কবি আল মাহমুদকে দাফন করা হবে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়

প্রকাশিত: ১২:০৮, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

আপডেট: ০১:৪৬, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদন :  সোনালী কাবিন খ্যাত কবি আল মাহমুদকে দাফন করা হবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া নিজ বাড়ি মোড়াইলের কবরস্থানে। দুপুরে,রাজধানীর বায়তুল মোকররমে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত। এরআগে জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রথম জানাজা শেষে সর্বস্তরের মানুষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। সকালে বাংলা একাডেমিতে তার মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

কবি আল মাহমুদ  শুক্রবার রাতে, রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে দেশের সাহিত্যাঙ্গনে। বাংলা সাহিত্যের আধুনিক যুগের কবিদের মধ্যে অন্যতম আল মাহমুদ। বিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধে সক্রিয় থেকে যিনি আধুনিক বাংলা কবিতাকে নতুন আঙ্গিকে, চেতনায় ও বাক্ভঙ্গিতে বিশেষভাবে সমৃদ্ধ করেছেন। আল মাহমুদ একাধারে একজন কবি, ঔপন্যাসিক, প্রাবন্ধিক, ছোটগল্প লেখক, শিশুসাহিত্যিক এবং সাংবাদিক। 

১৯৬৩ সালে লোক লোকান্তর কাব্যগ্রন্থের মধ্য দিয়ে কাব্য জগতে আনুষ্ঠানিক প্রবেশ আল মাহমুদের। তার ঝুঁলিতে রয়েছে কালের কলস, সোনালী কাবিন, মায়াবী পর্দা দুলে ওঠোর মতো কাব্যগ্রন্থ। সাহিত্যে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরুপ পেয়েছেন একুশে পদক, বাংলা একাডেমি পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার আর সম্মাননা।

গুনি এই কবি দীর্ঘদিন ধরে ভুগছিলেন নিউমোনিয়াসহ বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায়। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় গেল ৮ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ধানমন্ডির ইবনে সিনা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার রাত ১১টার দিকে ৮২ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আল মাহমুদ।

এই বিভাগের আরো খবর

অপপ্রচারে কান না দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ...

বিস্তারিত
সরকারের ব্যর্থতায় চুয়াত্তরের পদধ্বনি: মওদুদ

নিজস্ব সংবাদদাতা: সরকারের ব্যর্থতায়...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *