ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬

2019-04-22

, ১৬ শাবান ১৪৪০

সাত বছর ধরে বিচারের অপেক্ষায় সাংবাদিক সাগর ও রুনির মা

প্রকাশিত: ০৮:৪৯ , ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ আপডেট: ১১:১০ , ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত সাত বছর ধরে কাঁদতে কাঁদতে চোখের পানি যেন আর আসছে না সাংবাদিক সাগর সরওয়ারের মা’য়ের। একমাত্র ছেলেকে কারা কিভাবে, কেন হত্যা করলো সেটা এখনো রহস্য থাকায় বিলাপ করেন সাগর সরওয়ারের মা সালেহা মুনির। চোখের পানি ও সন্তানের স্মৃতি নিয়েই বেঁচে আছেন তিনি।

ক্ষোভ আর হত্যাশা জানিয়ে তিনি বললেন, সাগর রুনির হত্যার বিচার হয়তো আর দেখে যেতে পারবে না।

নিহত মেহেরুন রুনির ছোটভাই মামলার বাদী নওশের আলম রোমানও হাতাশা নিয়ে বললেন তারা আশা ছেড়েই দিয়েছেন। বর্তমান তদন্ত সংস্থা যদি এই হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে না পারে তাহলে নিজেদের ব্যর্থতা শিকার করে অন্য কোন সংস্থার কাছে ছেড়ে দিক- এমন দাবি করেন রুনীর ভাই নওশের আলম রোমান।

সাগর রুনি নিহত হওয়ার পর থেকেই তাদের একমাত্র ছেলে মাহীর সরওয়ার মেঘ থাকেন নানুর বাসায়। মেঘের দায়িত্ব অনেকটা বাবা-মায়ের মতো সামলাচ্ছেন মামা রোমান। নিহতের সময় মেঘ ছোট থাকলেও এখন ষষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থী।  

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারে ভাড়া বাসায় খুন হন মাছরাঙা টেলিভিশনের তৎকালীন বার্তা সম্পাদক সাগর সারওয়ার ও এটিএন বাংলার জ্যৈষ্ঠ প্রতিবেদক মেহেরুন রুনি।

এই বিভাগের আরো খবর

জেল হাজতে নুসরাতের সহপাঠী পপি

নিজস্ব প্রতিবেদক: মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত হত্যায় সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে সহপাঠী উম্মে সুলতানা পপি।...

তারেকের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দের আদেশ যাবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তাঁর স্ত্রী জোবাইদা রহমানের নামে ইংল্যান্ডে থাকা তিনটি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট...

বৈশাখী টেলিভিশনের শেয়ার হস্তান্তর সংক্রান্ত মামলায় বুলু’র রিভিউ খারিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বৈশাখী টেলিভিশনের মালিকানা দাবি করে এমএনএইচ বুলুর করা রিভিউ আবেদন খারিজ করে দিয়েছে আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ...

কয়েকদফা সভা করে নুসরাত হত্যার পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়: আদালতে শরীফের জবানবন্দি

ফেনী প্রতিনিধি: ফেনীর সোনাগাজীতে আগুনে পুড়িয়ে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে হত্যার ঘটনায় সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is