ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

2019-05-22

, ১৭ রমজান ১৪৪০

সূর্যের আলো থেকে ভিটামিন-ডি পাওয়ার সময়

প্রকাশিত: ০১:০৯ , ০৭ মার্চ ২০১৯ আপডেট: ০১:০৯ , ০৭ মার্চ ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: শরীরের পুষ্টি উপাদানগুলোর মধ্যে ভিটামিন ডি অন্যতম। আর এই ভিটামিন ‘ডি’র ঘাটতি বর্তমানে সারা বিশ্বের একটি স্বাস্থ্যবিষয়ক সমস্যা। বিভিন্ন খাবারে ভিটামিন ‘ডি’ পাওয়া গেলেও এর অন্যতম উৎস সূর্যের আলো।

এখন কথা হচ্ছে কোন সময়ের সূর্যের তাপটা ভিটামিন ডি এর জন্য আদর্শ। অনেকেই জানে না, ভিটামিন ‘ডি’ পাওয়ার জন্য দিনের আলো কোন সময়টুকু উপযুক্ত। এ বিষয়ে পুষ্টিবিদরা বলেন, ‘সম্প্রতি কিছু গবেষণা থেকে দেখা গেছে, দিনের আলোর, অর্থাৎ সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত সময় ভিটামিন ‘ডি’র জন্য উপযুক্ত সময়। তবে এটি অবশ্যই ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর্যন্ত নিতে হবে।’

পুষ্টিবিদদের মতে, ভিটামিন ‘ডি’-কে মূলত সান লাইট বা সূর্যের আলোর ভিটামিন হিসেবে বলা হয়। কারণ, ভিটামিন ‘ডি’ আমাদের শরীরে তৈরি হয়, যখন আমরা সূর্যের আলোর সংস্পর্শে আসছি। ভিটামিন ‘ডি’র ঘাটতির কারণে অনেক রোগ হয়ে থাকে। হাড়ের রোগ, যেমন রিকেট, অস্টিওপরোসিস, রিউমাটয়েড আর্থ্রাইটিস হতে পারে। পাশাপাশি ইনফ্ল্যামেটোরি বাউয়েল ডিজিজ হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ভিটামিন ‘ডি’র ঘাটতি হলে কিন্তু স্থূলতাও হতে পারে। তাই আমাদের অবশ্যই চেষ্টা করতে হবে ভিটামিন ‘ডি’যুক্ত খাবার গ্রহণ করার।”

এ ছাড়া ভিটামিন ‘ডি’র ঘাটতি প্রতিরোধের জন্য আমাদের অবশ্যই সুষম খাদ্যাভ্যাস মেনে চলতে হবে। এজন্য কিছু নির্দিষ্ট খাবার রয়েছে, যেগুলো ভিটামিন ‘ডি’র জন্য উপযুক্ত। খাদ্য তালিকায় যেন কুসুমসহ ডিম থাকে। বিভিন্ন দুগ্ধজাতীয় খাবার থাকে, মাছ থাকে। তবে চেষ্টা করতে হবে সামুদ্রিক মাছ যেন থাকে। সামুদ্রিক মাছ থেকে আমরা প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘ডি’ পেয়ে থাকি। এ ছাড়া মাশরুম, কমলার রস খাওয়া যেতে পারে।

অনেকে মনে করেন, ভিটামিন ‘ডি’র চাহিদা পূরণ করতে হলে সূর্যের আলোর সংস্পর্শে আসা আর ভিটামিন ‘ডি’যুক্ত খাবার খেলেই হয়। তবে ধারণাটা ঠিক নয়, ভটামিন ‘ডি’ যুক্ত খাবারের পাশাপাশি ক্যালসিয়ামযুক্ত খাবারও খেতে হবে। কারণ, ক্যালসিয়ামের ঘাটতি থাকলে ভিটামিন ‘ডি’র হজম ভালোভাবে হয় না। তাই ভিটামিন ‘ডি’র ঘাটতি দূর করতে ভিটামিন ‘ডি’যুক্ত খাবার এবং ক্যালসিয়ামযুক্ত খাবার সমানভাবে খেতে হবে। বিভিন্ন ধরনের খাবার থেকে আমরা ক্যালসিয়াম পেতে পারি। যেমন : স্পিনাচ, ওটমিল, ছোট কাঁটাযুক্ত মাছ খেতে হবে। দুগ্ধজাতীয় খাবার থেকেও আমরা ক্যালসিয়াম পেতে পারি। চেষ্টা করতে হবে সপ্তাহে এক থেকে দুদিন মাশরুমের স্যুপ খাওয়ার।’ তাহলে ভিটামিন ‘ডি’র চাহিদা অনেকটা পূরণ হবে বলে মতামত তাঁর।

 

এই বিভাগের আরো খবর

রোজায় দই কেন খাবেন

অনলাইন ডেস্ক: দই বেশ পরিচিত একটি খাবার। মিষ্টিজাতীয় খাবার হিসেবেই এটি বেশি পরিচিত। তবে দই টক এবং মিষ্টি দুই ধরনেরই হয়। দধি বা দই হল এক ধরনের...

শিশুদের ক্যাভিটির সমস্যা ও করণীয়

ডেস্ক প্রতিবেদন: ছোটদের ক্ষেত্রে ক্যাভিটির সমস্যা বেশি দেখা যায়। ক্যাভিটি হওয়ার পেছনে তিনটি প্রধান কারণ দেখা যায়, ব্যাকটেরিয়া, সুগার ও...

মুরগির লিভার বা মেটের উপকারিতা

ডেস্ক প্রতিবেদন: প্রাণীর লিভার (যকৃৎ) বা মেটে আমরা উপকারী ভেবে খেয়ে থাকি। কিন্তু মুরগির মেটে কি উপকারী? এ দ্বিধা-দ্বন্দ্বে কেউ মেটে বা লিভার...

গোপালগঞ্জের বিভিন্ন হাসপাতালে বিকল হয়ে পড়ে আছে অ্যাম্বুলেন্স

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে মেরামতের জন্য বরাদ্দ না পাওয়ায় গোপালগঞ্জের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালের ১৫টি...

আনারসের গুনাগুণ ও উপকারিতা

ডেস্ক প্রতিবেদন: আনারসের মধ্যে আছে ভিটামিন বি১,বি২,বি৩,বি৪,বি৫,বি৬। তাছাড়া আছে পটাসিয়াম, কোপার, ফলিক আ্যসিড, ক্যারোটিন ইত্যাদি। যা আমাদের...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is