ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

2019-09-17

, ১৭ মহররম ১৪৪১

ঘুরে আসুন পাখির বাড়ি

প্রকাশিত: ১০:৩৭ , ১০ জানুয়ারী ২০১৯ আপডেট: ১১:০১ , ১০ জানুয়ারী ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদন: এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ফুলের মত বিছিয়ে আছে পাখি। কখনো আবার উড়ে যাচ্ছে ঝাঁক ধরে। শীতের শুরু থেকেই জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে এমন দৃশ্য চোখে পড়ার মত। পুরো শীতে অতিথী পাখিদের কলকাকলিতে মুখর হয়ে থাকে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসটি।

সবুজ প্রকৃতির মাঝে নির্মল এক জায়গা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। গাছপালায় ঢাকা সবুজ এ ক্যাম্পাসের বুকে আছে বেশ কয়েকটি জলাশয়। এসব জলাশয়গুলোকেই নিরাপদ আশ্রয়স্থল হিসেবে বেছে নিচ্ছে শীতের অতিথি পাখিরা।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কমবেশি ২২টির মতো জলাশয় আছে। দিনের প্রথমভাগে শাপলা ফুটন্ত থাকে। লাল শাপলার গালিচার মাঝে অতিথি পাখির কাকলি মুগ্ধ করে দর্শনার্থীদের। বর্তমানে হাঁসপাখি ‘পাতি সরালি’র প্রাধান্যই বেশি। এছাড়া মাঝে মাঝে দেখা মেলে ছোট পানকৌড়ি, ধলাবুক ডাহুক কিংবা পাতি পানমুরগির। তবে শীত বাড়ার সাথে সাথে জলাশয়গুলোতে পাখির সংখ্যা ও প্রজাতি বাড়তে থাকে।

পাখি দেখতে যেয়ে জাঙ্গাঙ্গীরনগরের কিছু বিষয়ের প্রতি নজর রাখা দরকার। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক ক্যাম্পাস এলাকাটিকে পাখির অভয়ারণ্য হিসেবে গুরুত্ব দিয়েছেন। তাই সেখানকার কর্তৃপক্ষের নিয়ম কানুন মেনে চলা জরুরি। কর্তৃপক্ষের দেওয়া নিরাপত্তা বেষ্টনীর বাইরে থেকে পাখি দেখতে হয়। ক্যাম্পাসে নিরবতা বজায় রাখতে গাড়ির হর্ন না বাজানেই শ্রেয়।

ক্যাম্পাসে পাখি দেখার সবচেয়ে ভালো সময় সকাল এবং বিকেল। তাই খুব সকালে গিয়ে সারাদিন কাটাতে পারেন ক্যাম্পাসে। দুপুরে খেয়ে নিতে পারেন ক্যাম্পাসের বটতলাখ্যাত বিভিন্ন রোঁস্তোরায়। খুব কম দামে হরেক পদের ভর্তা দিয়ে দুপুরের খাবার সারতে পারবেন।

কীভাবে যাবেন: ঢাকার গুলিস্তান, ফার্মগেইট, কল্যাণপুর কিংবা গাবতলী থেকে নবীনগর, মানিকগঞ্জগামী যে কোনো বাসে চড়ে সহজেই নেমে যেতে পারেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে।

এই বিভাগের আরো খবর

ঢাকার অদূরে বিনোদনের খোরাক

অনলাইন ডেস্ক: ইট-পাথরের যান্ত্রিক এই শহরে প্রকৃতির নিষ্পাপ সৌহার্দ একনিমিষে মুছে দেবে শত গ্লানি। তাই জীবন থেকে কিছুটা সময় প্রকৃতিকে দিন,...

একদিনের ট্যুর!

অনলাইন ডেস্ক: কম খরচে কম সময়ে ঘুরতে যাওয়ার জন্য চট্টগ্রেমের সীতাকুন্ড এবং মিরসরাইয়ের রেঞ্জগুলো অনেক বেশী সুবিধাজনক। কেউ চাইলে দিনে গিয়ে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is