপরের  ঠোটে দাঁতও  দেখা যাচ্ছে; এটা অপূর্ব।”

উত্তর আমেরিকার বড় বল্গা হরিণ প্রজাতির প্রাণী কারিবুটির  দেহাবশেষে ছিল কাঁধ  থেকে  কোমর পর্যন্ত অংশ, মাথা ও সামনের বাহুগুলো।

নেকড়ে কুকুর ও কারিবুর  দেহাবশেষ দুটো ডসন শহরে প্রদর্শনীর জন্য রাখা হয়েছে। দ্রুতই  সেগুলোকে অটোয়ার কাছের কনজারভেশন ইনস্টিটিউটে পাঠানো হবে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।
তাদের আশা, বরফ যুগের আবহাওয়ায় প্রাণীরা কিভাবে বেঁচে থাকতো, মমিতে পরিণত হওয়া  দেহাবশেষ দুটি সে বিষয়ে বিজ্ঞানীদের নানা ধরনের  কৌতুহল  মেটাবে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

চার্জ ফুরাবেনা ব্যাটারির!

ডেস্ক প্রতিবেদন: বর্তমানে বাজারে বেশিরভাগ ব্যাটারি সাধারণত লিথিয়াম আয়নভিত্তিক। তাই একবারে খুব বেশি চার্জ ধরে রাখতে পারে না।...

চিতার চেয়ে ৫ গুণ দ্রুততম যে প্রাণী

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: পৃথিবীর দ্রুততম প্রাণী চিতা বলেই জানে সবাই। কিন্তু চিতার চেয়েও প্রায় পাঁচ গুণ দ্রুততম এক প্রণীর সন্ধান দিলেন...

সৌরজগৎ পার করল ‘ভয়েজার-২’

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: ৪১ বছর পর ইন্টারস্টেলার স্পেসে ঢুকতে পেরেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার তৈরি নভোযান...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is