ঢাকা, রবিবার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-24

, ২২ জিলহজ্জ ১৪৪০

এবছর ৬০০ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান পাবে ভারতের শিক্ষা বৃত্তি

প্রকাশিত: ০৩:১০ , ৩০ এপ্রিল ২০১৭ আপডেট: ০৩:১০ , ৩০ এপ্রিল ২০১৭

কূটনৈতিক প্রতিবেদক: এবছর মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের মধ্যে ৬০০ আন্ডার-গ্রাজুয়েট ছাত্র-ছাত্রীকে বৃত্তি প্রদান করবে ভারত সরকার। এর মধ্যে, চট্টগ্রামের ৪৮ জন মুক্তিযোদ্ধার উত্তরাধিকারীদেরকে বৃত্তি প্রদান করা হবে। এ ছাড়া নতুন মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি স্কিমের আওতায় আরো দশ হাজার ছাত্র-ছাত্রীকে ৩৫ কোটি রুপি মূল্যমানের বৃত্তি প্রদান করা হবে।

গতকাল শনিবার চট্টগ্রামের থিয়েটার ইন্সটিটিউটে মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে ঢাকায় ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা একথা জানান।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. রুহুল আমিন, চট্টগ্রামে ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার সোমনাথ হালদার ও ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনের প্রতিরক্ষা উপদেষ্টা ব্রিগেডিয়ার জে. এস. নন্দা।

হাইকমিশনার জানান, ভারতীয় সরকার ২০১৬ সালে মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি প্রদান স্কিম শুরু করেছিল মুক্তিযোদ্ধাদের উত্তরাধিকারীদের জন্য। এখন পর্যন্ত দশ হাজারেরও বেশী পনের কোটি টাকার মূল্যমানের বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সাম্প্রতিক ভারত সফরের সময়, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদ ভারতীয় সেনাদের সম্মানিত করার জন্যে  কৃতজ্ঞতা জানান হাই কমিশনার হর্ষবর্ধণ শ্রীংলা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফরের সময়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মুক্তিযোদ্ধাদের জন্যে তিনটি নতুন কল্যাণমূলক পরিকল্পনা ঘোষণা করেছেন বলে জানান হাই কমিশনার। এগুলো হলো: (ক) সব মুক্তিযোদ্ধাগণ পাঁচ বছরের ভারতীয় মাল্টিপল এন্ট্রি ভিসা পাবার জন্য যোগ্য হবেন; (খ) প্রত্যেক বছর একশ জন মুক্তিযোদ্ধাকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে ও নতুন মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি স্কিমের আওতায় আরো দশ হাজার ছাত্র-ছাত্রীকে ৩৫ কোটি রুপি মূল্যমানের বৃত্তি প্রদান করা হবে।

হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা আরো জানান, নতুন স্কিমের আওতায়, উচ্চমাধ্যমিক ছাত্র-ছাত্রীরা একবারে বিশ হাজার টাকা এবং যারা নিম্ন গ্রাজুয়েট স্তরের আছে তারা পাবে পঞ্চাশ হাজার টাকা।
আর, নতুন স্কিমের আওতায়, উচ্চমাধ্যমিক ছাত্র-ছাত্রীরা একবারে বিশ হাজার টাকা এবং যারা আন্ডার গ্রাজুয়েট স্তরের আছে তারা পাবে পঞ্চাশ হাজার টাকা।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এই উদ্যোগের ঘোষণা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি ভারতের জনগণের দৃঢ় বন্ধনের বহিঃপ্রকাশ।

হাই কমিশনার বলেন, বাংলাদেশের মুক্তির জন্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা আর ভারতীয় সেনারা একসাথে রক্ত দিয়েছিল। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে একটি শক্তিশালী সম্পর্কের বীজ বপন করেছিলেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে এই সম্পর্ক আরো নতুন উচ্চতায় পৌঁছে গেছে। ভারতীয় হাইকমিশনার আশা করেন, দু’দেশের সম্পর্ক চিরদিন অবিচ্ছেদ্দ্য থাকবে।

তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতার যুদ্ধে আত্মত্যাগকারী দুই দেশের শহীদদের আত্মার প্রতি সম্মান প্রদর্শন করেন এবং তাদের আত্মার শান্তি কামনা করেন।

এই বিভাগের আরো খবর

ডেঙ্গু প্রতিরোধে সতর্ক বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান

ফারহানা জুঁথী: ডেঙ্গু প্রতিরোধে সতর্কতামূলক কার্যক্রম চালাচ্ছে রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। নিজ ব্যবস্থাপনায় পরিচ্ছন্নতা কাজে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is