ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৯ আশ্বিন ১৪২৬

2019-09-24

, ২৪ মহররম ১৪৪১

রোগ প্রতিরোধে জলপাই

প্রকাশিত: ০২:৩২ , ২৪ নভেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০২:৩২ , ২৪ নভেম্বর ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: জলপাই অত্যন্ত পরিচিত ও পুষ্টিকর ফল। জলপাই থেকে তৈরি তেল মানব দেহের জন্য অত্যন্ত উপকারী। এই তেল শরীরে ব্যবহার করলে ত্বক সুন্দর ও মোলায়েম হয়। জলপাই কাঁচা ও পাকা অবস্থায় খাওয়া যায়। এতে রয়েছে ভিটামিন, মিনারেল এবং ভেষজ উপাদান, খাদ্য আঁশ, আয়রন, কপার, ভিটামিন-ই, ফেনোলিক উপাদান, অলিক অ্যাসিড এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। জেনে নিন জলপাইয়ের গুণাগুণ। 

হার্টের জন্য উপকারী: যখন মানুষের হৃদপিণ্ডের রক্তনালীতে চর্বি জমে, তখন হার্ট অ্যাটাক করার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে। জলপাইয়ের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হার্ট ব্লক হতে বাধা দেয়। জলপাইয়ে রয়েছে মোনো-স্যাচুরেটেড ফ্যাট, যা আমাদের হার্টের জন্য খুবই উপকারী। 

ক্যানসার প্রতিরোধে: জলপাই ভিটামিন-ই এর ভালো উৎস। এছাড়া এতে মনোস্যাটুরেটেড ফ্যাট রয়েছে। জলপাইয়ের ভিটামিন-ই কোষের অস্বাভাবিক গঠনে বাধা দেয়। ফলে ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকি কমে।

আয়রনের উৎস: বিশেষ করে কালো জলপাই আয়রনের উৎস, আয়রন আমাদের দেহে রক্ত চলাচল করাতে সহায়তা করে, আর প্রাকৃতিক আয়রনের উৎসের জন্য জলপাই সেরা। 

ওজন কমাতে সাহায্য করে: যখন জলপাইয়ের মোনো-স্যাচুরেটেড ফ্যাট অন্য খাবারে বিদ্যমান স্যাচুরেটেড ফ্যাটের বদলে গ্রহণ করা হয় তখন তা দেহের ভেতরের ফ্যাট সেলকে ভাঙতে সাহায্য করে। জলপাইয়ের তেলেও রয়েছে লো কোলেস্টেরল যা ওজন এবং ব্লাডপ্রেশার কমায়। 
জলপাইয়ে মনোস্যাটুরেটেড ফ্যাটে থাকে এন্টি ইনফ্লামেটরি। রয়েছে ভিটামিন ই ও পলিফেনাল, যা অ্যাজমা ও বাত-ব্যাথাজনিত রোগের হাত থেকে বাঁচায়। জলপাইয়ের তেল হাড়ের ক্ষয়রোধ করে।

এছাড়া, জলপাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। অ্যালার্জি প্রতিরোধে সহায়তা করে। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে, হজমে সহায়তা করে। সর্দি-কাশিতে উপকারী। কাটা-ছেঁড়া, জ্বর, হাঁচি-কাশি, সর্দি ভালো করে। ত্বক ও চুলের যতেœ কাজ করে। চুলের গঠনকে মজবুত করে। দেহে ক্যানসারেরর জীবাণুকে ধ্বংস করে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

যৌবন ধরে রাখতে যে খাবার খাবেন

অনলাইন ডেস্ক: যৌবন এমন এক জিনিস যা সবাই ধরে রাখতে চান। প্রাকৃতিক নিয়মেই যদিও আমাদের বয়স বাড়ে, কিন্তু সত্যটা এই যে কেউই আসলে তা মন থেকে মেনে...

নারীদের শরীর ভালো রাখে যে ৪ খাবার

অনলাইন ডেস্ক: বর্তমান যুগে পুরুষের পাশাপাশি পিছিয়ে নেই নারীরা। ঘরে-বাইরে সমানতালে কাজ করে থাকেন তারা। তাই একজন নারী যদি সুস্থ না থাকেন তবে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is