ঢাকা, রবিবার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-24

, ২২ জিলহজ্জ ১৪৪০

রাজধানীতে চালের দাম স্থিতিশীল

প্রকাশিত: ০৪:৪৪ , ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ আপডেট: ০৪:৪৪ , ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর বাজারে চালের দাম স্থিতিশীল থাকলেও বেড়েছে মাছ, মাংস ডিমসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম। গরু, খাসির মাংস ও মাছ কেজিতে বেড়েছে ২০ থেকে ৫০ টাকা। দেশী মুরগী ও মুরগীর ডিমও কিনতে হচ্ছে চড়া দামে। দোকানীরা বলছে পর্যাপ্ত মজুদ না থাকায় দাম বেড়েছে অন্যদিকে ক্রেতারা জানালেন বাজার তদারকি না থাকায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে দাম বাড়ানো হচ্ছে।
মাছ, মাংস, ডিমসহ রাজধানীর বাজারগুলোতে বেড়েছে সব ধরণের পণ্যের দাম। মাছের বাজারে গিয়ে দেখা গেল টেংরা, কই, রুই কাতলাসহ প্রতি কেজি মাছ বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা বেশি দরে। তবে, কমেছে ইলিশের দাম। আটশ গ্রামের একজোড়া ইলিশ বিক্রি হচ্ছে হাজার টাকায়   
বাজার তদারকিতে কোন প্রতিষ্ঠানের নিয়মিত কার্যক্রম না থাকায় ইচ্ছামত বিক্রেতারা দাম হাকাচ্ছে বলে অভিযোগ ক্রেতাদের। তাই কঠোরভাবে বাজার তদারকির দাবি জানান তারা।
ডিমের বাজারেও একই চিত্র। ব্রয়লার মুরগীর ডজনে ছয় টাকা বাড়লেও দেশীমুরগীর দাম উর্দ্ধমুখি। দাম বেড়েছে খাসির মাংসেরও। প্রতি কেজি খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে আটশত টাকা দরে।
কয়েক দফায় চালের দাম বাড়ার পর এই সপ্তাহে চালের বাজার কিছুটা স্থিতিশীল। নাজির চাল চুয়ান্ন থেকে ষাট টাকা কেজি দরে বিক্রী হচ্ছে। মিনিকেট বায়ান্ন থেকে পঞ্চান্ন টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।
শীতের প্রায় সব সবজি প্রতি কেজি ত্রিশ থেকে চল্লিশ টাকায় পাওয়া গেলেও বাসায় পাশের ভ্যানের দাম ও এই বাজারের দামে কোন পার্থক্য নেই বলে জানান এই ক্রেতা।
তাই নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম নিয়ন্ত্রণ করতে বাজার তদারকির জোর দাবি জানান ক্রেতারা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

কুটনৈতিক ব্যর্থতায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু হয়নি: হাফিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: কুটনৈতিক ব্যর্থতায় দুই বছরেও রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু করতে পারেনি সরকার। এ সংকট দিনদিন আরো ঘনীভূত হওয়ায় আশংকা...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is