ঢাকা, শনিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০১৯, ৬ মাঘ ১৪২৫

2019-01-20

, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪০

পটুয়াখালী এখন ময়লা-আবর্জনার ভাগাড়, ফেলা হচ্ছে যত্রতত্র

প্রকাশিত: ০৮:৩৪ , ১৩ জানুয়ারী ২০১৯ আপডেট: ১২:০২ , ১৩ জানুয়ারী ২০১৯

পটুয়াখালী প্রতিনিধি : পটুয়াখালী শহরে নির্দিষ্ট ডাম্পিং জোন না থাকায় ময়লা আবর্জনা ফেলা হচ্ছে খোলা জায়গায় কিংবা নদীর তীরে। পৌরসভার ২৬ বর্গ কিলোমিটার এলাকায় প্রতিদিন প্রায় দুই টনের মতো বর্জ্য তৈরি হয়। পৌরসভার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা এসব বর্জ্য সংগ্রহ করলেও তা ফেলার জন্য নির্ধারিত কোনও স্থান নেই। বাধ্য হয়ে বিসিক শিল্প নগরী, চরপাড়া ও পুরান বাজার এলাকায় লোহালিয়া ও লাউকাঠী নদীর তীরে ফেলা হয় এসব বর্জ্য। প্রতিনিয়ত এসব ময়লা আবর্জনা নদীর তীরে ফেলায় এলাকার পরিবেশ দূষিত হয়ে উঠেছে। আর, ময়লা আবর্জনা ফেলার জায়গা না থাকায় শহরের অনেক স্থানই পরিণত হয়েছে ময়লা আবর্জনার ভাগাড়ে।

পটুয়াখালীর পৌর মেয়র মোঃ শফিকুল ইসলাম জানালেন, প্রতিদিন আড়াইশ’ পরিচ্ছন্নতা কর্মী শহরে কাজ করেন। কিন্তু বর্জ্য ফেলার নির্দিষ্ট জায়গা না থাকায় বিপাকে পড়তে হয়। এ নিয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও বর্জ্য ফেলার জায়গা কিংবা অর্থ বরাদ্দ পাওয়া যায়নি।

পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বড় শহরগুলোর মতো জেলা শহরেও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করতে হবে। নাহলে দীর্ঘ মেয়াদে এসব এলাকার মাটি, পানি ও বাতাস দূষিত হবে।

পরিবেশ ও মানুষের স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে দ্রুত একটি আধুনিক ডাম্পিং জোন স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন শহরের বাসিন্দারা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

পশু-পাখিদের রক্ষায় শিগগিরই শুরু হবে আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজ

সাভার প্রতিনিধি: দুর্যোগে মানুষের পাশাপাশি গৃহপালিত পশু-পাখিদের রক্ষার জন্য আশ্রয়ন প্রকল্পের কাজ শিগগিরই শুরু হবে বলে জানিয়েছেন...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is