ঢাকা, বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৮ ফাল্গুন ১৪২৫

2019-02-20

, ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪০

বগুড়ায় নাম সর্বস্ব ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দৌরাত্ম

প্রকাশিত: ১০:৫৫ , ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ১০:৫৫ , ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়া শহরের অলিগলিতে গড়ে উঠেছে নাম সর্বস্ব ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার। অনুমোদনবিহীন এসব চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রে ভুল চিকিৎসার অভিযোগ পাওয়া যায় প্রায়ই। এছাড়া টাকার জন্য রোগী ও তাদের স্বজনদের করা হচ্ছে হেনেস্তা। ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা-নিরীক্ষার মান নিয়েও অভিযোগ উঠছে হর-হামেশাই। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের নজরদারির অভাবকে দূষছেন ভুক্তভোগীরা। তবে নজরদারি শুরুর কথা জানালেন জেলা সিভিল সার্জন।

বগুড়া জেলায় অনুমোদন নেই এমন ক্লিনিকের সংখ্যা একশ’রও বেশি। আর প্যাথলজি ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের সংখ্যা পাঁচশ’র ওপরে। অনুমোদনবিহীন ও মানহীন এসব ক্লিনিকে প্রায়ই ভুল চিকিৎসার অভিযোগ পাওয়া যায়। গেলো ১৮ জুলাই শহরে ডলফিন ক্লিনিক এন্ড ডায়াগোনস্টিক সেন্টারে অ্যাপেন্ডিক্স অপারেশন করতে গিয়ে সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রের মৃত্যু ঘটে।

এর আগে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার দু’টি ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় দু’জন রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া টাকার জন্য রোগীর স্বজনদের মারধরের অভিযোগ রয়েছে ক্লিনিকগুলোর বিরুদ্ধে।

এদিকে, বিভিন্ন অবৈধ ক্লিনিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানার পরও অবৈধ কর্মকাণ্ড ঠেকানো যাচ্ছেনা। তাই মানহীন এসব ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়ার পক্ষে ক্লিনিক মালিক সমিতি।

ইতোমধ্যে যৌথভাবে জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্যবিভাগ অনুমোদনবিহীন ও মানহীন ক্লিনিক ও ডায়াগনেস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে বলে জানালেন জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার শামসুল হক।

সিভিল সার্জনের তথ্যমতে, বগুড়া জেলায় ১৮০টি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের রেজিস্ট্রেশন রয়েছে। তবে অবৈধ ক্লিনিকগুলো বন্ধে সরকারের নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ ভুক্তভোগী ও সাধারণ মানুষের।

 

এই বিভাগের আরো খবর

গ্যাসের অভাবে রাজধানীতে দুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : পূর্ব ঘোষণা ছাড়া সকাল থেকে হঠাৎ করেই গ্যাস নেই সাভার থেকে রাজধানীর আজিমপুর পর্যন্ত এলাকায়। এক নোটিশে তিতাস কর্তৃপক্ষ...

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল আংশিক সচল, অগ্নিকাণ্ড একটি সতর্ক সংকেত: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : অগ্নিকান্ডের প্রেক্ষিতে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা সাময়িক বন্ধ থাকার পর আবারো চালু হয়েছে।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is