ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-19

, ১৭ জিলহজ্জ ১৪৪০

জামাতুল মুসলিমিনের নেতা রিজওয়ান হারুন গ্রেফতার

প্রকাশিত: ০৪:০৫ , ২০ জানুয়ারী ২০১৯ আপডেট: ০৪:০৫ , ২০ জানুয়ারী ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশের সর্বপ্রথম আল-কায়েদার মতাদর্শী জঙ্গি সংগঠন জামাতুল মুসলিমিন (জেএম) এর নেতা রিজওয়ান হারুনকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। রোববার ভোরে রাজধানীর ধানমণ্ডির ঈদগাহ মসজিদের সামনে থেকে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেফতার করে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে দেয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব জানানো হয়।

রিজওয়ান হারুনকে ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনের একটি মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানানো হয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে। বাংলাদেশে জামাতুল মুসলিমিন প্রতিষ্ঠায় রিজওয়ানের প্রত্যক্ষ মদদ ছিলো। বর্তমানে বিশ্বের ১৭টি দেশে এই জঙ্গি সংগঠনটি কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

সংগঠনটির সদস্যরা ঢাকা শহরের বিভিন্ন বাসা, মসজিদ ও হারুন ইঞ্জিনিয়ারিং এর নিজস্ব কার্যালয় (নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন) সংগঠনের দাওয়া-হালাকা কার্যক্রমের জন্য ব্যবহার করে। এসব হালাকায় দেয়া বয়ানে যেসব প্রচারণা চালানো হয় তার মধ্যে রয়েছে, ‘প্রচলিত ইমামের পেছনে জুমার নামাজসহ অন্যান্য নামাজ আদায় করা যাবে না’, ‘যারা জামাতুল মুসলিমিনের বায়াহ করবেনা তারা সবাই কাফির’, ‘জামাতুল মুসলিমিনের সকল সদস্য হিজরত করবে’, ‘বাংলাদেশে প্রচলিত ঈদের নামাজের পরিবর্তে ইউনিফাইড মুন সাইটিং কমিটির নির্দেশনায় ঈদের আগে স্ব-পরিবারে নামাজ আদায় করবে’। এসব কার্যক্রমের জন্য ২০০৫ সালে জামাতুল মুসলিমিনকে বাংলাদেশে কালো তালিকাভুক্ত করা হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, জামাতুল মুসলিমিনের সকল সদস্যরা জঙ্গি কার্যক্রম বিস্তারের জন্য বিভিন্ন ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল ও অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলে। এর মধ্যে লেকহেড গ্রামার স্কুল ও কিউকেশিন কারাতে স্কুল অন্যতম। পাকিস্তানি (পরবর্তীতে ভারতীয় বংশোদ্ধুত বাংলাদেশি) নাগরিক রিজওয়ান হারুন ২০০৬ সালে লেকহেড গ্রামার স্কুল আগের মালিকের কাছ থেকে কিনে নেন। এসব স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ইসলামি জঙ্গিগোষ্ঠীর কার্যকলাপ সম্পর্কে জানানোর পাশাপাশি তাদের মস্তিষ্কে জিহাদী চেতনা ঢুকিয়ে দেয়া হতো। 

বিষয়গুলো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরে আসলে প্রতিষ্ঠানটি খালেদ হাসান মতিনের (একই মামলার আসামি) কাছে বিক্রি করে দেয় রিজওয়ান হারুন। পরবর্তীতে আত্মগোপনে গিয়ে জঙ্গি কার্যক্রম চালিয়ে আসছিলো সে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is