ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১০ ফাল্গুন ১৪২৪

2018-02-21

, ৫ জমাদিউল সানি ১৪৩৯

বিয়ে অনুষ্ঠান মানে বহুমুখী বাণিজ্যের সুযোগ

প্রকাশিত: ১০:৪৮ , ১২ মে ২০১৭ আপডেট: ১০:৪৮ , ১২ মে ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: এখন বিয়ের অনুষ্ঠান বহুমুখী বাণিজ্যের সুযোগ করে দিয়েছে। বিয়ের আয়োজনে নতুন নতুন চিন্তার যোগ-বাণিজ্যেও নতুন নতুন দ্বার উন্মোচন করে। বাণিজ্যের ব্যাপ্তি তৈরি করে কর্মসংস্থানের সুযোগ।

৭০-৮০’র দশকে সামরিক-বেসামরিক ক্লাবগুলোতে বিত্তশালীদের বিয়ের অনুষ্ঠান হতো। ১৯৮২ সালে প্রথম বিয়ের জন্য বেসরকারি মালিকানায় ঢাকার ইস্কাটনে সোহাগ কমিউনিটি সেন্টার হয়। সেই থেকে কমিউনিটি সেন্টারে বিয়ের সংস্কৃতি এখন একটি প্রতিষ্ঠিত,  লাভজনক ব্যবসা।

৮০’র দশকেরই শেষ ভাগে চাইনিজ রেস্টুরেন্টেও বিয়ের আয়োজন শুরু হয়। সেটাও এখন প্রচলিত চর্চা, সামর্থ্য ভেদে রেস্টুরেন্ট বেছে নেয় বর-কনের পরিবার। বিয়ে ও বউভাতের যে ঐতিহ্যবাহী অনুষ্ঠানের চর্চা ছিল তা কমে সংবর্ধনার নামে এখন হচ্ছে দুই পরিবারের উদ্যোগে একটি অনুষ্ঠান। খাবার ও সাজসজ্জার বিয়েকে ঘিরে সবচেয়ে বড় বাণিজ্য।

বিয়ের ব্যয় বহুল পোশাক বাণিজ্যে আমদানি নির্ভরতা বেশি। যাদের সামর্থ্য কম তারা কিনতে না পেরে ভাড়াও করেন।

বর কনের সাজ নিঃসন্দেহে অতি গুরুত্বের বিষয় বিয়েতে। তবে বিত্তশালী পরিবারে দুই পক্ষের স্বজনদের সাজ-সজ্জাও বড় ইস্যু হয় বিয়েতে, বউভাতে ও হলুদের অনুষ্ঠানে। তবে সামর্থ্য যাই হোক অন্তত কনের সাজটা বিউটি পার্লারে হওয়া চাই।

প্রবীন প্রজন্মের খুব কম ব্যক্তিদের কাছেই তাদের বিয়ের ছবি পাওয়া যায়। কেননা ক্যামেরার চল ছিল বিরল। ভিডিও ছিল কল্পনারও অতীত। এখন বিয়ের ছবি ও ভিডিও চিত্র ধারণের জন্য প্রতিযোগিতামূলক ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। অনলাইনেও এই ব্যবসা উঠছে জমে।

সবার জীবনেই বিয়েটা মাইল ফলক ঘটনা। যেই স্মৃতি বহন করে আমৃত্যু। ফলে যতটা জাকজমক, উৎসব মুখর ও সৌন্দর্য মন্ডিত করা যায় সেদিকেই সবার ভাবনা। জীবনের এই সুখোস্মৃতিকে ধরে রাখতে নতুন নতুন উদ্ভাভাবনী চিন্তার প্রতিযোগিতা বরাবরই দেখা যায় বর-কনে, তাদের পরিবার ও ব্যবসায়ীদের মাঝে।

এই বিভাগের আরো খবর

তিনমাসের মধ্যেই কাজ শুরু

ঢাকার নদী-খাল দূষণমুক্ত ও নাব্যতা বৃদ্ধির উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: এবার ঢাকার আশপাশের নদী ও খাল দূষণমুক্ত ও নাব্যতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এজন্য প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকার একটি...

পরিবেশ বান্ধব করার তাগিদ

কাগজ শিল্পে আসছে নতুন নতুন প্রকল্প 

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিক্রির পরিমাণ হিসেবে দেশে প্রতিদিনের কাগজের বাজার প্রায় চার হাজার মেট্রিক টনের। টাকার অংকে যার পরিমাণ প্রায় আটাশ কোটি...

প্রতিবছরই বাড়ছে রপ্তানির পরিমাণ

কাগজ রপ্তানি তিন হাজার কোটি টাকার 

নিজস্ব প্রতিবেদক: সরকারি চারটি কাগজ কারখানার তিনটি বন্ধ, মাত্র একটি সচল। তবে বেসরকারি খাতে নব্বইটির বেশি কাগজ কারখানা উৎপাদনে রয়েছে।...

প্রায় দশ লাখ মানুষ জড়িত

সরকারি খাতে কাগজ শিল্পের দুর্দশা

নিজস্ব প্রতিবেদক: কাগজের উদ্ভাবন মানব সভ্যতা বিকাশের পথে একটি মাইলফলক ঘটনা। দু’শ খ্রিস্টাব্দেরও আগে এই আবিস্কারের কৃতিত্ব চীনের।...

ব্যাংক ঋণ, প্রশিক্ষণ ও পৃষ্ঠপোষকতা দরকার

দক্ষ কারিগরের অভাবে শতরঞ্জির উৎপাদন ব্যাহত

নিজস্ব প্রতিবেদক: একসময় বিলুপ্তির পথে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী শতরঞ্জির ব্যবহার বিগত এক দশকে বেড়েছে অনেক । দেশের গন্ডি ছাড়িয়ে বিক্রি হচ্ছে...

শতরঞ্জির ব্যবহার বেড়েছে, আধুনিকায়নে এসেছে উন্নয়ন সংস্থা

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রাচীন ঐতিহ্য শতরঞ্জি একবার উনিশ'শ সাতচল্লিশে ভারত ভাগের সময়, আরেকবার একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে বড় বিপর্যয়ের মুখে পড়ে।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is