ঢাকা, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

2019-07-23

, ২০ জিলকদ ১৪৪০

পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ

প্রকাশিত: ০৮:৫৩ , ০৭ নভেম্বর ২০১৮ আপডেট: ১২:৩৪ , ০৭ নভেম্বর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিভাগীয় নির্বাচনী আসন গুলোতে, হোক তা শহরে কিংবা প্রত্যন্ত অঞ্চলে, পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে এরই মধ্যে। কর্মব্যস্ত মানুষের দিনান্তেও আলোচনায় থাকে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গ। তবে বিএনপির কোন প্রচার প্রচারণা না থাকায় এখন শুধু ক্ষমতাসীন দলের আগ্রহী প্রার্থীদের নিয়েই ভোটারদের মধ্যে যোগ্যতা-অযোগ্যতার চুল চেরা বিশ্লেষণ চলছে। প্রতিটি আসনেই ক্ষমতাসীন দলের বহু প্রার্থীর ভিড়ে এখন বিভক্ত খোদ সরকার সমর্থক দলের কর্মী-সমর্থকরাও।

রাজাধানী ও আশাপাশের এলাকা থেকে শুরু করে প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত ছেয়ে গেছে বড় ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যানার পোষ্টারে। সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে সর্বত্রই চোখে পড়ছে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে আগ্রহীদের প্রচার। তারা খুলে বসেছেন নতুন নতুন রাজনৈতিক কার্যালয়ও। সেখানে প্রতি নিয়তই থাকছে মানুষের আনাগোনা। তবে এই যাত্রায় একেবাইরে অনুপস্থিত বিএনপি বা অন্য রাজনৈতিক দলগুলো।

সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ তুলে ধরে প্রচার চালাচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। তারা মাঠ পর্যায়ের পাশাপাশি বিভিন্ন এলাকার কর্মকান্ডের চিত্র তুলে ধরছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও।
 
এদিকে সাধারণ ভোটাররা বলছেন, যোগ্য প্রার্থীদের বেছে নিতে চান তারা। এখন রাজনৈতিক দলগুলোর প্রার্থী বাছাইয়ের ওপর নির্ভর করবে কাকে ভোট দিতে হবে তাদেরকে। তবে অপেক্ষাকৃত তরুণ প্রার্থীদের প্রতি আগ্রহ বেশি ফরিদপুর ও রাজবাড়ীর একাধিক আসনের ভোটার ও নেতাকর্মীরা।  

ভোটকে উৎসবের উপলক্ষ হিসেবে দেখতে চায় বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষও। কর্মক্লান্ত মানুষের দিন শেষে অবসরের আড্ডায় এখন তাই আলোচনার মূল বিষয় আসছে ভোটের রাজনীতি। অনেকেই জানালেন শুধু প্রতীক দেখে নয়, তারা ভোট দিতে চান যোগ্য প্রার্থী দেখে।

তবে কয়েকটি জেলার অনেক সাধারণ ভোটার খোলাখুলিই বললেন সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড এবার হবে বড় বিবেচনার বিষয়।  

অপর দিকে মাঠে প্রচারনায় না থাকলেও সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বিএনপির নেতারা বলছেন, মানুষ সুযোগ পেলেই সরকারি দলকে প্রত্যাখান করে তাদের বেছে নেবে। তৃণমূলে নানা কৌশলে প্রচার কাজ চালাচ্ছেন তারা।  

আওয়ামী লীগের মত শক্ত ভাবে অন্য কোন দলকে ভোটের মাঠে না দেখে নির্বাচন অনুষ্ঠান নিয়ে এখনও সংশয় আছে অনেকের মাঝে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কাপ্তাই হ্রদ সৃষ্টির পরই কৃষিবাণিজ্য সম্প্রসারিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: পাহাড়ী এলাকা বিচিত্র কৃষিপণ্য উৎপাদনের বিশাল ক্ষেত্র হলেও সেখানের ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে কৃষি বাণিজ্যের ধারণা...

উচ্চ ফলনের তাগিদ ছিল না, কৃষি উন্নয়নে হয়নি গবেষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৩ সহস্রাধিক বর্গ কিলোমিটারের পার্বত্য চট্টগ্রাম ১৮৬০ সাল পর্যন্ত পরিচিত ছিল কোরপস নামে। ১৩০ বছর আগে এখানকার লোকসংখ্যা...

চাহিদার তুলনায় অর্ধেক সবজি উৎপাদন

নিজস্ব প্রতিবেদক: এক দশকে উৎপাদন দ্বিগুণ হলেও চাহিদার তুলনায় অর্ধেক সবজি উৎপাদন হচ্ছে প্রতি বছর। দুর্বলতা ও সীমাবদ্ধতাগুলো দূর করে চাষের...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is