ঢাকা, শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯, ৬ মাঘ ১৪২৫

2019-01-20

, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে আসামজুড়ে বিক্ষোভ

প্রকাশিত: ০১:৫৬ , ১১ জানুয়ারী ২০১৯ আপডেট: ০৩:০৯ , ১১ জানুয়ারী ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতে নাগরিকত্ব আইন পাসের প্রতিবাদে আসামজুড়ে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। এসময় বিভিন্ন স্থানে নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে। এদিকে, বিগত ১০ বছরে অবৈধভাবে কোনো বাংলাদেশি ভারতে প্রবেশ করেনি বলে জানিয়েছে আসাম বিজেপির এক মূখপাত্র। অপরদিকে, বিভিন্ন দাবিতে ২৪ ঘণ্টার বন্ধ পালন করছে আসাম রাজ্যের আদিবাসী বিভিন্ন সংগঠন।
২০১৪ সালে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নির্বাচনী প্রতিশ্র“তি ছিলো বিভিন্ন সময়ে আশ্রয় নেয়া অমুসলিমদের নাগরিকত্ব দেয়া। সরকারের মেয়াদের শেষে এসে সেই প্রতিশ্র“তি বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেয় মোদি সরকার। বিরোধীদের আপত্তি সত্ত্বেও লোকসভায় পাস হয় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন। তবে, এর বিরোধীতা করে বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে আসামের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন।   
এ পরিস্থিতিতে রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে পুলিশের সাথে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। আটকের পাশাপাশি ৩ বিক্ষোভকারীর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ এনেছে পুলিশ। নাগরিকত্ব আইন বাতিল না করা হলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বা ইউনিয়ন নেতাদের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে প্রবেশ করতে দেয়া হবেনা বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে আসামের কৃষক মুক্তি সংগ্রাম সমিতি এবং এর সহযোগী ৭০টি সংগঠন।
এদিকে, নাগরিকত্ব আইনে অনেক অবৈধ বাংলাদেশি ভারতের নাগরিকত্ব পাবে; কেএমএসএস এমন দাবি উড়িয়ে দিয়েছে বিজেপি। আসাম বিজেপির মূখপাত্র স্বপ্ননীল বড়–য়া জানান, বিগত ১০ বছরে অবৈধভাবে কোনো বাংলাদেশি ভারতে প্রবেশ করেনি। এসময়, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন তিনি।
অন্যদিকে, নিজেদেরকে তফশিলি উপজাতি হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব ও নাগরিকত্ব আইনের বিরোধীতা করে আসামে ২৪ ঘণ্টার বন্ধ পালন করছে রাজ্যের আদিবাসী বিভিন্ন সংগঠন। শুক্রবার সকাল ৫টা থেকে এ বন্ধ শুরু হয়।

 

এই বিভাগের আরো খবর

বাড়ল গোঁফের যত্ন ভাতা

ডেস্ক প্রতিবেদন: ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের প্রভিন্সিয়াল আর্মস কনস্টাবুলারি তাদের বাহিনীর শক্তি বৃদ্ধির জন্য গোঁফের যত্ন নেওয়ার ভাতা...

যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বাণিজ্যযুদ্ধ: চুক্তিতে সময় প্রয়োজন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যকার বাণিজ্যযুদ্ধ বন্ধে আলোচনা অব্যাহত থাকলেও চূড়ান্ত চুক্তিতে পৌঁছাতে আরো সময় প্রয়োজন বলে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is