ঢাকা, সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩ পৌষ ১৪২৫

2018-12-17

, ৮ রবিউস সানি ১৪৪০

সিলেটে ৫১ জনের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা

প্রকাশিত: ০৪:২৮ , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০৪:২৮ , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮

সিলেট প্রতিনিধি: সিলেট জেলার ছয়টি আসনে মোট মনোনয়ন জমা দেন ৬৬ জন প্রার্থী। যাচাই বাচাই শেষে ৫১ জনের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করা হয় এবং ১৫ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়। সিলেটের ৬টি আসনে আওয়মী লীগের পক্ষ থেকে পাঁচ জন এবং মহাজোট তথা জাতীয় পার্টি থেকে একজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 

আর বাকী ৪৫ জন ঐক্যফ্রন্ট, বিকল্পধারা, গণফোরাম, জাতীয় পার্টি, স্বতন্ত্র ও অন্যান্য দলের প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করছেন। 

সিলেট জেলার আয়তন ৩ হাজার ৪৯০.৪০ বর্গ কি.মি.। এই জেলায় ১৩টি উপজেলা, চারটি পৌরসভা, একটি সিটি কর্পোরেশন ও ১০১টি ইউনিয়ন রয়েছে। জেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ২২ লক্ষ ৫২ হাজার ২ শত ৯৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১১ লক্ষ ৫১ হাজার ৬ শত ৪৪, নারী ভোটার ১১ লক্ষ ৬ শত ৫০ জন। এর মধ্যে নতুন ভোটার ২ লক্ষ ৮৫ হাজার ৭ শত ৮১ জন। 

এছাড়া, মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৯৯১টি, ভোট কক্ষের সংখ্যা সর্বমোট ৪ হাজার ৮৬৩টি। সিলেটের ছয়টি আসনে মোট মনোনয়ন জমা দেন ৬৬ জন প্রার্থী। তার মধ্যে যাচাই বাচাই শেষে ১৫ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয় এবং ৫১ জনের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করা হয়। বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীতার জটে থাকলেও মহাজোট আছে সুবিধাজনক স্থানে। ছয়টি আসনে পাঁচজন মহাজোট তথা আওয়মী লীগের প্রার্থী এবং একটি আসনে মহাজোট তথা জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রতিদ্ব›দ্ধীতা করছেন।

মহাজোট মনোনিত সিলেট-৪ আসনের প্রার্থী ইমরান আহমেদ বলেন, বিগত বছরগুলোতে আওয়ামী লীগের অবদান বিবেচনা করে মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দিবে। 

সিলেট-২ আসনে মহাজোট মনোনিত জাতীয় পার্টির প্রার্থী, ইয়াহহিয়া চৌধুরী বলেন, স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি মহাজোটে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে আর অপরদিকে স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তি ঐক্যফ্রন্টে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। 

 

এদিকে, বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টে প্রার্থী কারা তা নিয়ে চলছে বিভ্রান্তি। প্রার্থী চুড়ান্ত না হওয়ার কারণে নেতাকর্মীরা ভোট ঘনিয়ে এলেও একক প্রার্থী নিয়ে মাঠে নামতে পারছেন না। তবে কারা হচ্ছেন ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী তার জন্য মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। 

 

 আর, প্রার্থী হওয়া নেতারা জানিয়েছেন- সিলেটে ভোটের মাঠে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ঐক্যফ্রন্টে একক প্রার্থী থাকবে। এ নিয়ে বিভ্রান্তির অবকাশ নেই বলে দাবি করেন তারা। 

 

তবে ২০০৮ সাল থেকে সিলেটের ছয়টি আসন দখলে রয়েছে মহাজোটের। এর মধ্যে চারটিতে রয়েছে আওয়ামী লীগ ও দুটিতে শরিক জাতীয়পার্র্টি। এবার তার ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারবে কিনা তা ৩০ তারিখের জাতীয় নির্বাচনেই বোঝা যাবে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহার ঘোষণা আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ইশতেহার ঘোষণা করবে আজ। বেলা ১১টার দিকে হোটেল পূর্বানীতে জাতীয়...

শেয়ারবাজারে নির্বাচনী প্রভাব দেখছেন বিনিয়োগকারী-পর্যবেক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : শেয়ারবাজার এবং বিনিয়োগ বাণিজ্য খাতে নির্বাচনী প্রভাব দেখছেন শেয়ার বাজারের ক্রেতা, বিক্রেতাসহ পর্যবেক্ষকরা। তাদের...

নৌকার প্রচারণার বড় হাতিয়ার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

নিজস্ব প্রতিবেদক : ফেইসবুক, টুইটার, ইউটিউবসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবার নির্বাচনী প্রচার প্রচারণার বড় জায়গা হয়ে উঠেছে। ডিজিটাল...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is